সর্বশেষ সংবাদ চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় রণক্ষেত্র এলাকা, ২টি ককটেল উদ্ধার নাচোলে সন্ত্রাসি হামলায় সাংবাদিক সুফিয়ান গুরুতর আহত করোনায় আরও ২৩৫ জনের মৃত্যু শিবগঞ্জের বেলী ব্রীজে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই চলছে মানুষ ও যানবাহন সোনামসজিদ স্থলবন্দর সিএন্ডএফ’র নতুন কমিটির দায়িত্ব গ্রহণ চাঁনশিকারী ও পোলাডাংগা সীমান্তে ইয়াবা সহ আটক ২ ॥ পলাতক-৮ চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২ কেজি গাঁজাসহ আটক-১ বড় অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখে মেধাবী বনি Two associates of Helena Jahangir held PM distributes flats among 300 slum dwellers

করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের নিয়ে মেয়র মনিরুলের মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম শিবগঞ্জ কাঁচা বাজারে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছেন।

মনিরুল ইসলাম এ সময় করোনা থেকে সতর্ক থাকতে সকলের প্রতি বিশেষ অনুরোধ জানান।

১৭ জুন বৃহস্পতিবার বিকেলে স্বাস্থ্য বিধি মেনে করোনা ভয়কে উপেক্ষা করে শিবগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রিজভী আলম রানা কে সাথে নিয়ে মাস্ক প্রদান করেন। এ সময় ছাত্রলীগের অন্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মাস্ক বিতরণ করার সময় মেয়র মনিরুল ইসলাম পৌর নাগরিক ও ব্যবসায়ীদের মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলতে পরামর্শ দেন। এ ছাড়াও যে কোন প্রয়োজনে সবসময় পৌরবাসীর পাশে থাকবেন বলেও মেয়র জানান।

উল্লেখ্য, গত এমপি ও পৌর সভা নির্বাচনে বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা, আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মনোনীত নৌকা প্রতিককে জেতাতে ছাত্রলীগ অবদান রাখে।

শিবগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রিজভী আলম রানা ও সেক্রেটারি আসিফ আহসান এর নেতৃত্বে ছাত্রলীগের নেতাকর্মী সমর্থকদের নিরলস পরিশ্রমের ফল নৌকার প্রার্থী মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলাম।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ফের গুচ্ছগ্রাম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

মুজিববর্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন থাকবেনা” এ স্লোগানকে সামনে রেখে
চাঁপাইনবাবগঞ্জে দ্বিতীয় দফায় ১৪১৯ টি গৃহের শুভ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ২০ জুন (রোববার) সকাল সাড়ে ১০টায় গৃহগুলো উদ্বোধন করা হবে।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) বিকেলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ সংবাদ নিশ্চিত করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি সুত্রে জানা যায়; চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় দ্বিতীয় ধাপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় ৩০৮ টি। শিবগঞ্জ উপজেলায় ১০০টি। গোমস্তাপুর উপজেলায় ৩০০টি। নাচোল উপজেলায় ৩০০টি ও ভোলাহাট উপজোলায় ৪১১টি গৃহ বরাদ্দ পাওয়া গেছে।
মোট ১৪১৯ টি গৃহ বরাদ্দ পাওয়া গেছে। তার মধ্যে থেকে ১০৭০ টি গৃহ নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। উদ্বোধনের দিন ১০৭০ টি নির্মাণ সমাপ্ত গৃহগুলো হস্তাতান্তর করা হবে।

আরও জানা যায়; দ্বিতীয় পর্যায়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ১২০০টি অতিরিক্ত গৃহের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় ২০০টি। শিবগঞ্জ উপজেলায় ২০০টি। গোমস্তাপুর উপজেলায় ২০০টি। নাচোল উপজেলায় ২০০টি ও ভোলাহাট উপজেলায় ৪০০টি গৃহের উপ-বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। এ গৃহগুলোর নির্মাণ কাজ অব্যাহত রয়েছে।

জেলা প্রশাসক মঞ্জুরুল হাফিজ জানান; ১৪১৯ টি গৃহের উদ্বোধনের ১০৭০ জনকে কবুলিয়তনামা দিয়ে গৃহগুলো হস্তাতান্তর করা হবে। বাকি গৃহগুলো করোনার প্রকোপ আর আষাঢ়ে বৃষ্টির জন্য বিলম্ব হচ্ছে। গৃহগুলো নির্মাণকাজ সম্পূর্ণ হলে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে হস্তাতান্তর করা হবে।

তিনি আরোও জানান; ২য় ধাপে জেলায় ১২০০টি অতিরিক্ত গৃহের কাজ চলমান আছে। শ্রীঘ্রই অতিরিক্ত বরাদ্দের ১২০০ টি গৃহ উপকারভোগী পরিবারের অনুকুলে পর্যায়ক্রমে হস্তাতান্তর করা হবে।

মদ-ক্লাব-জুয়া নিয়ে উত্তপ্ত সংসদ

নিজস্ব প্রতিবেদক
জাতীয় সংসদে রাজধানীর বিভিন্ন ক্লাব, মদ ও জুয়া নিয়ে উত্তপ্ত আলোচনা হয়েছে। শুধু বিরোধী দলই নয়, সরকারি দলের এমপিরাও এ ব্যাপারে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এসব বন্ধের দাবিও উঠেছে।

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে বিষয়টি সামনে আনেন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য মুজিবুল হক।

তিনি বলেন, কয়েকদিন ধরে একজন চিত্র নায়িকার বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে। যেখানে ঘটনাটি ঘটেছে- উত্তরা বোট ক্লাব। কে করল এই ক্লাব? এই ক্লাবের সদস্য কারা হয়? শুনেছি ৫০-৬০ লাখ টাকা দিয়ে ক্লাবের সদস্য হতে হয়। এত টাকা দিয়ে কারা সদস্য হয়? আমরা তো ভাবতেই পারি না। সারাজীবনে এত ইনকামও করি না।

রাজধানীর কয়েকটি ক্লাবের নাম নিয়ে মুজিবুল হক বলেন, এসব ক্লাবে মদ খাওয়া হয়, জুয়া খেলা হয়। বাংলাদেশে মদ খেতে হলে লাইসেন্স লাগে। সেখানে গ্যালন গ্যালন মদ বিক্রি হয়। লাইসেন্স নিয়ে খেতে হলে এত মদ তো বিক্রি হওয়ার কথা নয়। সরকারি কর্মকর্তারা এখানে কীভাবে সদস্য হয়? এত টাকা কোত্থেকে আসে?

রাজধানীর অভিজাত এলাকায় ডিজে পার্টি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়ে তিনি বলেন, গুলশান-বারিধারা এলাকায় ডিজে পার্টি হয়, সেখানে ড্যান্স হয়, মদ খাওয়া হয়। এসব আমাদের আইনে নেই, সংস্কৃতিতে নেই, ধর্মে নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলব, আপনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে নির্দেশ দেন- কেন এসব হচ্ছে? কেন বন্ধ করা হবে না? ওই সব ক্লাবের সদস্য কারা হয়?

উল্লেখ্য, রোববার এক ফেসবুক পোস্টে ‘হত্যাচেষ্টা ও ধর্ষণচেষ্টার’ অভিযোগ সামনে আনেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। পরে সেই রাতে বনানীতে নিজের বাসায় তিনি সাংবাদিকদের সামনে ঘটনার বিবরণ দেন।

সোমবার সাভার থানায় ধর্ষণচেষ্টা, হত্যাচেষ্টা ও মারধরের অভিযোগে একটি মামলা করেন তিনি। মামলার প্রধান আসামি উত্তরা ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ ঢাকা বোট ক্লাবের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য (বিনোদন ও সংস্কৃতি)। এজাহারের আরেক আসামি তুহিন সিদ্দিকী অমিও বোট ক্লাবের সদস্য।

পরীমনির অভিযোগ, গত ৮ জুন রাতে অমি তাকে ‘পরিকল্পিতভাবে’ বোট ক্লাবে নিয়ে গিয়েছিলেন। আর নাসির তাকে ‘ধর্ষণ ও হত্যার চেষ্টা’ চালিয়েছিলেন।

পুলিশ ইতোমধ্যে নাসির ও একটি রিক্রুটিং এজেন্সির মালিক অমিকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের সঙ্গে বোট ক্লাবের সদস্য শাহ এস আলমকেও ক্লাব থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

দ্বিতীয় পর্যায়ে ঘর পাচ্ছে আরও ৫৩ হাজার পরিবার

ঢাকা: গত জানুয়ারিতে প্রথম পর্যায়ে প্রায় ৭০ হাজার পরিবারকে ঘর দেওয়ার পর আগামী রোববার (২০ জুন) দ্বিতীয় পর্যায়ে একসঙ্গে আরও প্রায় ৫৩ হাজার ৩৪০টি অসহায় পরিবারকে ঘর দিচ্ছে সরকার।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এ বিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস জানান, আগামী রোববার (২০ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সে দ্বিতীয় পর্যায়ে এসব পরিবারকে মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে বিনামূল্যে দুই শতক জমিসহ সেমি পাকা ঘর দেওয়ার কার্যক্রমের উদ্বোধন করবেন।আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে আরও একলাখ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বিনামূল্যে জমিসহ ঘর দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব।

একসঙ্গে এত মানুষকে বিনামূল্যে বাড়ি-ঘর দেওয়ার ঘটনা পৃথিবীতে নজিরবিহীন মন্তব্য করে আহমদ কায়কাউস বলেন, বিভিন্ন দেশে ভূমিহীন, গৃহহীনদের ঘর-বাড়ি নির্মাণের জন্য সুদবিহীন ঋণ দেওয়ার নজির থাকলেও ভূমিহীন-গৃহহীনদের ডেকে তাদের বাড়ি-ঘর দেওয়ার নজির আর নেই।

মুখ্য সচিব বলেন, অসহায় মানুষকে এভাবে ঘর দেওয়াকে ‘অর্ন্তভূক্তি উন্নয়নে শেখ হাসিনা মডেল’। বিশ্বে এটা নতুন মডেল, আগে কখনো কেউ এটা ভাবেনি।

সরকার অসহায় ভূমিহীন-গৃহহীনদের ঘর দেওয়ার পাশাপাশি তাদের কর্মসংস্থানের জন্য প্রশিক্ষণ দেওয়ার কথা উল্লেখ করেন তিনি।

এক প্রশ্নের জবাবে আহমদ কায়কাউস বলেন, অনিয়মের অভিযোগ এলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এখানে অনিয়মের বিষয়ে আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় জলবায়ু উদ্বাস্তুদের জন্য আশ্রয়ণ প্রকল্প খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পের কথা তুলে ধরে মুখ্য সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে বিশ্বের সর্ববৃহৎ একক জলবায়ু উদ্বাস্তু পুনবার্সন প্রকল্প খুরুশকুল আশ্রয়ণ প্রকল্পে প্রথম পর্যায়ে নির্মিত ১৯টি বহুতল ভবনে ৬০০টি জলবায়ু উদ্বাস্তু পরিবাররকে একটি করে ফ্ল্যাট দেন।

খুরুশকুল বিশেষ আশ্রয়ণ প্রকল্পে দ্বিতীয় পর্যায়ে ১১৯টি বহুতল ভবন নির্মাণ করে আরও ৩ হাজার ৮০৯টি জলবায়ু উদ্বাস্তু পরিবার পুনর্বাসন কার্যক্রম চলমান রয়েছে বলে জানান মুখ্য সচিব।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প পরিচালক মো. মাহবুব হোসেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মো. আহসান কিবরিয়া সিদ্দিকি।