সর্বশেষ সংবাদ শিবগঞ্জে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা পেলেন অসহায়-দুস্থ রোগীরা সোনামসজিদে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন জাহাঙ্গীরের সমাধিতে শ্রদ্ধা চাঁপাইনবাবগঞ্জে আমার ৯৩, এর ৮ ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী  পালিত  গোমস্তাপুরে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন  চাঁপাইনবাবগঞ্জে ব্যারিষ্টার সুমন ফুটবল একাডেমির সাথে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভুটভুটির ধাক্কায় নিহত ১ঃ আহত ১ চাঁপাইনবাবগঞ্জে জয়ীতাদের সংবর্ধনা চাঁপাইনবাবগঞ্জে দূর্ণীতিবিরোধী দিবস পালিত নাচোলে বেগম রোকেয়া দিবসে জয়িতাদের সংবর্ধনা উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে চাই: প্রধানমন্ত্রী

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক মামলায় যাবজ্জীবন

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ:
চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের একটি মামলায় সবুর (২৩) নামে একজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। একইসাথে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে অনাদায়ে ৩ মাস কারাদন্ডের আদেশ দেয়া হয়। সোমবার (২১ নভেম্বর) অতিরিক্ত দায়রা জজ রবিউল ইসলাম দন্ডিতের অনুপস্থিতিতে রায় ঘোঘণা করেন। সবুর শিবগঞ্জ উপজেলার জমিনপুর গ্রামের মৃত ময়মুর রহমানের ছেলে। মামলার আওেশ আসামী শিবগঞ্জের কিরণগঞ্জ গ্রামের মোজাফফর আলীর ছেলে মন্টুকে খালাস দিয়েছে আদালত।
অতিরিক্ত পিপি রবিউল ইসলাম রবু বলেন,২০১৭ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারী শিবগঞ্জের কানসাট পখুরিয়া এলাকার একটি আমবাগানে পুলিশ অভিযানে একশত(১০০) গ্রাম হেরোইনসহ আটক হয় সবুর। এ ব্যাপারে একইদিন মামলা করেন শিবগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক জাফর ইকবাল। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শিবগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক শহীদুল ইসলাম ২০১৭ সালের ৩১ মার্চ আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন।

এিমহনী বাজারে মনবতার দেওয়াল উদ্বোধন।

শিবগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলায় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গৌড় শিবগঞ্জ ম্যাংগো সিটি গ্রুপের উদ্যোগে এিমহনী বাজারে শীতার্ত মানুষের জন্য “মানবতার দেয়াল” বিনামূল্যে শীতার্ত মানুষদের শীতবস্তুের উদ্বোধন করেন। গৌড় শিবগঞ্জ ম্যাংগো সিটি নির্বাহী পরিচালক আলমগীর জয়’র সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্হিত ছিলেন চাতরা ইসলামি কালচারাল ইনস্টিটিউট ফাজিল মাদ্রাসার ভাইস পেন্সিপাল আব্দুস শুকুর, বিশেষ অতিথি ছিলেন চার নং মোবারকপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের সদ্যস মোহাঃ বাবুল আলি। সিনিয়র এডমিন মোঃ মোস্তফা আলী, শাকিম খান, মডারেটর মোহাম্মদ আলী, মোঃ সোহেল, বিশিষ্ট ওষুধ ব্যবসায়ী শ্রী ডালিম কুমার আরো উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন পেশার সাধারণ মানুষ জন। উক্ত আয়োজন আব্দুস শুকুর বলেনঃ আমি এই রকম মানবিক ভালো কাজের পাশে আছি। এবং গৌড় শিবগঞ্জ ম্যাংগো সিটিকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। মানবতার এই দেয়ালের প্রধান পৃষ্ঠপোষক আলমগীর জয় বলেন, এটি কোন সাধারণ দেয়াল নয় এটি একটি মানবতার দেয়াল এখানে শুধু মাত্র একটি দেওয়ালি না থাকবে মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র যাদের অতিরিক্ত জিনিসপত্র থাকবে তারা এখানে রেখে যাবেন। আর যাদের প্রয়োজন হবে তারা এখান থেকে নিয়ে যাবেন তিনি এই দেয়ালে এলাকার সকল বিত্তবানদের কে সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়েছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ককটেল হামলার ঘটনায় বিএনপি ও ছাত্রদলের ৮০ নেতাকর্মীর নামে মামলা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ
চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে ককটেল হামলায় আহত দুই পুলিশ সদস্যের ঘটনায় বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের নামে মামলা হয়েছে নাচোল থানায়। বিএনপি ও ছাত্রদলের ১৮জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ সহ আরো পলাতক অজ্ঞাতনামা প্রায় ৭০থেকে ৮০জনের নামে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। রোববার রাতে নাচোল থানার এসআই আকবর হোসেন বাদী হয়ে এই মামলা দ্বায়ের করে। এই মামলায় উপজেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য সচিব আবু তাহের খোকন,জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি হাসান ইমতিয়াজ ও ছাত্রদল কর্মী রোমিও কে প্রধান আসামি করা হয়েছে।
নাচোল থানা পুলিশ সুত্রে জানা যায়,গত রবিবার বিকেলে পুলিশের কোন অনুমতি ছাড়াই ছাত্রদল নেতাকর্মীরা পৌর এলাকার শ্রীরামপুর অক্সফোর্ড একাডেমি নামক চত্বরে কর্মী সভার আয়োজন করছিল।এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়া মাত্রই পুলিশকে লক্ষ্য করে একটি ককটেল চালালে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।এ সময় ৫ টি মজুদকৃত অবিস্ফোরিত ককটেল জব্দ করে পুলিশ।সেসময় ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের হামলায় নাচোল থানায় কর্মরত সিপাহী আলমগীর হোসেন ও  পলাশ আহত হয়।
নাচোল থানার ওসি মিন্টু রহমান জানান, ককটেল বিস্ফারণ ও পুলিশ সদস্যদের উপর হামলার ঘটনায় বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের নামীয় সহ অজ্ঞাতনামা প্রায় ৮০জনের নামে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।আসামিদের ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।ওসি আরো বলেন,নাচোল একটি শান্তিপ্রিয় জায়গা।নাচোল কে কেউ অশান্ত করতে চাইলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে।

গোমস্তাপুরে এ্যান্টিবায়টিকের অপব্যবহার রোধে সচেতনতা মূলক সভা

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে বিশ্ব এন্টি মাইক্রোবিয়াল সচেতনতা সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে এ্যান্টিবায়টিকের অপব্যবহার রোধে সোমবার সচেতনতা মূলক সভা ও র্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোঃ আব্দুল হামিদ। বক্তব্য রাখেন ডা. মোসা. ইসরাত- ই- নূরীন,ডা. মুহা. খালিদুর রহমান,ডা. মোঃ ইসমাইল হোসেন ও ডা. শারমিন আকতার। সভায় রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতিত এন্টিবায়োটিক ঔষুধ গ্ৰহন না করার পরামর্শ দেয়া হয়। এছাড়া জনগণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টিতে রহনপুর পৌর এলাকায় মাইকিং করা হবে বলে সভায় জানান হয়।

গোমস্তাপুরে নানা অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে বিজ্ঞান মেলা শুরু

গোমস্তাপুর প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে নানা অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে ২দিন ব্যাপী ৪৪ তম জাতীয় বিজ্ঞান মেলা সোমবার শুরু হয়েছে।উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এ মেলার উদ্বোধন করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা । মেলায় অংশ নেয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর অভিযোগ, আয়োজকরা তড়িঘড়ি করে নানা অব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে মেলা শুরু করেছে। বিশেষ করে অপ্রসস্থ স্থানে মেলার আয়োজন করায় স্টলগুলো প্রদর্শনে দর্শনার্থীদের সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে মেলার আয়োজক উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা আসমা খাতুন জানান,সময় স্বল্পতা এবং উপজেলা চত্বরে নির্মাণ কাজ চলমান থাকায় জায়গা সংকটের কারনে ছোট পরিসরে বিজ্ঞান মেলা আয়োজন করতে হয়েছে।

নাচোলে সম্প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত।

নাচোল প্রতিনিধি ঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচলে সম্প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্টের  অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 আজ বিকেল তিনটায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মাঠে সম্প্রীতি ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়েছে। খেলায় অংশগ্রহণ করেন উপজেলা প্রশাসন একাদশ বনাম নাচোল উপজেলা শিক্ষক একাদশ। খেলায় উপজেলা প্রশাসন একাদশ, ৩-০, গোলে উপজেলা শিক্ষক একাদশকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয়। খেলায় ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হন মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু হাসান। খেলা শেষে  আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাইমেনা শারমীনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের।  সম্মানিত অতিথির বক্তব্য রাখেন মহাদেবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু হাসান। বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন সহকারী কমিশনার ভূমি মিথিলা দাস, নাচোল পৌরসভার মেয়র আব্দুর রশিদ খান ঝালু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মশিউর রহমান বাবু,নাচোল মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ওবাইদুর রহমান, সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আলী হোসেন শামীম,মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আবুল কাশেম ওবায়েদ, সহকারি মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দুলাল উদ্দিন খান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মৃনাল কান্তি সরকার। এছাড়া  উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষক মন্ডলী, মিডিয়া কর্মী ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। খেলা শেষে বিজয়ী ও বিজিত দলের হাতে অতিথিবৃন্দ ট্রফি তুলে দেন।

ফের বিদ্যুতের দাম বাড়ছে

বিদ্যুতের দাম ফের বাড়ছে। দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে মানুষ যখন দিশেহারা, ঠিক সেই মুহূর্তে দাম বাড়ানো হচ্ছে। আজ সোমবার পাইকারি দাম বাড়ানোর ঘোষণা দিতে যাচ্ছে এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। এদিকে গ্রাহক পর্যায়ে দাম বাড়ানোর লক্ষ্যে প্রস্তাব তৈরি করছে বিতরণ কোম্পানিগুলো। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, বিদ্যুতের দাম বাড়লে পণ্যমূল্য আরও বেড়ে যাবে এবং জনগণের জীবনে দুর্গতি নেমে আসবে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ঋণ পাওয়ার অন্যতম শর্ত হচ্ছে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে ভর্তুকি কমানো। সে প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হচ্ছে বলে সূত্র জানিয়েছে। ৩৮ দিন আগে এ ধরনের প্রস্তাব নাকচ করেছিল বিইআরসি। সে সময় দেশের বিদ্যুৎ পরিস্থিতি ভালো না থাকায় এবং দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে সরকারের ওপর মহল আগ্রহ না দেখানোয় দাম বাড়েনি। এখন বিদ্যুতের লোডশেডিং নেই। পাশাপাশি আইএমএফের চাপ রয়েছে। তাই দাম বাড়ানো হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৫ থেকে ২০ শতাংশ বাড়তে পারে।

বিদ্যুতের দাম বাড়লে সব ধরনের পণ্যের দাম আরেক দফা বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এর আগে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোয় পণ্যমূল্য দফায় দফায় বেড়েছে। এতে খেটে খাওয়া মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। জ্বালানি সংকটের কারণে কলকারখানায়ও উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এ পরিস্থিতিতে বিদ্যুতের দাম বাড়লে কৃষি ও কলকারখানায় উৎপাদনে বিরূপ প্রভাব পড়বে। এতে টালমাটাল হতে পারে গোটা বাজার ব্যবস্থা।

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) গত ১২ জানুয়ারি বিদ্যুতের পাইকারি দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেয়। প্রতিষ্ঠানটি প্রায় ৬৬ শতাংশ দাম বাড়ানোর আবেদন করে। ১৮ মে তাদের প্রস্তাবের ওপর গণশুনানি হয়। শুনানিতে বিইআরসির কারিগরি কমিটি ৫৮ শতাংশ দাম বাড়ানোর সুপারিশ করে। প্রায় ৫ মাস পর গত ১৩ অক্টোবর এক ঘোষণায় বিইআরসি জানায়, সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় ও যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারায় পিডিবির আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।

গত ২ নভেম্বর পিডিবি ও বিদ্যুৎ বিভাগ এবং ৬ নভেম্বর বিইআরসির সঙ্গে বৈঠক করে ঢাকা সফরকারী আইএমএফ প্রতিনিধি দল। এ সময় বিদ্যুতের দাম, ভর্তুকি ও পিডিবির লোকসান নিয়ে আলোচনা হয়। এর পর কমিশনের আদেশ পুনর্বিবেচনার আবেদন করে পিডিবি। সংস্থাটির আবেদন বিবেচনায় নিয়ে নতুন আদেশ দিতে যাচ্ছে কমিশন। এ বিষয়ে বিইআরসি সদস্য (বিদ্যুৎ) বজলুর রহমান বলেন, যেসব ঘাটতির কারণে পিডিবির প্রস্তাব নাকচ হয়েছিল, সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যাখ্যা ও তথ্য-উপাত্ত সরবরাহ করেছে পিডিবি। তিনি বলেন, বিদ্যুতের দাম বাড়ছে। কতটুকু বাড়ছে- এ প্রশ্নে তিনি বলেন, পিডিবি যতটুকু চেয়েছে তত বাড়বে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, পাইকারি পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম ১৫ থেকে ২০ শতাংশ বাড়তে পারে চলতি অর্থবছরের জন্য বিদ্যুৎ খাতে ১৭ হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি বিবেচনা করে। কনজুমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, গণশুনানি ছাড়া বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর আদেশ আইনসম্মত হবে না। তবে এ বিষয়ে বজলুর রহমান বলেন, শুনানি করেই তো আদেশ দেওয়া হয়েছিল। সে আদেশের ওপর আপিল করেছে পিডিবি। তাই শুনানির প্রয়োজন নেই।

বাড়বে খুচরা মূল্যও: পাইকারি দাম বাড়ানো হচ্ছে- এমন খবরে বিতরণ কোম্পানিগুলোও গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর আবেদন তৈরি করছে। পাইকারি বিদ্যুতের দর কতটুকু বাড়বে, তা ধরেই গ্রাহক পর্যায়ে মূল্য বাড়ানোর প্রস্তাব দেবে ৬ বিতরণ কোম্পানি। এসব প্রস্তাবের ওপর শুনানি করে নতুন মূল্য ঘোষণা করবে বিইআরসি।

ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (ডিপিডিসি) ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকাশ দেওয়ান বলেন, পাইকারি মূল্য যে হারে বাড়বে, সে অনুসারে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হবে। এ বিষয়ে কাজ চলছে। ঢাকা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি (ডেসকো), নর্দান ইলেকট্রিক সাপ্লাই কোম্পানি এবং ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ওজোপাডিকো) জানিয়েছে, তারা প্রস্তাব তৈরি করছে।

এদিকে ব্যবসায়ীরা বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর বিরোধিতা করে বলেছেন, জ্বালানি সংকটে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এর মধ্যে বিদ্যুতের দাম বাড়লে কারখানা চালানোই মুশকিল হবে। অর্থনীতিবিদ ড. এ.বি. মির্জ্জা মো. আজিজুল ইসলাম সমকালকে বলেন, দ্রব্যমূল্য নাগালের বাইরে। এর মধ্যে বিদ্যুতের দাম বাড়লে পণ্যমূল্য আরও বেড়ে যাবে। জনগণের খরচ বাড়বে। শিল্প-কারখানার উৎপাদন ব্যয় বাড়বে। মূল্যস্ফীতি বেড়ে যাবে।

লোকসান বাড়ছে পিডিবির: বিইআরসি সর্বশেষ ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বিদ্যুতের পাইকারি দর ইউনিটপ্রতি ৫ টাকা ১৭ পয়সা নির্ধারণ করে। বর্তমানে প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদনে পিডিবির ১৪-১৫ টাকা খরচ হচ্ছে। তাই দিন দিন লোকসান বাড়ছে। পিডিবি জানিয়েছে, ২০২০-২১ অর্থবছরে তাদের লোকসান ছিল ১১ হাজার ৫০৯ কোটি টাকা। জ্বালানির দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে ২০২১-২২ অর্থবছরে আর্থিক ক্ষতি ৩১ হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যায়। চলতি অর্থবছরে (২০২২-২৩) প্রায় ৫২ হাজার কোটি টাকা লোকসান হতে পারে বলে মনে করছে সংস্থাটি। এর মধ্যে অর্থবছরের প্রথম দুই মাসেই লোকসান হয়েছে আট হাজার ৮৮৪ কোটি টাকা। অর্থ বিভাগ ভর্তুকির অর্থ ছাড় না করায় বেসরাকরি বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্রায় ৫ মাসের বিল বকেয়া পড়েছে। গত মে থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রেন্টাল-কুইক রেন্টাল ও আইপিপিগুলো পিডিবির কাছে ৩৩ হাজার ৩৩৫ কোটি টাকা পাবে।

বিশ্বকাপ: ‘নিয়ম ভেঙে’ হারলো কাতার: আজকের খেলায় যারা অংশ নিবে

রঙিন এক মঞ্চ তাদের জন্য তৈরি ছিল। গ্যালারিভর্তি প্রায় ৬০ হাজার দর্শক, বেশির ভাগেরই সমর্থন মিলেছিল। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলার স্মৃতিটুকু অবশ্য রাঙাতে পারলো না কাতার। প্রথমার্ধে খেই হারানোর পর খেয়েছিল দুই গোল, সেটা আর শোধ দেওয়া যায়নি শেষ অবধি।

রোববার রাতে আল রায়ত স্টেডিয়ামে ইকুয়েডরের কাছে কাতার হেরেছে ২-০ গোলে। এই হারে একটি নিয়মও মেনে চলতে ব্যর্থ হলো কাতার। ২০০৬ সাল থেকে শুরু হওয়ার পর গত চার আসরে উদ্বোধনী ম্যাচ হারেনি স্বাগতিকরা, একরকম নিয়মই হয়ে দাঁড়িয়েছিল এটি। এবার কাতার অবশ্য হারের তিক্ত স্বাদ পেলো প্রথম ম্যাচেই। ।

ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই উল্লাসে ফেটে পড়ে ইকুয়েডর শিবির। গোল করে ফেলেন তাদের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ফুটবলার ইনার ভ্যালেন্সিয়া। কিন্তু তাদের উৎসব একটু পরই হয়ে যায় বিষাদ। এই বিশ্বকাপে নতুন করে আসা ‘সেমি অটোমেটেড অফসাইড’ প্রযুক্তিতে বাতিল হয়ে যায় গোলটি।

তবে ওই ব্যথা ভুলে দাপট দেখিয়ে খেলতে থাকে ইকুয়েডর। ফলও ধরা দেয় তাদের হাতের মুঠোয়। ১৫তম মিনিটে এসে বল নিয়ে স্বাগতিকদের বক্সের ভেতর ঢুকে যান ভ্যালেন্সিয়া। এসময় তার পায়ে হাত লাগান কাতারের গোলরক্ষক সাদ আল সাহাব। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি, সঙ্গে দেখান হলুদ কার্ড। স্পট কিক থেকে গোল করতে ভুল করেননি ভ্যালেন্সিয়া।

এরপর দ্বিতীয় গোলের দেখা ৩১তম মিনিটে এসে পায় ইকুয়েডর। এবারও তাদের হয়ে গোল করেন ভ্যালেন্সিয়া। সাইকাদোর বাড়ানো দারুণ ক্রসে অসাধারণ হেডে জালে জড়ান বল। ম্যাচ যেন পুরোপুরি নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় তারা।

প্রথমার্ধের শেষদিকে একটি গোল শোধ দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করেছিল কাতার। কিন্তু বক্সে দারুণ এক ক্রস পেয়েও মাথা ছুঁয়াতে ব্যর্থ হন আল মোয়েজ। তার সামনে মোটামুটি ফাঁকা নেটই ছিল। কেবল ঠিকঠাক মাথাটা ছুঁয়াতে পারলেই গোল হতো।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে ইকুয়েডর নিজেদের লিড ধরে রাখার দিকেই মনোযোগ দেয় বেশি। কাতারও পারেনি সেরাটা খেলে ম্যাচ বের করতে। ৫৫ মিনিটে দারুণ একটি সেভ করেন প্রথম অর্ধে বাজে পারফর্ম করা কাতার গোলরক্ষক আল সাহাবা। পরে এক-দুটি সুযোগ পেলেও কাতার কাজে লাগাতে পারেনি। জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে তারা।

আজকের বিশ্বকাপে খেলা:

ফুটবল
কাতার বিশ্বকাপ
ইংল্যান্ড-ইরান
সরাসরি, সন্ধ্যা ৭টা
সেনেগাল-নেদারল্যান্ডস
সরাসরি, রাত ১০টা
যুক্তরাষ্ট্র-ওয়েলস
সরাসরি, রাত ১টা

শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ ২১ (সোমবার) নভেম্বর, সশস্ত্র বাহিনী দিবস। দিবসটি উপলক্ষে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এরপর সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল মোহাম্মদ শাহীন ইকবাল এবং বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল শেখ আব্দুল হান্নান নিজ নিজ বাহিনীর পক্ষ থেকে শিখা অনির্বাণে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সোমবার বিকাল ৪টায় ঢাকা সেনানিবাসের সেনাকুঞ্জে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

এদিকে ‘সশস্ত্র বাহিনী দিবস-২০২২’ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী বাণী প্রদান করেছেন।

বাণীতে রাষ্ট্রপতি সশস্ত্র বাহিনীকে রাষ্ট্র ও নেতৃত্বের প্রতি পরিপূর্ণ অনুগত থেকে কঠোর অনুশীলন ও দেশপ্রেমের সমন্বয়ে গৌরব সমুন্নত রাখার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে আহ্বান জানান।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বাণীতে বলেন, পেশাগত দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি সশস্ত্র বাহিনী দুর্যোগ মোকাবিলা, অবকাঠামো নির্মাণ, আর্তমানবতার সেবা, বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা এবং বিভিন্ন জাতিগঠনমূলক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করছে। জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছেন। এভাবে সশস্ত্র বাহিনী আজ জাতির আস্থার প্রতীক হিসেবে গড়ে উঠেছে।