সর্বশেষ সংবাদ ট্রাকের ধাক্কায় অ্যাম্বুলেন্সের ৬ যাত্রী নিহত নাচোলের বীরমুক্তিযোদ্ধা ছাহেন মোল্লাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন চাঁপাইনবাবগঞ্জে মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে উপ-নির্বাচনঃপ্রচার-প্রচারনা শুরু প্রার্থীদের চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১০ দফা দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুটি সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ গাইবান্ধায় বাস-ট্রাক-মোটরসাইকেলের সংঘর্ষ, নিহত ৩ আফগানিস্তানে সাবেক নারী এমপিকে গুলি করে হত্যা নাচোলে পানের দোকান চালাচ্ছে ছাত্রী রাফিয়া সংসদ উপনির্বাচনঃ৷ একজনের মনোনয়ন প্রত্যাহার

শেখ হাসিনার অধীনে এ দেশে নির্বাচন হবে না: মির্জা ফখরুল

নিজস্ব প্রতি‌বেদক, কুমিল্লা
সকল রাজনৈতিক দল নিয়ে একটি জাতীয় সরকার গঠনের প্রত্যাশা ব্যক্ত করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, শেখ হাসিনার হাসিনার পদত্যাগের আগে এ দেশে কোনো নির্বাচন হবে না। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া কোন নির্বাচন হবে না। নির্বাচনের পূর্বে সংসদ ভেঙ্গে দিতে হবে। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করে সে নির্বাচন কমিশনের অধিনে নির্বাচন হবে।
ফখরুল বলেন, অবৈধ প্রধানমন্ত্রী, জোর করে দুইবার নির্বাচন করেছে। ’১৪ সালে কেউ ভোট দিতে যায় নাই, নির্বাচনের আগে তাদের ১৫৪ জন জয়ী হয়ে গেছেন। ’১৮-তে রাতেই ভোট শেষ। তিনি নাকি আবার নির্বাচন করবেন। আপনারা কি আবার তা
দের ভোট দিবেন? তারাও জানে, ভোট হলে জামানত থাকবে না। তাই আবার আগের কৌশলে যেতে চান। কিন্তু তা হবে না। আপনাদেরকে সাথে নিয়ে আমরা আরো দুর্বার আন্দোলন তৈরি করে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করবো। এরপর জনগণের একটি সরকার আমরা গঠন করবো।
শনিবার (২৬ নভেম্বর) কুমিল্লা টাউন হল মাঠে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। ফখরুল আ‌রো বলেন, প্রধানমন্ত্রী যশোরে জনসভা করেছেন, রাষ্ট্রীয় সকল সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ করে সেখানে মানুষের কাছে ভোট চেয়েছেন, বলেছেন আবার নৌকায় ভোট দেন। এ কথা শুনে আমার আব্বাস উদ্দিনের গানের কথা মনে পড়ে গেছে ‘আগে জানলে তোর ভাঙ্গা নৌকায় উঠতাম না।’ এ দেশের মানুষও এখন সেই গাইতে শুরু করেছেন। ভুলে যান, দেশের মানুষ আর চায় না। সময় থাকতে মানে মানে চলে যান। না হয় পরিণতি ভালো হবে না।
তিনি বলেন, জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করা হয়েছে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পর আমাদের ভোটের অধিকারের জন্য লড়াই-সংগ্রাম করে জীবন দিতে হচ্ছে। তারা সরাসরি ভোট দিতে চায় না। কারণ ভোট হলে আমানত থাকবে না। এজন্য ফন্দি ফিকির শুরু করেছে। তারা থাকবে ক্ষমতায়, তারা মন্ত্রী-এমপি থাকবে, আর আমরা ভোট দিবে। এজন্য আবার সমস্যা শুরু করেছে। ফের গায়েবী মামলা হয়েছে। পত্রিকায় হেডলাইন হচ্ছে। বলা হচ্ছে ককটেল বিস্ফোরণের কথা। কিন্তু পাবলিক বলছে আমরা শুনিনি।
তাদের গন্ডারের মতো চামরা হয়েছে। বেশরম, বেহায়া হয়ে গেছে সরকার।
তিনি বলেন, ঢাকার গণসমাবেশ নস্যাৎ করতে আগে থেকেই মামলা দেওয়া হয়েছে। এসব করে আমাদের সমাবেশ বন্ধ করা যায়নি, যাবেও না। ঢাকা-রাজশাহীতেও সমাবেশ বন্ধ করা যাবে না। আমাদের কথা পরিস্কার। আমরা অধিকার আদায়ের জন্য শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছি। অগ্নিসন্ত্রাস করে আপনারা বিরোধী দল- বিএনপির নাম দিচ্ছেন। চট্টগ্রামেও ছাত্রলীগের আগুন সন্ত্রাসের পর বিএনপির নামে মামলা দেওয়া হয়েছে। কুমিল্লায়ও একই ঘটনা ঘটেছে। কুমিল্লার হিরু-হুমায়ূনকে গুম করা হয়েছে। তাদের সন্তানেরা বাবাকে পায় না। সন্তানদের চোখ ছল ছল করে, আমরা সান্ত¦না দিতে পারি না। সিলেটের ইলিয়াসকে গুম করা হয়েছে।
বিএনপির মহাসচিব বলেন, কিছুদিন আগে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, রিজার্ভ কি আমরা চিবিয়ে খেয়েছি? আমি বলি- রির্জাব আপনারা চিবিয়ে খাননি, গিলেই খেয়ে ফেলেছেন। সব খেয়ে ফেলেছেন, বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার পাচার করে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছেন। বাংলাদেশ থেকে গত ১০ বছরে হাজার-হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়ে গেছে। বিদ্যুতের জন্য ৭৮ হাজার কোটি টাকা তারা ১ বছরে পাচার করেছে। বিদ্যুতের দাম কতো বাড়িয়েছে? দাম দিতে দিতে আমরা দিশেহারা হয়ে গেছি। অকটেন, ডিজেল পেঁয়াজের দাম বাড়িয়েছে। সবকিছুর বাদম বেড়ছে। আয় বাড়েনি। কিন্তু ওদের আয় বাড়ে। তারা ফুলে ফেঁপে যাচ্ছে। একজনের ৪টা বাড়ি থেকে ১০টা বাড়ি হয়েছে। আমাদের সাধারণ মানুষেরা দু’বেলা দু মুঠো খেতে পায় না। আমাদের মা-বোনেরা তাদের সন্তানকে একটি ডিমও খাওয়াতে পারছেন না।
বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের নেতা ৮ হাজার মাইল দুর থেকে ডাক দিয়েছেন ট্যাক-ব্যাক বাংলাদেশ। কোন বাংলাদেশ? যে বাংলাদেশের স্বপ্ন আমরা দেখেছিলাম। যে স্বপ্ন দেখে দেশ স্বাধীন করেছিলাম। আমাদের দেশের মানুষ সুখে-শান্তিতে থাকতে পারে, সেই বাংলাদেশ।
কিন্তু এই সরকার কোথাও কিছু রাখেনি। ন্যায় বিচার পাপওয়া যায় না। মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজা দিয়ে দেয়। এখানের উপস্থিত আমাদের নেতাদের বিরুদ্ধে ৫০/৬০টি করে মামলা রয়েছে। আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে আটকে রাখা হয়েছে। সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়েছে, তিনি দেশে আসতে পারছেন না।
একমাত্র খালেদা জিয়ার মাধ্যমে দেশের পরিবর্তন সম্ভব। আমরা সব দল নিয়ে জাতীয় সরকার গঠন করবো।
কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও পুনর্বাসন সম্পাদক হাজী আমিন উর রশিদ ইয়াছিনের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থাযী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লা বুলু, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সহ সম্পাদক এবং সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা, কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়াসহ কুমিল্লা সাংগঠনিক বিভাগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ।
গণসমাবেশ পরিচালনা করেন কুমিল্লা মহানগর বিএনপির আহবায়ক উদবাতুল বারী আবু এবং সদস্য সচিব ইউসুফ মোল্লা টিপু। এ‌দি‌কে সমা‌বে‌শে বিএন‌পি থে‌কে ব‌হিস্কৃত সা‌বেক মেয়র ম‌নিরুল হক সাক্কু ,নিজাম উ‌দ্দিন কায়সার ও অব‌্যহ‌তি প্রাপ্ত আ‌মিরুজ্জামান আ‌মির তা‌দের অনুসারী নেতাকর্মী‌দের নি‌য়ে উপ‌স্থিত ছি‌লেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে আরিফুল  ইসলাম  (২৩) নামে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
শনিবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের বেলাল বাজার ছাইতুনতলা এলাকার একটি  আমবাগান থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে, পারিবারিক কলহের জের ধরে সে আত্নহত্যা করে থাকতে পারে। সে উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের বেলাল বাজার নামোটোলা গ্রামের চারুলের ছেলে।
স্থানীয় জানায়, পারিবারিক কলহের কারণে স্ত্রীর উপরে অভিমান করে আরিফুল বেলাল বাজার-আরগাড়াহাট সড়কের  পাশে ছাইতুনতলা নামক স্থানে পলাশের আম বাগানে  গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।
গোমস্তাপুর থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মাহবুবুর রহমান বলেন, ওই এলাকার একটি আমবাগানে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশের খবর পেয়ে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।
এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর (ইউডি) মামলা প্রক্রিয়াধিন বলে জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

শিবগঞ্জের চরাঞ্চলে আগুনে পুড়ল ৬ ঘর

 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে মশা তাড়ানোর আগুনে ৬টি ঘর ভষ্মিভূত হয়েছে। শনিবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের চরপাঁকা জামাইপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ক্ষতিগ্রস্থরা হলেন- উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের চরপাঁকা জামাইপাড়া গ্রামের মৃত ফরাস উদ্দিনের ছেলে আসলাম উদ্দিন ও শুকুদ্দির ছেলে শরিফ উদ্দিন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সন্ধ্যা পৌণে ৬টার দিকে উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের চরপাঁকা জামাইপাড়া গ্রামের আসলাম উদ্দিনের গোয়াল ঘরে মশা তাড়ানোর আগুন থেকে সূত্রপাত হলে পাশর্^বর্তী শরিফের বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় আসলামের তিনটি ঘর, আসবাবপত্র, ধান ও একটি ছাগলের মৃত্যু হয়। এতে তার পাঁচ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে দাবি শরিফের। এছাড়া শরিফের তিনটি ঘর, আসবাবপত্রসহ তিন লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।তবে দুগম চরাঞ্চল হওয়ায় এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা খারাপ হওয়ায় ফায়ার সাভিসের কোন দল ঘটনা স্থলে যেতে পারেনি। তবে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।
পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য রফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পদ্মার দূর্গম চরাঞ্চল হওয়ায় ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিস যাবার কোন সুযোগ নেই। আগুনে দুটি পরিবারের ৬টি ঘর ভষ্মিভূত হয়ে প্রায় ৯ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শিগগির ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের সহায়তা প্রদান করা হবে।

হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের চৌডালা ইউনিয়ন শাখা কমিটির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে চৌডালা ইউনিয়নের বাইস পুতুল মন্দির চত্বরে এই সম্মেলন হয়। সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রী দিলিপ রায়। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের গোমস্তাপুর উপজেলা সভাপতি শ্রী উঠান হালদার। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা সভাপতি শ্রী অর্জুন চৌধুরী। বক্তব্য রাখেন গোমস্তাপুর পুজা উদযাপন পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শ্রী ডলার সাহা, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর শাখার সম্পাদক শ্রী সোমিত চট্টপাধ্যায়, বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের জেলা কমিটির অন্যতম সদস্য শ্রী ভবসুন্দর পালসহ অন্যরা। এসময় স্থানীয় বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃস্টান ঐক্য পরিষদের বিভিন্নস্তরের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সম্মেলনে শ্রী মিলন হালদার কে সভাপতি এবং শ্রী সজিব ভুতি কে সাধারণ সম্পাদক করে ৩১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের হাতে আড়াই কেজি হেরোইন উদ্ধার-আটক ১

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ হেরোইন পাচারের গোপন সংবাদে অভিযান চালিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার কিচনী দোহা থেকে ২ কেজি ৪৫০ গ্রাম হেরোইনসহ ১জন মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব-৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা। আটক ব্যবসায়ী প্রশান্ত লাল চৌধুরী (২৫), চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের হুজরাপুর মহল্লার মৃত মন্টু লাল চৌধুরীর ছেলে। অভিযানে নেতৃত্ব দেন কোম্পানী অধিনায়ক লেঃ কমান্ডার রুহ-ফি-তাহমিন তৌকির এবং কোম্পানী উপ অধিনায়ক সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ আমিনুল ইসলাম। র‌্যাবের প্রেসনোটে জানানো হয়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল ২৫ নভেম্বর সাড়ে ৬টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার কিচনী দোহা এলাকায় পাঁকা রাস্তার উপর একটি মাদক বিরোধী অভিযান চালায়। এসময় ২ কেজি ৪৫০ গ্রাম হেরোইন, ১টি মোবাইল, নগদ-৩ হাজার টাকাসহ প্রশান্ত লাল চৌধুরী কে হাতেনাতে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

আর্জেন্টিনার বিদায়ের ছক কষছেন এক আর্জেন্টাইনই

সৌদি আরবের সঙ্গে হেরে এবারের বিশ্বকাপে টিকে থাকার সমীকরণটা কঠিন করে ফেলেছে আর্জেন্টিনা। শেষ ষোলোতে যেতে গ্রুপের বাকি দুই ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই মেসির দলের সামনে। এদিকে পোল্যান্ডের সঙ্গে ড্র করে খুব ভালোভাবেই বিশ্বকাপে টিকে আছে মেক্সিকো। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে আর্জেন্টিনাকে থামানোর ছক কষছেন একজন আর্জেন্টাইনই। তার নাম জেরার্দো দানিয়েল মার্তিনো, সবাই চেনে টাটা মার্তিনো নামে।

দীর্ঘ সময় পর আবার দেখা হয়ে যাচ্ছে সাবেক গুরু-শিষ্যের। তবে এবার একে অপরের প্রতিপক্ষ। পঞ্চম বিশ্বকাপ খেলা মেসির জন্য এটিই বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার শেষ সুযোগ। সেই আশা বাঁচিয়ে রাখতে হলে তার দলকে সবার আগে পার করতে হবে মেক্সিকোর বাধা। মেসিদের জন্য কাজটা কঠিন করে তোলার ছক কষছেন মার্তিনো।

বার্সেলোনা এবং আর্জেন্টিনার কোচের দায়িত্ব পালন করার সময় মেসিকে কাছ থেকে দেখেছেন মার্তিনো। মেসির সম্পর্কে অনেক কিছুই জানা আছে তার। সৌদি আরবের কাছে অপ্রত্যাশিত হার বড় ধাক্কা দিয়েছে মেসিকে। সেই ম্যাচে আগে গোল করেও ফল নিজেদের পক্ষে আনতে পারেনি আর্জেন্টিনা। ম্যাচে মেসিও যেন নিজের ছায়ায় ঢাকা পড়ে ছিলেন। প্রতি ম্যাচে মেসি এমন ম্লান থাকবেন না, তা ভালোই জানা আছে মার্তিনোর।

নিজের দিনে মেসিকে থামানো কতটা কঠিন, তা নিয়ে মেক্সিকোর কোচ বলেছেন, ‘যারা লিওনেল মেসির মুখোমুখি হয়েছে তারা ঠিক একই কথা বলবে, আমরা তাকে থামাতে পারব কি-না। তাকে থামাতে আমরা আসলে কতটা কী করতে পারব, তার চেয়ে বিষয়টি অনেক বেশি নির্ভর করে যে দিনটা তার খারাপ যাবে কি-না। ’

প্রথম ম্যাচের হার নিশ্চিতভাবে মেসিকে অনেক বেশি তাতিয়ে রাখবে। এই ম্যাচে ভয়ংকর মেসিকে দেখার প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছেন উল্লেখ করে মার্তিনো আরও বলেছেন, ‘মেসি তার সেরা ছন্দে থাকবে, এটা বিবেচনায় নিয়েই আমাদের প্রস্তুতি নিতে হবে। আমাদের কখনো এটা ভাবা উচিত না যে সে তার সেরা ছন্দে থাকবে না। কারণ, পুরো ৯০ মিনিট ছন্দে না থেকেও মাত্র ৫ মিনিটের খেলায় ম্যাচ শেষ করে দেওয়া যায়। আপনাকে তাই ম্যাচের পুরোটা সময় খুবই মনোযোগী থাকতে হবে এবং তার ওপর চোখ রাখতে হবে। ’

নিজের জন্মভূমির বিপক্ষে ম্যাচ, এখানে আবেগের কোনও স্থান আছে কিনা? ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে মার্তিনোর কাছে জানতে চাওয়া হয়, স্বদেশের একজন গ্রেটের বিশ্বকাপ স্বপ্ন ভেঙ্গে দেয়ার ছক কষতে কোনও কষ্ট হচ্ছে কিনা? প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেনছেন, মেক্সিকোর জয়ই তার একমাত্র লক্ষ।

‘মেক্সিকোকে জিততেই হবে, মেক্সিকোর জয়ের জন্য আমরা সবকিছু করব। এছাড়া অন্য কোনো উত্তর নেই। জানি, আমি কোথায় জন্মগ্রহণ করেছি। আমি বলতে পারি, কোন হাসপাতালে জন্মগ্রহণ করেছি, কোন বছর জন্মগ্রহণ করেছি, আর্জেন্টিনায় আমার শহরের বর্ণনা দিতে পারি। তবে মেক্সিকোর জয়ের জন্য আমাকে সবকিছুই করতে হবে। আমি অন্য কিছু করতে পারি না। ’

যদিও পরিসংখ্যান আর্জেন্টিনার পক্ষে। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপে কখনোই মেক্সিকোর বিপক্ষে হারেনি তারা। এমন পরিসংখ্যান নিয়েই আজ (২৬ নভেম্বর) শনিবার বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ১টায় মেক্সিকোর বিপক্ষে ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে নামবে শিরোপা প্রত্যাশী দলটি। জয় তুলে নিতে না পারলে মেসিদের ধরতে হবে দেশের ফ্লাইট! আর্জেন্টিনাকে অবশ্য বুয়েন্স আইরেসের ফ্লাইট ধরিয়ে দিতে বদ্ধ পরিকর আরেক আর্জেন্টাইন। মেক্সিকোর কোচ টাটা মার্তিনো।

ক্যান্সার সচেতনতায় নগ্ন ফটোশুট!

স্কিন ক্যান্সার সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য অস্ট্রেলিয়ার সৈকতে নগ্ন হয়ে ছবি তুলেছেন হাজার হাজার নারী-পুরুষ।

স্থানীয় সময় শনিবার (২৬ নভেম্বর) সকালে সিডনির বন্ডি সৈকতে ওই সচেতনতামূলক ফটোশুটে অংশ নেন প্রায় আড়াই হাজার স্বেচ্ছাসেবী। যাদের ছবি তোলেন যুক্তরাষ্ট্রের ফটোগ্রাফিক শিল্পী স্পেন্সার টিউনিক।

এটা টিউনিকের সর্বশেষ প্রকল্প, যার লক্ষ্য অস্ট্রেলিয়ানদের নিয়মিত ত্বক পরীক্ষা করতে উৎসাহিত করা।

ওয়ার্ল্ড ক্যান্সার রিসার্চ ফান্ড বলছে, অস্ট্রেলিয়াই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি ত্বকের ক্যান্সারে আক্রান্ত দেশ।

ফেডারেল সরকার অনুমান করে যে, এই বছর অস্ট্রেলিয়ায় ত্বকের ক্যান্সারে ১৭ হাজার ৭৫৬ জন আক্রান্ত শনাক্ত হবে এবং ১,২৮১ জনের মৃত্যু হতে পারে।

তাইতো এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে এদিন স্থানীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টা থেকে স্বেচ্ছাসেবকরা সৈকতে জড়ো হতে থাকেন।

ফটোশুটের বিষয়ে টিউনিক বলেন, আমাদের ত্বকের পরীক্ষা সম্পর্কে সচেতনতা বাড়ানোর ভালো সুযোগ আছে এবং আমি সম্মানিত… এখানে এসে, একটা শিল্প তৈরি করতে এবং শুধুমাত্র শরীর এবং সুরক্ষা উদযাপন করতে পেরে।

রবিন লিন্ডনার নামে এক অংশগ্রহণকারী বলেন, আমি এই ফটোশুট করার জন্য স্নায়ুবিক বাঁধাকে কাটিয়ে উঠেছি। আয়োজকরা বলেছেন, এখানে ২,৫০০ মানুষ অংশ নিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমি মনে মনে আতঙ্কিত ছিলাম। কিন্তু এটি দুর্দান্ত ছিল। প্রত্যেকেই সত্যিই শ্রদ্ধাশীল ছিলেন। এটি
সত্যিই মজার অনুভূতি।

৭৭ বছর বয়সী ব্রুস ফিশার বলেন, আমি আমার অর্ধেক জীবন সূর্যের আলোতে কাটিয়েছি এবং আমার পিঠ থেকে কয়েকটি ম্যালিগন্যান্ট মেলানোমাস বের করে নেয়া হয়েছে।

টিউনিক সর্বশেষ ২০১০ সালে সিডনিতে একটি গণশুট পরিচালনা করেন। সিডনি অপেরা হাউজের সেই ফটোশুটে ৫,২০০ অস্ট্রেলিয়ান নগ্ন হয়ে পোজ দিয়েছিলেন।

নিষিদ্ধ হতে পারেন রাশমিকা মান্দানা!

 

বিনোদন ডেস্ক

দক্ষিণী সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি জয় করে এবার বলিউডে নিজের অবস্থান পোক্ত করছেন অভিনেত্রী রাশমিকা মান্দানা। অথচ এর মধ্যেই একের পর এক জটিলতায় পড়ছেন তিনি। শোনা যাচ্ছে, যেই কন্নড় ইন্ডাস্ট্রি থেকে তিনি উঠে এসেছেন, সেখানেই তাকে নিষিদ্ধ করা হচ্ছে!

কয়েকদিন আগেই নেট দুনিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন রাশমিকা। উপায় না দেখে দীর্ঘ স্ট্যাটাসে নিজের ভাবনার কথা জানান। ধারণা করা হয়ছিলো, তার এমন উপলব্ধি আর নমনীয় বক্তব্যের পর সমালোচনার ঝড় থামবে। কিন্তু ফের নিজেরই কারণে বিপাকে পড়লেন এ অভিনেত্রী।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে নিজের সিনে ক্যারিয়ারের প্রথম দিকের গল্প শেয়ার করেন রাশমিকা। কন্নড় সিনেমা ‘কিরিক পার্টি’ দিয়ে অভিষেক হয়েছিলো তার। ছবিটির নাম বললেও সাক্ষাৎকারে তিনি ইচ্ছেকৃতভাবে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নাম এড়িয়ে যান। যেটার নাম পারামাভ স্টুডিওস, এটির কর্ণধার রক্ষিত শেঠি, যিনি ‘কিরিক পার্টি’তে রাশমিকার নায়ক ছিলেন। শুধু তাই নয়, রাশমিকার সঙ্গে তার প্রেম ছিলো, এমনকি তারা বিয়ের জন্য বাগদানও করেছিলেন! কিন্তু কোনও কারণে সেই সম্পর্কে ইতি ঘটে।সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে রক্ষিত শেঠি ও তার প্রতিষ্ঠানের নাম এড়িয়ে যাওয়ার কারণেই তোপের মুখে পড়েছেন রাশমিকা। নেটিজেনদের কটাক্ষের মাঝে একটি টুইট ছড়িয়ে পড়েছে, যেখানে বলা হয়েছে শিগগিরই কন্নড় সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি থেকে রাশমিকাকে নিষিদ্ধ করা হতে পারে। ‘কৃতজ্ঞতাবোধের অভাব’র কারণে তাকে, এমনকি তার অন্য ভাষার সিনেমাও কর্ণাটকে নিষিদ্ধ করা হতে পারে। যদিও এ বিষয়ে এখনও কোনও অফিসিয়াল ঘোষণা আসেনি।

যদি এমনটা সত্যি হয়, তাহলে দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রির বড় আয়োজনের দুটি সিনেমা বিপাকে পড়বে। এগুলো হলো আল্লু অর্জুন অভিনীত ‘পুষ্পা ২’ এবং থালাপতি বিজয়ের ‘ভারিসু’। দুটি সিনেমায় নায়িকা হিসেবে আছেন রাশমিকা। এদিকে রাশমিকার হাতে বর্তমানে দুটি হিন্দি সিনেমার কাজও রয়েছে। এগুলো হলো ‘মিশন মজনু’ ও ‘অ্যানিমেল’।

‘উন্নয়ন না দেখলে চোখের ডাক্তার দেখান’

ঢাকা: সরকারের উন্নয়ন না দেখলে চোখের ডাক্তার দেখাতে পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

শনিবার (২৬ নভেম্বর) সকালে চট্টগ্রামের কর্ণফুলি নদীর তলদেশে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল’র দক্ষিণ টিউবের পূর্ত কাজের সমাপ্তি উদযাপন অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সে অনুষ্ঠানে যোগ দেন সরকার প্রধান।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের উন্নয়ন অনেকের চোখে পড়ে না। তাদের হয় চোখ নষ্ট। যদি চোখ নষ্ট হয় চোখের ডাক্তার দেখাতে পারে। আমরা একটা খুব ভালো আই ইনিস্টিটিউট করে দিয়েছি। সেখানে চোখ দেখালে আমার মনে হয় হয়তো তারা (উন্নয়ন) দেখতে পারবে। আর কেউ যদি চোখ থাকতে অন্ধ হয় তাহলে আমাদের কিছু করার নাই। ’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি মনে করি আমাদের অপজিশনের কিছু লোক আছে যারা চোখ থাকতে অন্ধ। তারা দেখেও না দেখার ভান করে। তারা নিজেরা কিছু করতে পারে না। ভবিষ্যতেও কিছু করতে পারবে না। দেশকে কিছু দিতেও পারবে না। ’

আ.লীগ সভাপতি আরও বলেন, ‘ক্ষমতায় বসে নিজেরা খেতে পারবে, অর্থ চোরাচালান করতে পারবে, ওই ১০ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালানি করতে পারবে। ও রকম অস্ত্র অর্থ চোরাচালানি, অর্থ আর্থসাৎ এগুলো পারবে। তারা মানুষের কল্যাণে কাজ করেনি, ভবিষ্যতেও করতে পারবে না; এটা হলো বাস্তবতা। ’

বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে জাতিসংঘ ঘোষিত যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা সেটাও কিন্তু আমরা বাস্তবায়ন করছি। তাছাড়া আমরা ২০১০ থেকে ২০২০ প্রেক্ষিত পরিকল্পনা প্রণয়ন করে সেটা আমরা বাস্তবায়ন করেছি। ২০২১ থেকে ২০৪১ এর মধ্যে বাংলাদেশ হবে উন্নত-সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ। এই উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গড়া সেই পরিকল্পনা, প্রেক্ষিত পরিকল্পনা করে পঞ্চবার্ষিকীর মাধ্যমে সেটা আমরা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। ইনশাল্লাহ বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা আর কেউ থামাতে পারবে না। ’

কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মাণ কাজে সন্তোষ প্রকাশ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে সত্যিই একটা দিন আমি অত্যন্ত আন্দন্দিত যে যেটা আমরা শুরু করেছিলাম আজকে সেই কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের দক্ষিণ টিউব এই দক্ষিণ টিউবের পূর্ত কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এই কাজ সম্পন্ন করারই উৎসব উদযাপন আমরা করছি। আর কিছুদিন পরে দ্বিতীয় টিউবের কাজ যখন সম্পন্ন হবে পুরো টানেলটা আমরা উদ্বোধন করবো। ’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চট্টগ্রামকে আমরা বাণিজ্য রাজধানী বলে ডাকতাম। সেই চট্টগ্রামের উন্নয়নে আমরা ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নেই। দুর্ভাগ্যের বিষয় পঁচাত্তরের পরে যারা ক্ষমতাসীন তারা চট্টগ্রামে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অফিস ঢাকায় নিয়ে চলে আসে। চট্টগ্রাম প্রায় অবহেলিত অবস্থায় ছিল। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর আবার সেই চট্টগ্রামকে নতুনভাবে গড়ে তোলে এবং তার গুরুত্ব বৃদ্ধি করে। ’

তিনি বলেন, ‘আজকে অন্তত এটুকু দাবি করতে পারি, আজকের বাংলাদেশ বদলে যাওয়া বাংলাদেশ। স্বাধীন বাংলাদেশ। জাতির পিতা যেভাবে চেয়েছিলেন, আমরা সেভাবে যাত্রা শুরু করেছি। দারিদ্র্যের হার আমরা কমিয়ে এনেছি। আমি বিশ্বাস করি, এ দেশ আর দরিদ্র থাকবে না। আমরা দারিদ্র্য দূর করতে সক্ষম হয়েছি। এখন আর খাবারের জন্য হাহাকার করতে হয় না। ’

খাদ্য উৎপাদন বাড়ানোর পাশাপাশি সবাইকে মিতব্যয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে কারো যেন এক ইঞ্চি জমি অনাবাদি না থাকে। নিজেদের খাদ্য নিজেরা উৎপাদন করব। কারো কাছে আমরা হাত পেতে চলব না। সেই নীতি নিয়ে সবাইকে চলার জন্য আমি আহ্বান জানাচ্ছি। মিতব্যয়ী হতে হবে। ’

২০১৬ সালের ১৪ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং যৌথভাবে কর্ণফুলী টানেলের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ২০১৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রথম টানেল টিউবের বোরিং কাজের উদ্বোধন করেন এবং ২০২০ সালের ১২ ডিসেম্বর সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দ্বিতীয় টিউবের বোরিং কাজের উদ্বোধন করেন।

টানেলটি চট্টগ্রামের পতেঙ্গার নেভাল একাডেমি প্রান্ত থেকে শুরু করে চট্টগ্রাম ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেড এবং আনোয়ারায় কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার লিমিটেড কারখানার মধ্যে নদীর তলদেশে সংযোগ স্থাপন করছে।

মূল টানেলের দৈর্ঘ্য ৩.৩২ কিমি এবং এতে দুটি টিউব রয়েছে। প্রতিটিতে দুটি লেন রয়েছে। এই দুটি টিউব তিনটি জংশনের (ক্রস প্যাসেজ) মাধ্যমে সংযুক্ত করা হবে। এই ক্রস প্যাসেজগুলি জরুরি পরিস্থিতিতে অন্যান্য টিউবগুলিতে যাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হবে। টানেল টিউবের দৈর্ঘ্য ২.৪৫ কিমি এবং ভেতরের ব্যাস ১০.৮০ মিটার।

মূল টানেলের পশ্চিম এবং পূর্ব দিকে একটি ৫.৩৫ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক রয়েছে।

বাংলাদেশ ও চীন সরকারের যৌথ অর্থায়নে টানেল প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পটির মোট ব্যয় প্রায় ১০ হাজার ৫৩৭ কোটি টাকা। চীনের এক্সিম ব্যাংক ৫ হাজার ৯১৩ কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে এবং বাকি অর্থ দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন গণভবন প্রান্ত থেকে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ও চট্টগ্রামের পতেঙ্গা প্রান্ত থেকে সেতু বিভাগের সচিব মো. মনজুর হোসেন,বাংলাদেশে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং ।