সর্বশেষ সংবাদ বেতন বাড়ছে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নন্দীগ্রামে হেরে হাইকোর্টে মমতা, শুনানি আজ চীনের সিনোফার্মের টিকা চট্টগ্রামে পৌঁছেছে অবশেষে ফিরে এসেছেন আবু ত্ব-হা করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে আর্জেন্টিনা সমর্থকদের নিয়ে মেয়র মনিরুলের মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ চাঁপাইনবাবগঞ্জে ফের গুচ্ছগ্রাম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী মদ-ক্লাব-জুয়া নিয়ে উত্তপ্ত সংসদ দ্বিতীয় পর্যায়ে ঘর পাচ্ছে আরও ৫৩ হাজার পরিবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে কঠোর বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ল ৭ দিন সংসারের বোঝা কমাতে রাজমিস্ত্রীর কাজে গিয়ে প্রাণ হারালো স্কুলছাত্র

অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ  স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে এক অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা।তবে স্থানীয় প্রশাসন এ আভিযোগ অস্বীকার করেছে। শহরের বড় ইন্দারা মোড় এলাকার শাহজাহান আলী মিয়া(পচু হাজি)র মৃত্যর পর গত সোমবার তাঁকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের পর  সাবেক সহকারী কমান্ডার  মোহাম্মদ তরিকুল ইসলাম মাস্টার ২১ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার স্বাক্ষর করা একটি অভিযোগ জেলা প্রশাসকের
নিকট জমা দেন। বুধবার বিকেলে এ অভিযোগ  দেন তাঁরা। এ সময় এ ঘটনার
 নিন্দা জানিয়েছেন স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধারা।
এর আগে বুধবার  দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে জরুরী সভায় এ ঘটনার প্রতিবাদ জানানো হয়।সভায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক জেলা কমান্ডার মো.আলাউদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল আলম,রুহুল আমীন,জয়নাল আবেদিন সহ বিভিন্ন ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডাররা সভায় উপস্থিত ছিলেন।
সভা শেষে ২১ জন বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়,শাহজাহান মিয়া কোন মুক্তিযোদ্ধাই ছিলেন না।বরং তিনি মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে অবস্থান নেন।এমন একজন মুক্তিযুদ্ধ বিরোধীর মরদেহ জাতীয় পতাকায় মুড়ে রাষ্টীয় মর্যাদা দিয়ে পতাকার অবমাননা করা হয়েছে।এছাড়া মর্যাদা প্রদানের জন্য কোন বীর মুক্তিযোদ্ধা বা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডারকে জানানো হয়নি এবং সেখানে মুক্তিযোদ্ধা  কেউ উপস্থিত ছিলেন না বলে জানান।
এ ব্যাপারে  জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক তরিকুল আলম জানান মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয় প্রকাশিত মুক্তিযোদ্ধাদের দুটি তালিকার একটিতেও মো.শাহজাহান মিয়ার নাম নেই।
এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) নাজমুল ইসলাম সরকার জানান  সরকারি গেজেটে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মো.শাহজাহান মিয়ার নাম আছে।তাই বিধি মোতাবেক উনাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দেওয়া হয়েছে।
 অপরদিকে মো.শাহজাহান মিয়ার ছোট ছেলে মো.আলী আসগার বলেন,স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের এ বক্তব্য সম্পূর্ণ মিথ্যা।
তবে তাঁর পিতা কোথায় মুক্তিযুদ্ধ করেছেন এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন সেটা আমি জানি না।আমি তখন নাবালক ছিলাম। তাঁর বড় ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তিনি বলেন,উনি(বড় ভাই) এখন অসুস্থ কথা বলতে পারবেন না।

তরমুজের পর এবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১২০ টাকা কেজি দরে বিকাচ্ছে আনারস

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে তরমুজের পর এবার ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে আনারস।সরজমিনে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিশ্বরোডে রুবেলের ভ্রাম্যমান দোকানে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, তারা আড়ৎ থেকে আনারস কিনিছে ৮০ টাকা কেজি দরে।আর তারা পাইকারি খুচরা ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছে।

এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার শাস্তি মোড়ের ভ্যান গাড়িতে বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকা কেজি দরে।এ দামে হাবিবুর রহমান নামের এক ক্রেতা ৪ কেজি আনারস কিনেছে।ওই হাবিবুর জানান, আমি আমার এ বয়সেও দেখিনি আনারস কেজি দরে বিক্রি হয়।আমার এক খালাতো ভাইয়ের কাল থেকে ভিষণ জ্বর।তাই আনারস কিনতে এসেছি।উপায় না পেয়ে আমি ৪ কেজি ১০০ গ্রাম আনারস কিনেছি।তিনি আরোও জানান, শুধু আনারস টুকু বিক্রি করলে হতোই, ওই আনারসের ডাটাও কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

আনারস বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে এখন আনারস নতুন নামছে,তাই আনারসের দাম অনেক অনেক বেশি।বাজারে যখন বেশি পরিমাণে আনারস আসবে তখন দাম কমবে।

সচেতন নাগরিকরা বলছেন,বাজারের সকল কিছুই দাম বাড়ে।কিন্তু একেবারেই অস্বাভাবিক দাম বাড়বে এটা মেনে নেয়া যায় না।এটা একটা সিন্ডিকেট করছে আড়ৎ দারেরা।তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হউক।

ভোক্তা অধিকারের সহকারী পরিচালক জহিরুল ইসলাম কাজল তিনি জানান,আমরা বাজার মনিটর করছি।আমাদের কে সচেতন হতে হবে।তাহলে অসাধু ব্যবসাযীরা বেশি দাম নিতে পারবেনা।

ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে  ৪ দিন বন্ধ থাকবে সোনামসজিদ স্থলবন্দর

নিজস্ব প্রতিবেদক

পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে ৪ দিন বন্ধ থাকবে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্থলবন্দর ‘সোনামসজিদ শুল্ক স্থলবন্দর’। সোনামসজিদ আমদানি ও রপ্তানীকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মো. আতাউর রহমান রাজু স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

সোনামসজিদ আমদানি ও রপ্তানিকারক গ্রুপ এবং সোনামসজিদ স্থল শুল্ক বন্দর সিএন্ডএফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের যৌথ সিদ্ধান্তে প্রেরিত ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, যেহেতু ১৪ এপ্রিল বুধবার থেকে মুসলমানদের পবিত্র রমজান মাস শুরু হয়েছে এবং চাঁদ দেখা সাপেক্ষে চলতি মাসের ১৩ বা ১৪ তারিখ পবিত্র ঈদ উল ফিতর উদযাপন করা হতে পারে সেহেতু শুল্ক স্থলবন্দর “সোনামসজিদ স্থলবন্দর” এর আমদানি রপ্তানি ও সিএন্ডএফ বিষয়ক সকল কার্যক্রম আগামী ১২ মে বুধবার থেকে ১৫ মে শনিবার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে এবং ১৬ মে রোববার থেকে বন্দরের সকল কার্যক্রম পুনরায় চালু হবে।
বাংলাদেশের সোনামসজিদেও বিপরীতে ভারতের মালদা জেলার মহদিপুর এক্সপোটার্স এসোসিয়েশনকেও বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে বলে জানান সোনামসজিদ আমদানি ও রপ্তানীকারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মো. আতাউর রহমান রাজু ।

আগামীকাল গোমস্তাপুর যাচ্ছেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক

 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ :

বোরো মৌসুমে ব্রি ধান ৮১ জাতের ধান কর্তন ও কৃষক সমাবেশে যোগ দিতে আগামীকাল চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে যাচ্ছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। বৃহস্পতিবার সকালে  রাজশাহী বিমান বন্দরে অবতরণের পর সড়ক পথে চাঁপাইনবাবগঞ্জে যাচ্ছেন তিনি। চাঁপাইনবাবগঞ্জে সার্কিট হাউসে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সাথে সভা শেষে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের আয়োজনে গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর পৌরসভার চিনিয়াতলা এলাকায় ধান ও গম মাঠ প্রকল্পের প্লট পরিদর্শন শেষে হারভেস্টার (কম্বাইন)মেশিন দিয়ে ব্রি ধান ৮১ জাতের ধান কর্তনের শুভ উদ্বোধন শেষে কৃষক সমাবেশে যোগ দিবেন তিনি। এসময় কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কমলারঞ্জন দাস, বিএআরসি নির্বাহী চেয়ারম্যান ডঃ মোহাম্মদ বখতিয়ার, ডিএই মহাপরিচালক  কৃষিবিদ মোঃ আসাদুল্লাহ , বিএডিসি চেয়ারম্যান  ডঃ অমিতাভ সরকার, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মঞ্জুরুল হাফিজ ,চাঁপাইনবাবগঞ্জের পুলিশ সুপার  এ এইচ এম আবদুর রকিব বিপিএম,পিপিএম(বার), সংরক্ষিত মহিলা আসন-৪১ এর  সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসি, রাজশাহী বিএমডিএ  চেয়াারম্যান ডঃ আকরাম হোসেন চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়কক উপ-কমিটির সদস্য বদিউজ্জামান বাদশা, রাজশাহীর অতিরিক্ত পরিচালক সিরাজুল ইসলাম, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সাবেক সাংসদ জিয়াউর রহমান ও গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস উপস্থিত থাকবেন বলে জানানো হয়েছে।

India’s Daily Covid-19 Death Toll Hits Record High

New Delhi: 3,780 people died of Covid in India the last 24 hours, the highest in a day so far, pushing the total fatalities to 2,26,188.

India’s Covid caseload hit 2.06 crore with over 3.82 lakh new cases as the crisis continues to crush the healthcare system.

Here are the top 10 updates on coronavirus in India:

Even as many quarters demanded a country-wide lockdown to reign in the pandemic, large parts of India are under strict curbs for varying periods.

In Maharashtra – which has been the worst-hit state since last year – 51,880 new cases took the total caseload to over 48.22 lakh. 891 people died of COVID-19 in the state.

In terms of the total caseload, Maharashtra is followed by Kerala, Karnataka, Uttar Pradesh, Tamil Nadu and Delhi.

Karnataka capital Bengaluru now has more than three lakh active Covid cases. The surge gas led to an increased demand for hospital beds and oxygen in the city. Karnataka saw 44,631 new cases added in the latest data, taking the state’s overall caseload to over 16.9 lakh.

In neighbouring Kerala, 37,190 tested positive for the virus on Tuesday and 57 Covid patients died. The state is under severe lockdown-like restrictions since Tuesday till May 9.

Assam on Tuesday saw its highest ever umber of Covid deaths with he death of 41 patients. 4,475 people tested positive on the same day.

India is second only to the United States in the total number of cases reported since the beginning of the pandemic.

The government on Tuesday made chages to the rules for testing for Covid to cut pressure on labs. An RT-PCR test must not be repeated in a person who has tested positive once either by RAT or RT-PCR and that testing isn’t needed for recovered patients at the time of hospital discharge as well as for “healthy” inter-state travellers, according to the new rules.

The Allahabad High Court Tuesday observed that the death of Covid patients over non-supply of oxygen to hospitals is a criminal act, “not less than a genocide” by authorities entrusted the task to ensure the oxygen supply chain is maintained. The court made the remarks after reports of death of coronavirus patients due to lack of oxygen in Uttar Pradesh capital Lucknow and Meerut.

In an unprecedented move, the Indian Premier League (IPL) has been suspended indefinitely and the players have been sent home after multiple Covid cases inside the bio-bubble.

Source: NDTV

Huawei and ZTE left out of India’s 5G trials

India’s telecom ministry has left out Chinese equipment makers Huawei and ZTE from its 5G trials, becoming the latest country to lock the firms out.

The ministry granted permission to a dozen firms – including Ericsson, Nokia and Samsung’s network unit – to conduct a sixth-month trial of 5G technology.

Although Huawei and ZTE were not named, they were not banned from supplying 5G equipment to carriers.

India is the world’s second-biggest market by number of phone users.

Major carriers Reliance Industries’ Jio Infocomm, Bharti Airtel and Vodafone Idea will conduct the trials along with state-run MTNL.

A statement from the Indian government’s Press Information Bureau says each company “will have to conduct trials in rural and semi-urban settings also in addition to urban settings so that the benefit of 5G Technology proliferates across the country and is not confined only to urban areas”.

Delhi is yet to implement any type of official ban on the Chinese companies, which currently supply a significant amount of equipment to India’s mobile providers.

However, the government has signalled a tighter, more security-oriented approach to the country’s networks, which is widely expected to work against the Chinese companies.

In December, the government said it would identify “trusted” sources of telecoms gear its carriers can use in their networks as part of the new security directive for the sector.

Those new procurement rules are expected to come into effect in June, and will restrict Indian network providers to buying certain types of equipment from “trusted sources”.

It might also include a list of banned suppliers.

Global security concerns
Huawei has been locked out of the development of 5G in a number of other countries, including the UK.

The company is currently on the US Department of Commerce’s Entity List, which restricts its access to items produced with US technology and software.

The US says Huawei could be used by China for spying, via its 5G equipment and its Federal Communications Commission (FCC) has even ordered certain US telecommunications companies to remove Huawei equipment from their network.

Huawei has long denied claims that it poses any threat to national security.

Mobile operators in a number of countries have warned that excluding Huawei from the network could increase the cost and slow the rollout.

5G – the fifth generation of wireless technology – is much faster than its predecessors and allows much more devices to be connected at the same time. It operates on high frequencies that require more capacity.

করোনাকালে শরীরে অক্সিজেনের পরিমাণ বাড়ানোর উপায়

মহামারি করোনা এসে আমাদের বুঝিয়ে দিয়েছে প্রকৃতি আমাদের জন্য কত বড় বন্ধু। সারা জীবন আমরা বিনামূলে্য অক্সিজেন পেয়ে আসছি। যার জন্য তেমন কোনো অবদানই আমরা রাখিনি। কিন্তু করোনায় আক্রান্ত হলে অনেকেরই অক্সিজেন লেভেল যখন কমতে শুরু করে, এর চেয়ে অসহায় অবস্থা আর কিছুই থাকে না।

অনেক সময় সব ধরনের চিকিৎসাও হার মানে অক্সিজেন ধরে রাখতে আর যার পরিনাম হতে পারে মৃত্যুও।
বিশেষজ্ঞরা বলেন, সারা শরীরে রক্ত চলাচলের ফলে আমরা সুস্থ-সবল এবং জীবিত থাকি। অক্সিজেন কমে এলে ক্লান্ত, দুর্বল লাগার সঙ্গে সঙ্গে ঝিমুনি লাগতে পারে হতে পারে শ্বাসকষ্ট।

শরীরে অক্সিজেনের ঘাটতি মেটাতে যা করতে হবে-
• গভীরভাবে শ্বাস নিতে হবে, শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে বাতাসের সাহায্যে আপনার ফুসফুসে প্রবেশ করতে এবং শেষ পর্যন্ত রক্ত প্রবাহে অক্সিজেন সরবরাহ বাড়িয়ে দেয়
• একটি পার্ক বা যেখানে অনেক গাছ আছে এমন জায়গায় সকালের হাঁটলেও বিশুদ্ধ বাতাসের সঙ্গে শরীর পর্যাপ্ত অক্সিজেন পায়
• আপনার ঘরের বায়ুচলাচলে যথাযথভাবে হচ্ছে কিনা তা নিশ্চিত করুন
• নিয়মিত ওয়ার্কআউট, সাঁতার কাটা ও শরীরচর্চাও অক্সিজেন বাড়াতে সাহায্য করে।

লক্ষ্য রাখতে হবে খাবারের দিকেও-
• প্রতিদিন খাবারে একবাটি টক দই যদি আপনি যোগ করেন তাহলে আপনার শরীরে যথেষ্ট পরিমাণে অক্সিজেন পাবে
• গ্রিন টি আমাদের শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা সঠিক করতে সাহায্য করে
• অক্সিজেনের মাত্রা বাড়াতে প্রতিদিনের খাবারে একমুঠো বাদাম যোগ করুন
• পালং শাকে আয়রনের মাত্রা যেমন অনেক বেশি থাকে তেমনি অক্সিজেনও প্রচুর পরিমাণে রয়েছে।

করোনামুক্ত হয়ে ছেলের কাছে ফিরে আনন্দে ভাসছেন শুভশ্রী: ৫ মে শপথ

মাত্র ৭ মাস বয়সী সন্তানকে দূরে রাখার কষ্ট হয়তো মা ছাড়া অন্য কেউ বুঝবেন না। তেমনি কষ্ট সহ্য করে করোনা আক্রান্ত হওয়ায় দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে ছোট্ট ছেলেকে দূরে রাখতে হয়েছে টলিউড অভিনেত্রী শুভশ্রী গাঙ্গুলীকে।অবশেষে এই তারকা ও তার ছেলের মুখে হাসি ফুটেছে। ১৭ দিন পর একে অপরের দেখা পেয়েছেন। আর এতদিন পর ইউভানকে কাছে পেয়ে আনন্দে ভাসছেন শুভশ্রী।

‘পরিণীতা’খ্যাত এই অভিনেত্রী করোনামুক্ত হয়েছেন। আইসোলেশন শেষ করে চিকিৎসকের পরামর্শে ফিরেছেন আগের মতো সাধারণ জীবনে।

এ প্রসঙ্গে শুভশ্রী বলেন, আমি এখন একদম ফিট। আমার আইসোলেশন শেষ হয়েছে। চিকিৎসকের পরামর্শেই আবার স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় ফিরেছি। গত ২০ এপ্রিল শুভশ্রী সামাজিক মাধ্যমে জানান, তিনি করোনা ভাইসারে আক্রান্ত হয়েছেন। ওই একই দিনে আরেক টলিউড তারকা জিতও ভাইরাসের আক্রান্ত হওয়ার কথাটি জানিয়েছিলেন। তবে নায়ক ভাইরাসমুক্ত হয়েছেন কিনা, তা এখনো জানাননি।

শুভশ্রী আক্রান্ত হওয়ার সময় তার স্বামী পরিচালক রাজ চক্রবর্তী ব্যস্ত ছিলেন নির্বাচন নিয়ে। তাই তখন ইউভান ছিল বাড়ির কেয়ারটেকারের কাছে। রাজ তৃণমূলের প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে ব্যারাকপুর থেকে বিধায়ক নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (০৫ মে) তিনি শপথ নেবেন।

ভারত থেকে বিশ্বকাপ সরিয়ে নেওয়ার দাবি জোরালো হচ্ছে

করোনা মহামারিতে বিপর্যস্ত ভারতে আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের সম্ভাবনা ক্রমেই ক্ষীণ হচ্ছে। বিকল্প হিসেবে জোরালো সংযুক্ত আরব আমিরাতের নাম।চলতি বছরের অক্টোবর-নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর বসার কথা ভারতের মাটিতে। এজন্য করোনা মহামারির মাঝেও আইপিএল আয়োজন করার পথ বেছে নেয় ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই), যাতে একটা উদাহরণ তৈরি করা যায় এবং বিশ্বকাপের প্রস্তুতিটাও নেওয়া যায়। কিন্তু তাদের পরিকল্পনা কাজে দেয়নি। বরং করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারণে মাঝপথেই চলতি আসর স্থগিত করতে হয়। এখন অনিশ্চিত হয়ে গেছে ভারতে বিশ্বকাপ আয়োজনও।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অংশ নেবে ১৬টি জাতীয় দল। কিন্তু ৮ দলের আইপিএল আয়োজন করতে গিয়েই বিসিসিআই যেভাবে ব্যর্থ হলো, তাতে বিশ্বকাপ নিয়ে সংশয় স্বাভাবিক। কারণ জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলেও গত কয়েকদিনে আইপিএলের কয়েকজন ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফ করোনা পজিটিভ হন। তাহলে ১৬ দলের টুর্নামেন্টের জৈব সুরক্ষা বলয় কীভাবে সুরক্ষিত থাকবে সেই প্রশ্ন উঠছে। তারওপর আইপিএলের চেয়ে বিশ্বকাপে বিদেশি ক্রিকেটারদের সংখ্যাও থাকবে অনেক বেশি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’র এক রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, এরইমধ্যে ভারত থেকে সরিয়ে বিশ্বকাপ সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাওয়ার সম্ভবনা বাড়ছে। আগামী দুই মাস পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে ভারত সফর করবে আইসিসির প্রতিনিধি দল। বিসিসিআই-এর একটি সূত্র ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’কে বলেছেন, ‘যদি করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সেপ্টেম্বরে চলেও যায়, বছরের শেষদিকে আবার তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। আইসিসি তো আর নতুন আয়োজক ঘোষণার জন্য সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করবে বলে মনে হয় না। ’

এর আগে আরব আমিরাতের তিনটি ভেন্যুতে (দুবাই, শারজাহ এবং আবুধাবি) গত বছরের আইপিএল আয়োজন করেছিল বিসিসিআই। দুই মাসব্যাপী সফল ওই আয়োজনের জন্য আমিরাতের ক্রিকেট বোর্ডকে ৯০ কোটি রুপি দিয়েছিল ভারতের ক্রিকেট বোর্ড। এছাড়া প্রত্যেক ম্যাচ আয়োজনের আলাদা খরচ তো আছেই। এবার বিশ্বকাপের জন্যও হয়তো একই পথে হাঁটতে হতে পারে ভারতকে। যদিও শোনা যাচ্ছে, আইসিসির কাছে পুরো টুর্নামেন্ট এক শহরেই (মুম্বাই) আয়োজন করার প্রস্তাব দিতে পারে বিসিসিআই। কিন্তু এমন প্রস্তাব নাকচ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

ঈদের আগেই বিশেষ অনুদান পাচ্ছেন যেসব শিক্ষকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়েছেন বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১ লাখ ৫ হাজার নন-এমপিও শিক্ষক-কর্মচারী। তবে আশার খবর এসব শিক্ষক-কর্মচারীদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। ইতোমধ্যে টাকা বরাদ্দ চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়।

জানা যায়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অধীন নন-এমপিও ৮০ হাজার ৭৪৭ জন শিক্ষককে ৫ হাজার টাকা এবং ২৫ হাজার ৩৮ জন কর্মচারীকে আড়াই হাজার টাকা করে বরাদ্দ দেয়া হবে। প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলে ঈদের আগেই এ অর্থ বিতরণ করা হতে পারে।

সূত্র জানায়, সম্প্রতি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি বৈঠকে নন এমপিও শিক্ষকদের আর্থিক অনুদান দেয়ার বিষয়টি উত্থাপিত হলে সায় মেলে। এরপর অর্থ মন্ত্রণালয় গত বছরের তালিকা ধরে একটি প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠিয়েছেন, যা অনুমোদনের অপেক্ষায়।

এসব প্রতিষ্ঠান সরকার থেকে কোনো বরাদ্দ পায় না। প্রধানমন্ত্রী তার ‘বিশেষ অনুদান’ এর খাত থেকে প্রণোদনা হিসেবে বরাদ্দ দেন। ৬৪ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে তা বণ্টন করা হয়।

উল্লেখ্য, গতবছর বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরোকে (ব্যানবেইস) প্রকৃত শিক্ষক-কর্মচারীদের তথ্য খুঁজে বের করতে দায়িত্ব দেয়া হয়। প্রতিষ্ঠানের ডাটাবেসে থাকা ৬৪ জেলার ৮ হাজার ৪৯২টি স্কুল ও কলেজের নন-এমপিও ৮০ হাজার ৭৪৭ জন শিক্ষক ও ২৫ হাজার ৩৮ জন কর্মচারীসহ মোট ১ লাখ ৫ হাজার ৭৮৫ জনের তালিকা শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে দেয়া হয়। এরপর তা স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করা হয়।