সর্বশেষ সংবাদ বেতন বাড়ছে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নন্দীগ্রামে হেরে হাইকোর্টে মমতা, শুনানি আজ চীনের সিনোফার্মের টিকা চট্টগ্রামে পৌঁছেছে অবশেষে ফিরে এসেছেন আবু ত্ব-হা করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের নিয়ে মেয়র মনিরুলের মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ চাঁপাইনবাবগঞ্জে ফের গুচ্ছগ্রাম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী মদ-ক্লাব-জুয়া নিয়ে উত্তপ্ত সংসদ দ্বিতীয় পর্যায়ে ঘর পাচ্ছে আরও ৫৩ হাজার পরিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে কঠোর বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ল ৭ দিন সংসারের বোঝা কমাতে রাজমিস্ত্রীর কাজে গিয়ে প্রাণ হারালো স্কুলছাত্র

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ আটক-১

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ মাদক পাচারের সংবাদের পৃথক পৃথক অভিযানে বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ একজনকে আটক করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জস্থ রহনপুর ৫৯ বিজিবি সদস্যরা। আটক মাদক ব্যবসায়ী হচ্ছে, শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট মিলিক গ্রামের সেতাউর রহমানের ছেলে আব্দুল জাব্বার (৪২)।
রহনপুর ৫৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ন এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আমীর হোসেন মোল্লা পিএসসি বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে এক প্রেসনোটে জানান,
৭ জুন বিকেল ৫টার দিকে সোনামসজিদ বিওপির হাবিলদার মোঃ আলমগীর হোসেন এর নেতৃত্বে টহল দল দায়িত্বপূর্ণ এলাকার সীমান্ত পিলার ১৮৫/১-আর হতে আনুমানিক ৮০০ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে পিরোজপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে অভিযান পরিচালনা করে মাদক ব্যবসায়ী কানসাটের মোঃ আব্দুল জব্বার কে ৬ বোতল ফেন্সিডিল এবং ১টি মোবাইল ফোনসহ আটক করতে সক্ষম হয়, যার সিজার মূল্য- ১২ হাজার ৪’শ টাকা। আটককৃত ফেন্সিডিলসহ পলাতক আসামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়াও ৭ জুন বিকেল ৪টা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত অত্র ব্যাটালিয়ন এর অধিনায়ক লেঃ কর্নেল মোঃ আমীর হোসেন মোল্লা, পিএসসি এবং সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান, বিজিবিএমএস এর নেতৃত্বে ২টি টহল দল সোনামসজিদ এবং শিয়ালমারা বিওপির দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে। ৭ জুন বিকলে ৬টার দিকে সীমান্ত মেইন পিলার ১৮৭/১১-এস হতে আনুমানিক ১ কিঃ মিঃ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে শিয়ালমারা গ্রামের মোঃ মিন্ঠু আলী (৩৫), পিতা- মৃত সাহেদ আলী, ডাকঘর-শিয়ালমারা, থানা-শিবগঞ্জ, জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর বসত বাড়ী তল্লাশী করে ঘরের মধ্যে লুকায়িত অবস্থায় রাখা ৫০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল আটক করতে সক্ষম হয়, যার সিজার মূল্য ২০,০০০/- (বিশ হাজার) টাকা। অভিযান পরিচালনাকালে বাড়ীর মালিক মোঃ মিন্টু আলী পালিয়ে যায়। অন্যদিকে, একই দিন সাড়ে ৫টায় সীমান্ত মেইন পিলার ১৮৭/১১-এস হতে আনুমানিক ১ কিঃ মিঃ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে শিয়ালমারা গ্রামের মোঃ শরিফুল ইসলাম (৩৫), পিতা-মোঃ আবু সাইদ, গ্রাম-শিয়ালমারা, ডাকঘর-সোনামসজিদ, থানা-শিবগঞ্জ, জেলা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর বসত বাড়ী তল্লাশী করে ঘরের মধ্যে লুকায়িত অবস্থায় রাখা ১৫০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল আটক করতে সক্ষম হয়, যার সিজার মূল্য ৬০,০০০/- (ষাট হাজার) টাকা। অভিযান পরিচালনাকালে বাড়ীর মালিক (১) মোঃ শরিফুল ইসলাম (৩৫), মোঃ শহিদুল ইসলাম (৩০), মোঃ মাইদুল ইসলাম (৪০), গ্রাম-শিয়ালমারা মোঃ সোবহান মিয়া (৪০), মোঃ তহুরুল ইসলাম (৩০), বালিয়াদিঘী-সোনামসজিদ, পালিয়ে যায়। উদ্ধারকৃত ফেন্সিডিলসহ পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে শিবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিকেল ৬টার দিকে সীমান্ত মেইন পিলার ১৮৭/১১-এস হতে আনুমানিক ১ কিঃ মিঃ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে শিয়ালমারা গ্রামের মোড়লপাড়া পুকুরের মধ্য হতে ৩৬৩ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল আটক করতে সক্ষম হয়, যার সিজার মূল্য ১,৪৫,২০০/- (এক লক্ষ পঁয়তাল্লিশ হাজার দুইশত) টাকা। আটককৃত ফেন্সিডিল এর ব্যাপারে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহন প্রক্রিয়াধীন। অভিযানগুলোতে মোট ভারতীয় ফেন্সিডিল ৫৬৯ বোতল, মূল্য-২ লক্ষ ২৭ হাজার ৬’শ টাকা এবং মোবাইল ফোন ১টি মূল্য ১০ হাজার টাকা। সর্বমোট ২,৩৭,৬০০/- টাকা।

শিবগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী হোসেনের ইন্তেকাল

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ পৌরসভার জালমাছমারী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক সৈয়দ আলী হোসেন মিয়া (মিলন ) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না লিল্লাহি র’জিউন ) ।
তিনি মঙ্গলবার বিকেল তিনটায় ঢাকাস্থ এভার কেয়ার হসপিটালে ইন্তেকাল করেন । মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।
মরহুম সৈয়দ আলী হোসেনের দুই মেয়ে ও ১ ছেলে। বড় মেয়ে ফরেন মিনিস্টার বিভাগের পরিচালক ও ছোট মেয়ে মুন্সিগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। সৈয়দ আলী হোসেন জালমাছমারী গ্রামের মরহুম কসিমুদ্দিন এর বড় সন্তান ।
বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক সৈয়দ আলী হোসেন অতিরিক্ত ডিআইজি সৈয়দ নূরুল ইসলাম ও শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম এবং শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলামের বড় ভাই ।
এই বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন এবং শিবগঞ্জ উপজেলাকে শত্রুমুক্ত করতে গেরীলা যুদ্ধে অংশ নেন ।
বুধবার বিকেলে শিবগঞ্জের মরহুমের নামাজে জানাজা ও রাস্ট্রীয় মর্যাদা প্রদান শেষে পারিবারিক কবরস্থানে চীর নিদ্রায় শায়ীত হবেন সৈয়দ আলী হোসেন।

টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলতে চান না মুশফিক

চলতি মাসের শেষে জিম্বাবুয়ে সফরে যাবে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ওই সফরে তিন ফরম্যাটের সিরিজ খেলবে টাইগাররা।কিন্তু অভিজ্ঞ উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলতে চান না।
সোমবার ক্রিকবাজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু।

মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘মুশফিক আমাকে ফোন করে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলতে চায় না বলে জানিয়েছে। ’

প্রধান নির্বাচক আরও জানান, খেলোয়াড়দের জন্য জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকাটা কঠিন হয়ে যাচ্ছে। আর মুশফিক ওই সিরিজ থেকে সরে দাঁড়াতে চান মূলত অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য ভালোভাবে প্রস্তুত থাকতে।

তবে মুশফিকের ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন নান্নু, ‘আমরা এই ব্যাপারে এখনও সিদ্ধান্ত নেইনি। কিন্তু এসব ক্ষেত্রে তাদের (ক্রিকেটারদের) সিদ্ধান্তের প্রতি আমাদের সম্মান দেখাতে হবে। ’

এর আগে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) জানিয়েছিল, আসন্ন জিম্বাবুয়ে সফরে টাইগাররা একটি টেস্ট কম খেলবে। তার বদলে একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ বাড়ানো হবে। এর আগে সফরে ৩টি ওয়ানডে ও ২টি টি-টোয়েন্টির সঙ্গে ২টি টেস্ট খেলার কথা ছিল।

আগামী ৭ জুলাই থেকে সিরিজ শুরু হবে। টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে ৩ ও ৪ জুলাই দুটি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। তবে সবকিছু নির্ভর করেছে জিম্বাবুয়েতে গিয়ে টাইগারদের কোয়ারেন্টিন পর্ব কতদিনের হবে তার ওপর। যদি ২৯ জুন জিম্বাবুয়েতে গিয়ে ৫ থেকে ৭ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয়, তাহলে প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

কোয়ারেন্টিন পর্ব নিয়ে স্বাগতিক ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা চলছে বলে জানিয়েছেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী। ওয়ানডে সিরিজের দুই দিন আগে (১৪ জুলাই) বাংলাদেশ দলের একটি অনুশীলন ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে। এরপর ওয়ানডে ম্যাচগুলো মাঠে গড়াবে যথাক্রমে ১৬, ১৮ এবং ২০ জুলাই। সবগুলো ম্যাচ হবে হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে। এরপর ২৩, ২৫ এবং ২৭ জুলাই একই ভেন্যুতে হবে ৩ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ।

পশ্চিমবঙ্গে বজ্রপাতে ২৬ জনের মৃত্যু!

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তরাঞ্চলে বৃষ্টিপাত শুরু হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গের আবহাওয়া অফিস বলছে, দক্ষিণবঙ্গে সেটা আসতে এখনো কিছু দিন বাকি রয়েছে।কিন্তু এরই মধ্যে প্রায় প্রতিদিন বিকেলের পর থেকে কলকাতাসহ একাধিক জেলায় বজ্রপাতসহ ঝড়বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টির পরিমাণ হালকা থেকে মাঝারি হলেও উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বজ্রপাত।

সোমবার (৭ জুন) পশ্চিমবঙ্গের ৫ জেলায় বজ্রপাতে মৃত্যু হয়েছে ২৬ জনের। কিন্তু কেন বজ্রপাতের পরিমাণ এত বাড়ছে? আবহাওয়ার কোনো বদল, না কী তার সঙ্গে জুড়ে রয়েছে পরিবেশের কোনো বদলও? সাধারণত কিউমুলোনিম্বাস মেঘ থেকে বজ্রপাত ও বৃষ্টি হয়। সে কারণে এই মেঘকে বজ্রগর্ভ মেঘও বলা হয়ে থাকে। গত কয়েক বছর ধরে এপ্রিল-মে মাসে পশ্চিমবঙ্গে এই বজ্রগর্ভ মেঘের পরিমাণ বেড়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তার একটা অন্যতম কারণ বাতাসে জলীয় বাষ্পের আধিক্য। এছাড়া তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার ফলেও এমন হচ্ছে। এই তাপমাত্রা বাড়ার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত রয়েছে দূষণ। দূষণের মাত্রা যত বাড়ছে, গড় তাপমাত্রা তত বাড়ছে। এর ফলে বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হওয়ার আদর্শ পরিবেশ তৈরি হচ্ছে।

কিছুদিন আগেই উড়িষ্যা উপকূলে আছড়ে পড়ে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’। এ ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব সরাসরি পশ্চিমবঙ্গে ততটা না পড়লেও এই ঘূর্ণিঝড়ের ফলে বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প ঢুকেছে রাজ্যে। একইসঙ্গে মে মাস থেকেই পশ্চিমবঙ্গে তাপমাত্রা বেড়েছে। সকাল ও দুপুরের দিকে তীব্র গরম। সব মিলিয়ে স্থানীয় বজ্রগর্ভ মেঘ তৈরি হওয়ার আদর্শ পরিবেশ। আর তার ফলেই প্রায় প্রতিদিন বিকেলের পরে শুরু হচ্ছে বজ্রপাতসহ বৃষ্টি।

মঙ্গলবার (৮ জুন) এ খবর প্রকাশ করেছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

ফেরাউনও আমলাতন্ত্রের বিকল্প বের করতে পারে নাই: মন্ত্রী মান্নান

ঢাকা: মহান আমলাতন্ত্র আমাদের মধ্যে আছে থাকবে। ফেরাউনও আমলাতন্ত্রের বিকল্প বের করতে পারেনি বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান।মঙ্গলবার (৮ জুন) শেরেবাংলা নগরে একনেক সভায় সাভারে বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রকল্পের অনুমোদনের সময় এ কথা বলেন তিনি।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ফেরাউনও আমলাতন্ত্রের বিকল্প বের করতে পারে নাই। আমিও ছোট-খাটো আমলা ছিলাম, এখন আমি বড় আমলা। ফেরাউনকে নেতিবাচকভাবে তুলে ধরা হয়। ফেরাউন মানে অনেক বড় রাজা। আরবের অনেক দেশে ফেরাউনের নাম রাখা হয়।

এম এ মান্নান আরও বলেন, আমলাতন্ত্র মন্দ নয়, আমলাতন্ত্র ভালো, আমলাতন্ত্রের বিকল্পও নাই। সোভিয়েতরা বিকল্প বের করতে পারে নাই, চীনও বের করতে পারে নাই, ফেরাউনও পারে নাই। সেই মহান আমলাতন্ত্র আমাদের মধ্যে আছে। আমলাতন্ত্রের জন্য আমরা সাভারে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র প্রকল্পের অনুমোদন দিলাম।

মন্ত্রী বলেন, ফেরাউনকে এখানে নেতিবাচক হিসেবে তুলে ধরছি না। ফেরাউন শক্তিশালী সরকার ছিল।

একমাসে দেশে করোনায় সর্বোচ্চ মৃত্যু

ঢাকা: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ১২ হাজার ৯১৩ জনের।নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ২ হাজার ৩২২ জন। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮ লাখ ১৫ হাজার ২৮২ জনে। মৃত ৪৪ জনের মধ্যে পুরুষ ২৭ জন ও ১৭ জন নারী।
মঙ্গলবার (৮ জুন) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাছিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকা সিটিসহ দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাড়িতে উপসর্গ বিহীন রোগীসহ গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৬২ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৫৩ হাজার ২৪০ জন। সারাদেশে সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫১০টি ল্যাবে নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে আরটি-পিসিআর ল্যাব ১৩২টি, জিন এক্সপার্ট ৪৪টি, র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন ৩৩৪টি। এসব ল্যাবে ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৯ হাজার ৫৫৬টি। মোট নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ হাজার ১৬৫টি। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬০ লাখ ৮৬ হাজার ২০৭টি।

এতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ১২ দশমিক ১২ শতাংশ। এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৪০ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৬৪ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৪০ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে রয়েছেন ১১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে সাতজন, খুলনা বিভাগে ছয়জন, রাজশাহী বিভাগে ১১ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে দুইজন, সিলেট বিভাগের দুইজন ও রংপুর বিভাগে পাঁচজন রয়েছেন।

এদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ৩৭ জন, বেসরকারি হাসপাতালে তিনজন ও বাড়িতে চারজন রয়েছেন।

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরে ঊর্ধ্বে ২৬ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১০ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের নিচে চারজন, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন রয়েছেন।

এতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ১ হাজার ৩৩ জন ও আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫০৫ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশনে এসেছেন এক লাখ ৪১ হাজার ৪৭৩ জন। আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র নিয়েছেন ১ লাখ ১৯ হাজার ৭৪০ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২১ হাজার ৭৩৩ জন।

এর আগে গত ৭ এপ্রিল দেশে একদিনে করোনা শনাক্ত হয় সাত হাজার ৬২৬ জন। যা দেশে একদিনে করোনা শনাক্তে সর্বোচ্চ রেকর্ড। আর গত ৬ এপ্রিল একদিনে করোনা শনাক্ত হয়েছিল সাত হাজার ২১৩ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য মতে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা ভাইরাসের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এরপর ধীরে ধীরে আক্রান্তের হার বাড়তে থাকে।

শ্যামপুরবাসি হারালো নারী জাগরণের অগ্রদূত নীলুফার চৌধুরীকে

বিশিষ্ট শিক্ষা-সমাজসেবী ব্যক্তিত্ব, নারী জাগরণের অগ্রদূত, আলোকিত নারী ‘নীলুফার চৌধুরী’ ১৯৪৭ সালের ২ জুলাই তৎকালীন ভারতের মুর্শিদাবাদে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা প্রয়াত হোসাম উ দ্দিন বেগ ছিলেন বরিশাল বি.এম কলেজের স্বনামধন্য অধ্যাপক। আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন, একুশে পদকপ্রাপ্ত বাংলাদেশের প্রথিতযশা আলোকচিত্র শিল্পী-ফটোগ্রাফার ‘মঞ্জুর আলম বেগ’ এবং মাহমুদ আলম বেগ (বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর) হলেন নীলুফার চৌধুরীর বড় ভাই ।
নীলুফার চৌধুরী ১৯৬৫ সালে বিয়ে করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার শ্যামপুরের সম্ভ্রান্ত চৌধুরী পরিবারের আবু মুসা চৌধুরীকে। আবু মুসা চৌধুরী ছিলেন শ্যামপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। শুধুমাত্র শ্বশুরবাড়িই নয়, নীলুফার চৌধুরীর মাতুতালয়-নানীর বাড়িও এই শ্যামপুরে। চাঁপাইনবাবগঞ্জে নারী জাগরণের অগ্রদূত হিসেবে তিনি দীর্ঘদিন নারী কল্যাণে তথা সমাজসেবায় নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। নীলুফার চৌধুরী শিবগঞ্জের শ্যামপুরে এ.কিউ.চৌধুরীর দানকৃত জমিতে নারীদের জন্য প্রতিষ্ঠা করেছেন Ôএ.কিউ.চৌধুরী নারী কল্যাণ শিক্ষালয়। পরবর্তীতে তিনি এই বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা-অধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন। শিক্ষাক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য শিবগঞ্জ উপজেলা এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক হিসেবে নির্বাচিত হয়ে পুরস্কার লাভ করেন তিনি। শিক্ষাকতা ও সমাজসেবার পাশাপাশি তিনি স্থানীয় বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় কবিতা, গল্প প্রভৃতি লিখে সুনাম অর্জন করেছেন।শ্যামপুর নারী কল্যাণ সমিতির সভানেত্রী, শিবগঞ্জ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সমিতির সভানেত্রী, নবাবগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির উপদেষ্টা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদের মহিলা সদস্য, শ্যামপুর নারী কল্যাণ গণকেন্দ্র পাঠাগারের সভানেত্রী, জাতীয় মহিলা সংস্থাসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত থেকে নারী কল্যাণ তথা সমাজসেবায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে চলেছেন বিশিষ্ট সমাজসেবী নীলুফার চৌধুরী।{অসমাপ্ত…/বিস্তারিত প্রকাশিতব্য মূল গ্রন্থ- ‘আলোকিত চাঁপাইনবাবগঞ্জ’ (চাঁপাইনবাবগঞ্জের দু’শো বছর ইতিহাসের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সংক্ষপ্তি জীবনী)}

অবশেষে ৫ বছর পর ব্রীজ নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ

চাপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
টানা ৫ বছর ভেঙ্গে পড়ে থাকা জনগুরুত্বপূর্ণ ব্রীজ নির্মাণে অবশেষে ঠিকাদার নিয়োগ হচ্ছে। ভোলাহাট মেডিকেল মোড় হতে মহানন্দা নদী রাস্তার মুন্সিগঞ্জহাটে জনগুরুত্বপূর্ণ একটি ব্রীজ ২০১৭ সালের ১২ মে অতিরিক্ত পানির তোড়ে ভেঙ্গে যায়। ব্রীজটি নির্মাণে জনপ্রতিনিধিদের নানা প্রতিশ্রুতি ও অর্থ বরাদ্দের পরও ঠিকাদার নিয়োগ না হওয়ায় ৫ বছর ধরে ব্রীজটির নির্মাণ কাজ থমকে ছিল। এতে করে হুমকির মুখে পড়তে হয় মুন্সিগঞ্জ হাটের দোকান মালিকদের। একটি নতুন পোস্ট অফিস ভবন। ব্রীজের নিচে পড়ে অনেকেই দূর্ঘটনার শিকার হন। অবশেষে শান্তির নিশ্বাস পড়েছে এলাকায়। ব্রীজটি নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে।

ঠিকাদার নিয়োগের কথা শুনে মুন্সিগঞ্জ হাটের ক্ষুদে মুদি দোকান মালিক মোঃ রইশুদ্দীন জানান, ব্রীজটি নির্মাণ হবে শুনে খুব খুশী হয়েছি। পানির তোড়ে ভেঙ্গে যাওয়া মাটির সাথে তার ছোট্ট দোকানটি হয়তো এবার রক্ষা পাবে। পরিবারের লোকজন নিয়ে আগের মত সংসার চালাতে পারবেন। রিক্সা চালক মোঃ আব্দুল জানান, আগে যে ভাবে বিনোদন প্রেমীক মানুষ মহানন্দা নদীর পাড়ে এসে বাংলাদেশ থেকে ভারত দেখতে ও বিনোদন করতে রিক্সায় চড়ে আসতেন আবারো তাঁরা রিক্সায় চড়ে আসবেন। এতে করে আমার মত গরিব মানুষের আয় বাড়বে।
বজরাটেক সবজা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুস শুকুর বলেন, ভাঙ্গা ব্রীজটি এ এলাকার মরণ ফাঁদ। ব্রীজটি নির্মাণে ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে শুনে আমি বেশ খুশী। ভেঙ্গে পড়া জনগুরুত্বপূর্ণ ব্রীজটিতে অজান্তেই নীচে পড়ে গিয়ে অনেকেই দূর্ঘটনার শিকার হয়েছেন।
গোহালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল কাদের জানান, জনগুরুত্বপূর্ণ মুন্সিগঞ্জহাটের ব্রীজটি দীর্ঘদিন ভেঙ্গে থাকার পর ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে। নির্মাণে আমার আওতার বাইরে থাকায় নির্মাণ কাজ করতে পারিনি। ফলে জনতার কাছে নিজেকে বেশ অপরাধী মনে হতো। এখন যেহেতু ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে সেহেতু নির্মাণ কাজ শেষ হবে।
এ ব্যাপারে ভোলাহাট উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মোঃ সাজিদুর ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন ধরে ভেঙ্গে থাকা জনগুরুত্বপূর্ণ মুন্সিগঞ্জহাটের ব্রীজটি নির্মাণের কাজ দ্রুত শুরু হবে। ইতিমধ্যেই ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে।

ভোলাহাটে নবাগত ইউএনও’র যোগদান

ভোলাহাট ( চাপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ
ভোলাহাটে নবাগত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে সমর কুমার পাল যোগদান করেছেন। ৭ জুন সোমবার বিকেলে তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে ভোলাহাটে যোগদান করেন। তিনি রাজশাহী সিটি করপোরেশনে ম্যাজিষ্ট্রেট হিসেবে কর্মরত ছিলেন। সেখানে থেকে তিনি ভোলাহাটে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়ীত্ব গ্রহণ করেন। তিনি ৩৩তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিষয়ে পড়া- লেখা শেষ করেন। চাকুরীর প্রথম কর্মস্থল নোয়াখালী। তাঁর বাড়ী পাবনা জেলার আতাইকুলাতে। তিনি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে উপজেলার উন্নয়নকে এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জানান গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে। তিনি বলেন, উপজেলাবাসির সকলের সহযোগীতা নিয়ে ভোলাহাটের উন্নয়ন করতে চান।

প্রধান মন্ত্রী প্রদত্ত অর্থ সহায়তা প্রদান চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে কোভিড ১৯ এর কারণে কর্মহীন দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে মানবিক সহায়তা হিসাবে নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ৪০০জন গরীব অসহায় মানুষের মাঝে এ নগদ অর্থ সহায়তা হিসেবে ৫০০ টাকা করে দেয়া হয়েছে।

৮জুন (মঙ্গলবার) সকালে পৌরসভা চত্বরে এসব নগদ অর্থ সহায়তা তুলে দেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, নগদ অর্থ সহায়তা কমিটির আহবায়ক কাউন্সিলর আফজাল হোসেন পিন্টু, ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাসিদুল ইসলাম নিখিল, প্রশাসনিক কর্মকর্তা নুরে আলম, উপজেলা কৃষি সহকারী (ট্যাগ অফিসার) আব্দুল মতিন, সহকারী হিসাব রক্ষক আব্দুর রাকিব , ক্যাশিয়ার আব্দুল বাসির, সমন্বয়কারী মোঃ ফারুক আহমেদ প্রমুখ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে কোভিড ১৯ এর কারণে কর্মহীন দুস্থ ও অসহায় পরিবারের মাঝে ৪০০ জনকে নগদ ৫০০টাকা করে ২ লাখ টাকা দেয়া হল।