সর্বশেষ সংবাদ শিবগঞ্জে বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা পেলেন অসহায়-দুস্থ রোগীরা সোনামসজিদে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ ক্যাপ্টেন জাহাঙ্গীরের সমাধিতে শ্রদ্ধা চাঁপাইনবাবগঞ্জে আমার ৯৩, এর ৮ ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী  পালিত  গোমস্তাপুরে বেগম রোকেয়া দিবস উদযাপন  চাঁপাইনবাবগঞ্জে ব্যারিষ্টার সুমন ফুটবল একাডেমির সাথে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভুটভুটির ধাক্কায় নিহত ১ঃ আহত ১ চাঁপাইনবাবগঞ্জে জয়ীতাদের সংবর্ধনা চাঁপাইনবাবগঞ্জে দূর্ণীতিবিরোধী দিবস পালিত নাচোলে বেগম রোকেয়া দিবসে জয়িতাদের সংবর্ধনা উন্নত-সমৃদ্ধ দেশ গড়তে চাই: প্রধানমন্ত্রী

অর্ঘ’ এর আকস্মিক মৃত্যুতে আগামীকাল (১১ নভেম্বর) বাদ আসর এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন

প্রয়াত জেলা আওয়ামী লীগ নেতা বাচ্চু ডাক্তারের ছোট ছেলে মেসবাহল জাকের (জঙ্গি) এর বড় ছেলে এবং সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম (জেসি) এর ভাতিজা মেসবাহল জারিফ অর্ঘ’ গত বুধবার রাত ৮ টায়
ইন্তেকাল করেন।

অর্ঘ’ এর এই আকস্মিক মৃত্যুতে আগামীকাল (১১ নভেম্বর) শুক্রবার বাদ আসর পৌর এলাকার মরহুম বাচ্চু ডাক্তার সড়কস্থ ” হক মঞ্জিলে” এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

উক্ত দোয়া মাহফিলে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনায়, আত্মীয় স্বজন, বন্ধু-বান্ধব, রাজনৈতিক সহকর্মী সহ সকল স্তরের মানুষ কে উপস্থিত থাকার জন্য বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসি ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের  নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে ফিরলেন লাশ হয়ে 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
চাঁপাইনবাবগঞ্জের মহানন্দা  নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে  লাশ হয়ে  ফিরলেন এক জেলে।বৃহষ্পতিবার(১০ নভেম্বর) ভোরে সদর উপজেলার বারদরিয়া এলাকায় মহানন্দা নদীতে  মাছ ধরতে গিয়ে মারা যান তিনি।
মৃত জেলে একই উপজেলার বারঘরিয়া জামাদার পারা মহল্লার  মৃত আত্তাব আলীর ছেলে শুকুদ্দী(৬৫)।
 চাঁপাইনবাবগঞ্জ ফায়ারসাভিসের  উপসহকারী পরিচালক ছাবের আলী জানান, প্রতিদিনের মত বৃহস্পতিবার  সকাল ০৬ টার দিকে  মহানন্দা নদীতে ব্রিজের নিচে মাছ ধরার জন্য আসেন ।একপর্যায়ে  স্থানীয় লোকজন তাকে নৌকার উপর দেখতে না পাওয়ায়  খোঁজাখুঁজি শুরু করেন। তাকে না পেয়ে স্থানীয়রা ফায়ার সার্ভিস দল কে খবর দিলে রাজশাহী থেকে ডুবুরী দল এসে সকাল ১০ টার দিকে তাকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে ডুবুরী দল।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি এ কে এম আলমগীর জাহান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের নব গঠিত কমিটির বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা ও আনন্দ মিছিল

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষনা হওয়ায় আনন্দ মিছিল করেছে জেলা ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় আওয়ামীলীগ জেলা কার্যালয় হতে মোটরসাইকেল মিছিলটি শুরু হয়ে আব্দুল মান্নান সেন্টু মার্কেটের সম্মুখে বঙ্গবন্ধু মুক্ত মঞ্চের সামনে এসে শেষ হয়। মিছিল শেষে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন নতুন কমিটির নেতৃবৃন্দ। এসময় জেলা-উপজেলা ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতা-কর্মীরা নতুন সভাপতি ডাঃ সাইফ জামান আনন্দ এবং সাধারন সম্পাদক আতিকুজ্জামান আশিককে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। পরে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, সদ্য বিদায়ী জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাহিদ সিকদার, নতুন সভাপতি ডাঃ সাইফ জামান আনন্দ, সাধারন সম্পাদক আতিকুজ্জামান আশিক, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজ সভাপতি আনোয়ারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। বক্তারা নতুন নেতৃত্ব অনুমোদন দেয়ায় আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খাঁন জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

গোমস্তাপুরে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধন

 

গোমস্তাপুর( চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি: চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। মঙ্গলবার (০৮ নভেম্বর) সকালে উপজেলা চত্বরে উপজেলা প্রশাসন আয়োজিত এ মেলার উদ্বােধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নিবার্হী অফিসার আসমা খাতুন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হুমায়ূন রেজা, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা খাতুন,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফেরদৌসী বেগম সহ কর্মকর্তাবৃন্দ। মেলায় ৩০টি স্টলে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ প্রদর্শন করা হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও শিবগঞ্জে দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও শিবগঞ্জ প্রতিনিধি :
চাঁপাইনবাবগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে সদর উপজেলা চত্বরে এই মেলার উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রওশন আলী। এসময় উপজেলার বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তা ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। মেলায় মোট ১৯টি স্টল রয়েছে।
অপরদিকে ‘‘উদ্ভাবনী জয়োল্লাসে স্মার্ট বাংলাদেশ’’ এই প্রতিপাদ্যে- শিবগঞ্জে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা কৃষি অফিস চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে পুনরায় সেখানে এসে শেষ হয়। পরে বেলুন উড়িয়ে এ মেলার উদ্বোধন করেন সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল হায়াতের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শিউলি বেগম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জুবায়ের হোসেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ শরিফুল ইসলাম, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কাঞ্চন কুমার দাস ও শিবগঞ্জ থানার ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদসহ অন্যরা। মেলায় সরকারি-বেসরকারি দপ্তরের অংশগ্রহণে মেলার স্থানে নাগরিক বান্ধব ডিজিটাল সেবা প্রদানের ব্যবস্থার পাশাপাশি সেবা প্রদান প্রক্রিয়া অবহিতকরণ, উন্নয়ন ও সেবা সম্পর্কে নাগরিকদের মতামত গ্রহণের ব্যবস্থা রাখা হয়। এছাড়া মেলায় স্থানীয় উদ্ভাবনসমূহ প্রদর্শনের ব্যবস্থাও করা হয়। মেলায় সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন দপ্তরে ২১টি স্টল স্থান পেয়েছে। শেষে অতিথিরা মেলার স্টলগুলো ঘুরে দেখেন।

 

শিবগঞ্জে অর্থ আত্নসাতের অভিযোগে এননজিও’র মালিক সহ আটক-৫

 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
৬ কোটি টাকা আত্নসাতের অভিযোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে “সূচনা সমাজ উন্নয়ন সংস্থা” নামক ভূয়া এনজিও’র মালিকসহ ৫জনকে আটক করেছে র‌্যাব-৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা। বুধবার(৯ নভেম্বর) রাতে শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের টিকোরী বাজারস্থ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হলেও পরদিন সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব।
আটককৃতরা হচ্ছে, সূচনা সমাজ উন্নয়ন সংস্থা’র মালিক মোবারকপুর ইউনিয়নের কালীচক গ্রামের মোঃ লাইসেন আলীর ছেলে মোঃ অলিউর রহমান (৪০), একই ইউনিয়নের গঙ্গরামপুর গ্রামের মোঃ শহিদুর রহমানের ছেলে মোঃ ফরহাদ হোসেন (২৮), কান্তীনগর গ্রামের উজাল সাহার দুই ছেলে মোঃ শাহজাহান আলী (২৬), মোঃ সেবারুল রহমান (২৫), ও দড়িচক গ্রামের মোঃ মতিউর রহমানের ছেলে মোঃ সাকিবুল হাসান (২৮)।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ র‌্যাব ক্যাম্পের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শিবগঞ্জ উপজেলার মোবারকপুর ইউনিয়নের টিকরী বাজারস্থ জনৈক মোঃ তৌহিদুর রহমান মিয়ার একতলা বিল্ডিং বাড়ীর ভিতর সূচনা সমাজ উন্নয়ন সংস্থার অফিস কার্যালয় হতে সূচনা সমাজ উন্নয়ন সংস্থায় সাধারণ মানুষের জমাকৃত ৬ কোটি টাকা আত্মসাৎকারী প্রতারক চক্রের ওই ৫ সদস্য কে আটক করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে ১ হাজার ৫৪০টি পাশ বই, ৭৫টি ব্লাংক চেক, ৭টি মোবাইল ফোন, ৭৫ সীল, ১০টি সীমকার্ড-১০টি ও ১টি ব্যাগ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় বৃহষ্পতিবার সকালে শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে র‌্যাব।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও ভোলাহাটে কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও ভোলাহাট প্রতিনিধি ঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদরে ও ভোলাহাটে কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ করেছে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
এর মধ্যে সদর উপজেলার ৮ হাজার ১’শ জন এবং ভোলাহাট উপজেলার ৫শ জন কৃষক এ সুবিধা পান। বৃহস্পতিবার(১০ নভেম্বর) সকালে সদর উপজেলা হলরুমে এক আয়োজনের মধ্যদিয়ে কৃষকদের মাঝে এ বীজ ও সার বিতরণ করা হয়। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রওশন আলীর সভাপতিত্বে বিতরণী সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান তসিকুল ইসলাম তসি। সরকারের কৃষি প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় ২০২২-২০২৩ অর্থবছরে রবি মৌসুমে গম, ভুট্টা, সরিষা,চিনাবাদাম, শীতকালীন পেঁয়াজ, মুগ, মসুর ও খেসারী আবাদ বৃদ্ধির লক্ষে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকের হাতে বীজ ও রাসায়নিক সার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।
অপরদিকে ভোলাহাটে ২০২২ – ২০২৩ অর্থ বছরে রবি / ২০২২-২৩ মৌসুমে গম ভুট্টা, সরিষা, চিনা বাদাম শীতকালিন পেঁয়াজ, মুগ, মুসুর ও খেসারি ফসলের আবাদ এবং উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরণ করা হয়। বৃহষ্পতিবার উপজেলা পরিষদ চত্বরে এ সময় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ রাব্বুল হোসেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উম্মে তাবাসসুমের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ সুলতান আলী। উপজেলার গম ৪৫০, ভুট্টা ৩০, সরিষা ১৭০০, চিনাবাদাম ১০ জন, পিয়াজ ১৫, মুগ ডাল ৪০, মসুর ডাল ১৫, খেসারি ডাল ২৮০জনকে বীজ ও সার ,৫’শ জনকে সবজী বীজ ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে প্রণোদনা বিতরণ করা হয়।

শিবগঞ্জে আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা

 

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:
শিবগঞ্জে সদ্য সমাপ্ত দুলর্ভপুর ইউপি নির্বাচন বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বালুটুঙ্গী এলাকায় এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ নাজমুল কবির মুক্তার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক তোফিকুল ইসলাম শাহীনের সঞ্চালনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, পৌর মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুল ইসলাম টুটুল খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তোহিদুল আলম টিয়া, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আবদুল আওয়াল গণি জোহা ও উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলামসহ অন্যরা

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে জয় পেলেন চার বাংলাদেশি আমেরিকান

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে বাংলাদেশি আমেরিকান চার প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। স্থানীয় সময় গতকাল মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যবর্তী নির্বাচন হয়। এতে প্রচুর সংখ্যক বাংলাদেশি আমেরিকান নাগরিক ভোট প্রদান করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে বাংলাদেশি বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের সিনেটর শেখ রহমান ও নাবিলা ইসলাম, কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্যের সিনেটর মো. মাসুদুর রহমান ও নিউ হ্যাম্পশায়ার হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস সদস্য আবুল খান।মধ্যবর্তী নির্বাচনে মার্কিন কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের ৩৫টি ও নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫টি আসনের সবকটিতে ভোট হয়। এছাড়াও ৩৬টি অঙ্গরাজ্যে গভর্নর পদে এবং অঙ্গরাজ্যগুলোর আইনসভারও নির্বাচন হয়।জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তৃতীয়বারের মতো নির্বাচিত হন বাংলাদেশি আমেরিকান শেখ রহমান। জর্জিয়া অঙ্গরাজ্য থেকে সিনেটে প্রথমবারের মতো যাচ্ছেন নাবিলা ইসলাম, কানেকটিকাট অঙ্গরাজ্য থেকে সিনেটে প্রথমবারের মতো যাচ্ছেন মো. মাসুদুর রহমান। তারা সবাই ডেমোক্র্যাটিক পার্টির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

এদিকে নিউ হ্যাম্পশায়ার হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস পদে টানা পঞ্চমবারের মতো বিজয়ী হয়েছেন রিপাবলিকান প্রার্থী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আবুল খান। চার বাংলাদেশি আমেরিকানের বিজয়ে আনন্দিত হয়ে উঠেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

বিয়ের পরই পালিয়ে যায় যে গ্রামের বেশিরভাগ বউ!

ভারতের মহারাষ্ট্রের নাসিক জেলা সদর থেকে প্রায় ৯০ কিলোমিটার দূরে সুরগানা তালুকের ছোট গ্রাম দান্ডিচি বারি। ।ওই গ্রামে সর্বসাকুল্যে ৩০০ জনের মতো বসবাস করেন। কিন্তু সেকানে কোনো পুরুষ বিয়ে করলে আনন্দ করার বদলে শঙ্কায় দিন কাটে পরিবার এবং গ্রামের বাকিদের। বিয়ে হওয়া সত্ত্বেও সুখী সাংসারিক জীবন কেমন হয় তা এই গ্রামের অনেক পুরুষই জানেন না। কারণ এই গ্রামে বেশির ভাগ নারীই বিয়ের পর বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান।

কিন্তু এমনি এমনিই নববধূরা ওই গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে যান না। এর পেছনে কারণও আছে। আর তা হচ্ছে দান্ডিচি বারি গ্রামের বাসিন্দারা সারা বছরই খাবার পানির সংকটে ভোগেন। পানির তীব্র কষ্টের মধ্যে থাকলেও যারা এই গ্রামে বড় হয়েছেন, তারা এর সঙ্গে অভ্যস্ত। কিন্তু সমস্যায় পড়েন তারা, যারা বাইরে থেকে ওই গ্রামে আসেন। আর তাদের মধ্যে অধিকাংশই নববিবাহিতা।

সেই সমস্যা এতটাই প্রকট যে, শ্বশুরবা়ড়িতে কিছুদিন কাটানোর পর তারা খাবার পানির সঙ্কট নিয়ে এতটাই আতঙ্কিত হয়ে পড়েন যে, দান্ডিচি বারি গ্রামে আর থাকতে চান না। বিয়ে-স্বামী-শ্বশুরবাড়ি সব ফেলে ফিরে যেতে চান বাপের বাড়ি।

গোবিন্দ ওয়াঘমারে নামে ওই গ্রামের এক বাসিন্দা এ রকমই একটি বিয়ের কথা জানান, যা টিকেছিল মাত্র দু’দিন।

তিনি জানান, ২০১৪ সালে গ্রামের এক জনের বিয়ে হয়েছিল। সেই বিয়ে মাত্র দু’দিন টিকেছিল। বিয়ের দু’দিনের পরই স্বামীর ঘর ছা়ড়েন ওই নববধূ। সেই ঘটনা লোকমুখে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছিল। তিনি আরও জানান, পানি আনার জন্য ওই নববধূ গ্রামের বাকি গৃহবধূদের সঙ্গে পাহাড়ের নিচে গিয়েছিলেন। একদিন পানি আনতে গিয়েই বুঝে যান যে, সেখানে বসবাস করা কতটা কঠিন।

গ্রামের নারীদের অনেকটা পথ হেঁটে পাহাড়ের নিচ পর্যন্ত যেতে হয় খাবারের পানি আনতে হয়। পলে প্রথম দিনই পানি আনতে যেয়ে ওই নববধূ বুঝতে পারেন সেখানে থাকলে তার জীবন কঠিন হয়ে যাবে। তাই পালানো ছাড়া আর কোনো পথ খোলা নেই। ফলে পানি আনতে যেয়ে সেখানেই কলসি রেখে বাপের বাড়ি পালিয়ে যান সেই নারী।

গোবিন্দ আরও জানান, এই গ্রামের নারীদের প্রতি বছর গ্রীষ্মকালে অর্থাৎ মার্চ থেকে জুন মাস, দেড় কিলোমিটার হেঁটে পাহাড়ের নিচে প্রায় শুকিয়ে যাওয়া একটি নদী থেকে পানি আনতে হয়। শুকনো নদীর সামনে থাকা পাথরের ফাটল থেকে গ্রামের নারীদের পানি ভরতে হয়। নদীর ধারে থাকা পাথরের ফাটলে হাত ঢুকিয়ে একটি বাটি দিয়ে সেই পানি তুলে পাত্রে ভরতে হয় তাঁদের। কিন্তু ফাটলের ভেতরের পানি ফুরিয়ে গেলে তা আবার ভর্তি হওয়ার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়। এরপর দু’টি করে পাত্র মাথায় চাপিয়ে তাদের আবার পাহাড় ডিঙিয়ে গ্রামে ফিরতে হয়।

গ্রামের নারীরা দিনে দুইবার পাহাড়ের নিচে পানি আনতে যান। ভোর ৪টা থেকে পানি আনার তোড়জোড় শুরু হয়। একবার পানি আনার পর বিকেলে আবার যেতে হয়। গ্রীষ্মকালে প্রায় দিনই তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি থাকে। সেই গরমেই পাথুরে রাস্তা দিয়ে হেঁটে পানি আনতে যেতে হয় ওই গ্রামের নারীদের।

লক্ষ্মীবাই ওয়াসলে নামে ওই গ্রামের এক বাসিন্দা বলেন, একটি কলসি পূর্ণ হতে তিন ঘণ্টাও লাগতে পারে। পানি ভরে ফিরতে অনেক সময়েই রাত হয়ে যায়। তিনি জানান, রাতের অন্ধকারে বন্য প্রাণীদের হামলার ভয়ও থাকে। সেজন্য রাতে তারা মশাল জ্বালিয়ে বাড়ি ফেরেন। সঙ্গে টর্চলাইটও থাকে। এবাবে খাড়া রাস্তা ধরে মাথায় দু’টি কলসি এবং হাতে টর্চ জ্বেলে বাড়ি ফিরতে হয় তাদের। শুধু পানি আনা নয়, বাড়ির অন্যান্য কাজও করতে হয় নারীদেরই।

এভাবে কষ্ট করে সংসার করতে রাজি থাকেন না অনেক নারীই। সে কারণে বিয়ের পর ওই গ্রামে এসে অনেক নববধূই বাপের বাড়ি পালিয়ে যান।

দান্ডিচি বারি গ্রামের প্রধান জয়রাম ওয়াঘমারে জানান, বিয়ে না টেকার ব্যাপারে এই গ্রামের বদনাম আছে। ২০০৮-৯ সালে তিন জন নারী পানির অভাবে বিয়ের কয়েক দিনের মধ্যেই গ্রাম ছেড়ে চলে যান। এখন অনেকেই তাদের মেয়েদের এই গ্রামে বিয়ে দিতে রাজি হন না। একবার যখন কেউ জানতে পারেন যে বরের বাড়ি দান্ডিচি বারিতে, তখনই তারা বিয়ের আলোচনা বন্ধ করে দেন।

তিনি বলেন, পানির সমস্যা লাঘবে অনেক দিন ধরেই ট্যাঙ্ক বসানোর চেষ্টা করছি। অনেকে এসে আমাদের কষ্টের ছবি তোলেন। কিন্তু কেউ সাহায্য করেন না। আমাদের গ্রাম প্রজন্মের পর প্রজন্ম ধরে খরায় ভুগছে। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা