সর্বশেষ সংবাদ স্থগিত হওয়া আইপিএলেও ফিক্সিংয়ের অভিযোগ! বাংলাদেশসহ ৪ দেশের নাগরিকদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা নেদারল্যান্ডসের প্রেমিকাকে বিয়ে করলেন দিতির ছেলে খালেদা জিয়ার করোনা নেগেটিভ: খোকন Bangladesh sees fresh 1,822 Covid cases, 41 more deaths ‘ঈদে ছোটাছুটি নয়, বেঁচে থাকলে তো স্বজনদের সঙ্গে দেখা’ জনসংখ্যা বাড়লেও খাদ্য নিরাপত্তায় চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা সম্ভব হচ্ছে- কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত অমুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফনের অভিযোগ  স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের তরমুজের পর এবার চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১২০ টাকা কেজি দরে বিকাচ্ছে আনারস

রাত পোহালেই পশ্চিমবঙ্গে দ্বিতীয় দফার ভোট

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনে দ্বিতীয় দফার ভোট শুরু হচ্ছে কাল। যেখানে ৪ জেলার ৩০টি আসনে লড়বেন ১৭১ জন প্রার্থী। বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৭টা থেকে ভোট চলবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা পর্যন্ত।

এ নির্বাচনে মূল নজর নন্দীগ্রামে। কারণ, নন্দীগ্রামের নির্বাচনের ফল আগামী দিনের পশ্চিমবঙ্গে রাজনীতির গতিপ্রকৃতি বদলে দিতে পারে। এ কারণে নির্বাচনের আগে থেকেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে নন্দীগ্রাম। এ দফায় পশ্চিমবঙ্গের সাথে গোটা ভারতের নজর হাইভোল্টেজ কেন্দ্র নন্দীগ্রামের দিকে। যেখানে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে আগামী শুক্রবার রাত ১২টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি থাকবে। রাত থেকে ভোটপর্ব শেষ না হওয়া পর্যন্ত নন্দীগ্রামে কোনো ধরনের জমায়েত করা যাবে না। একসঙ্গে পাঁচজনের বেশি থাকা যাবে না। দুটির বেশি মোটরসাইকেল একসঙ্গে বের হলে গ্রেপ্তার করা হবে।

প্রথম দফায় একাধিক সহিংসতার পর নিরাপত্তা আরও জোরদারে নির্বাচন কমিশন জানায়, শুধু নন্দীগ্রাম কেন্দ্রে ৩৫৫ বুথে মোতায়েন করা হবে ২২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। এর আগে মঙ্গলবার শেষ দিনের প্রচারণায় একাধিক রোড শো আর সভায় অংশ নেন প্রার্থীরা।

কালচারাল অফিসারের হত্যাকারীর শাস্তির দাবিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মানববন্ধন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ টাঙ্গাইলের জেলা কালচারাল অফিসার ইলু হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মানববন্ধন করেছে, জেলা শিল্পকলা একাডেমী। বুধবার সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরের বঙ্গবন্ধু মঞ্চের সামনে এ মানববন্ধন হয়। জেলা কালচারাল অফিসার ফারুকুর রহমান ফয়সালের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জেলা সাংস্কৃতিক জোটের সদস্য সচিব এ্যাড. রবিউল ইসলাম রবু, একতারার পরিচালক সাদরুল ইসলাম তাজ, শিক্ষক মোস্তাক হোসেনসহ অন্যরা। নামোশংকরবাটি কলেজের প্রভাষক গোলাম ফারুক মিথুনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তারা টাঙ্গাইল জেলা কালচারাল অফিসার খন্দকার রেদোয়ানা ইসলাম ইলুর হত্যাকারী তার স্বামীর দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি জানান। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

 

Bangladesh sees highest daily corona cases

Bangladesh today confirmed 52 deaths from coronavirus infection in the last 24 hours, raising the death toll to 9,046.

According to the Health authorities, 5,358 people have tested positive for coronavirus in the last 24 hours raising the total number of coronavirus cases in the country to 611,295.

This is the highest in a single day spike after the country had reported its first case on March 8 in last year.

The Directorate General of Health Services (DGHS) disclosed the update of the country’s coronavirus situation issuing a press release this afternoon.

Another 2,219 people recovered from COVID-19 through treatment at home and in hospital care in the same period, bringing the tally of recoveries to 542,399 with an 88.73% recovery rate.

Meanwhile, 26,931 samples were tested in 224 labs across the country in the past 24 hours. A total of 4,670,576 samples have been tested in the country so far.

ষষ্ঠ দফায় আরও ৪,০২১ রোহিঙ্গা গেল ভাসানচর

 

নোয়াখালীর ভাসানচরে রোহিঙ্গা স্থানান্তর প্রক্রিয়ায় ষষ্ঠ দফায় উখিয়া-টেকনাফের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে স্বেচ্ছায় ৯৮২ পরিবারের ৪০২১ রোহিঙ্গা ভাসানচরের পথে রওনা হয়েছে। এর মধ্যে মঙ্গলবার দুপুর ও বিকালে ৪৫টি বাসযোগে ২ হাজার ৯৪৫ জন রোহিঙ্গা নারী-পুরুষ ও শিশু নিয়ে উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠ থেকে চট্টগ্রামের বিএন শাহীন কলেজের ট্রানজিট ক্যাম্পের পথে রওনা হয়।

এ সময় তাদের সাথে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ৪টি গাড়ি, ৪টি অ্যাম্বুলেন্স, ৮টি প্রটেকশন গাড়ি, ৪টি খালি বাস এবং ২৩টি কার্গোভ্যান যেতে দেখা যায়।

তাদের নিয়ে আজ (বুধবার) সকাল ১০টার দিকে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ছয়টি জাহাজ ভাসানচরের পথে রওনা দেবে। এর আগে, রোববার ও সোমবার উখিয়া-টেকনাফের বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ভাসানচর যেতে ইচ্ছুক রোহিঙ্গাদের নিবন্ধন শেষে উখিয়া ডিগ্রি কলেজ মাঠের অস্থায়ী ট্রানজিট ক্যাম্পে আনা হয়।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনের অতিরিক্ত কমিশনার শামসুদ্দৌজা জানান, কয়েক ধাপে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৫ হাজারের মতো রোহিঙ্গা ভাসানচরে গিয়েছে। তবে এই দফায় আরও চার হাজারের মতো রোহিঙ্গা ভাসানচর যেতে রাজি হয়েছে। যারা যেতে ইচ্ছুক তাদের ধাপে ধাপে ভাসানচর

নেওয়া হবে। এভাবে পর্যায়ক্রমে এক লাখ রোহিঙ্গাকে নেওয়া হবে ভাসানচরে।

উলেস্নখ্য, এই প্রক্রিয়ার শুরুতে গত ৪ ও ২৯ ডিসেম্বর ৩ হাজার ৪৪৬ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে স্থানান্তর শুরু করা হয়।

১০ হাজার মানুষের অংশগ্রহণে মুজিববর্ষের লোগো

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে বরিশালে বঙ্গবন্ধুর সর্ববৃহৎ লোগো মানব প্রদর্শনী হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে এক লাখ ৫৮ হাজার স্কয়ার ফিট জায়গা জুড়ে বঙ্গবন্ধুর লোগো প্রদর্শন করে ৯ হাজার ৪শ’৮ জন মানুষ। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের আয়োজন দেখতে বরিশালের হাজার হাজার মানুষ বঙ্গবন্ধু উদ্যানে জড়ো হয়।

আয়োজক সূত্র জানায়, এটি সর্ববৃহৎ মানব লোগো। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাদ সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান জানাতে এবং নতুন প্রজন্মের মাঝে বঙ্গবন্ধুকে তুলে ধরতেই এ আয়োজন।

এ মানব লোগোটি এক হাজার ৩শ’ ৫০ ফিট দৈর্ঘ্য এবং এক হাজার ৮শ’ ফিট প্রস্থ। মানব লোগোতে বঙ্গবন্ধুর চশমার ফ্রেম করা হয়েছে ২ হাজার ৪শ’ স্কয়ার ফিট জুড়ে। এছাড়া বঙ্গবন্ধুর বাম গালের তিলক করা হয়েছে ৪৮ স্কয়ার ফিট এবং মুজিব কোর্ট করা হয়েছে এক হাজার ৯শ’ ২০ স্কয়ার ফিট জায়গা জুড়ে। প্রতিটি ১৬ বর্গফুটের প্রিন্ট করা পিভিসি কাঠের ফ্রেম তুলে ধরে ফুটিয়ে তোলা হয় এ লোগোতে। এছাড়া এ লোগো প্রদর্শনীতে বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর নাম এবং সিটি কর্পোরেশনের শ্লোগান ‘আমরাই গড়ব আগামীর বরিশাল’ যুক্ত করা হয়েছে।

সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র গাজী নঈমুল হোসেন লিটু জানান, বরিশাল সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর পরিকল্পনায় মানব লোগো প্রদর্শনের আয়োজন করা হয়েছে। এ আয়োজনটি নিঃসন্দেহে বরিশালবাসীর জন্য গর্বের। আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন ছাড়াও সামাজিক – সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতা-কর্মীরা এই লোগো প্রদর্শনে অংশগ্রহণ করেছে। তিনি জানান, গত এক মাস ধরে প্রায় দুই হাজার শ্রমিক নগরীর বঙ্গবন্ধু উদ্যানে লোগো প্রস্তুতিতে দিন-রাত শ্রম দিয়েছেন। এদিকে মানব লোগো প্রদর্শনীর পূর্বে বঙ্গবন্ধু উদ্যানে দেশাত্মবোধক গান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

মেড ইন বাংলাদেশ ১৬৭ দেশে

আশির দশকের শেষদিকে মাত্র গুটিকয়েক কারখানায় মেশিন নিয়ে কাজ শুরু করেন উদ্যোক্তারা। রপ্তানি করেন মাত্র ১২ হাজার ডলার মূল্যের পোশাকপণ্য। সেখান থেকে আর পেছনে ফিরতে হয়নি তৈরি পোশাকশিল্প উদ্যোক্তাদের। একের পর এক বাড়তে থাকে কারখানা ও মেশিন। বাড়তে থাকে শ্রমিক ও রপ্তানি। আজ দ্বিতীয় বৃহত্তম রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে পৃথিবীর বুকে অবস্থান করছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) ১৬ শতাংশ পূরণ করে তৈরি পোশাক খাত। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে প্রায় ৩৪ বিলিয়ন ডলার রপ্তানির মাইলফলক স্পর্শ করেছে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্প। শিল্পের সঙ্গে শ্রমিক যুক্ত হয়েছেন ৪০ লাখ। এর মধ্যে নারী শ্রমিকই রয়েছেন ২৫ লাখ। বিশ্বের ১৬৭টি দেশে যাচ্ছে ‘মেইড ইন বাংলাদেশের’ তৈরি পোশাক।

শিল্পোদ্যোক্তারা জানান, শ্রমিকদের নিরন্তর পরিশ্রমের ফসল আজ তৈরি পোশাক বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে। জাতীয় রপ্তানি আয়ের ৮৩ শতাংশই আসে এই তৈরি পোশাক খাত থেকে। এ শিল্প খাতে বিনিয়োগ হয়েছে প্রায় ২০ বিলিয়ন ডলার। এ শিল্প স্থাপনের মাধ্যমে শুধু পিছিয়ে পড়া নারীদের ব্যাপক কর্মসস্থানই নয়, সমাজে তাদের সম্মানজনক অবস্থান তৈরির ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এনেছে। অর্থনৈতিক মুক্তির পাশাপাশি তারা নিজের ব্যাপারেও অনেক সচেতন হচ্ছেন।

জানা গেছে, জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) ২০২০ সালের দ্য হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট প্রতিবেদন অনুযায়ী, দক্ষিণ এশিয়ার আটটি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ পঞ্চম অবস্থানে আছে। মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল বা সহস্রাব্দের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশ

জাতিসংঘের ভাষাতে ‘রোল মডেল’ হিসেবে অনুসরণীয় সাফল্য দেখিয়েছে। শিশুমৃত্যুহার হ্রাস, মাতৃস্বাস্থ্যের উন্নয়ন, সর্বজনীন প্রাথমিক শিক্ষা অর্জন, জেন্ডার সমতা অর্জন এবং নারীর ক্ষমতায়নসহ সব লক্ষ্য পূরণেই পোশাকশিল্প নীরব সৈনিকরূপে সহায়কের ভূমিকা পালন করেছে। শুধু তাই নয়, বিগত এক দশকে সবুজ শিল্পায়নে পোশাক খাত অসাধারণ সফলতা দেখিয়েছে।

জানা গেছে, দেশে বর্তমানে লিড সার্টিফাইড গ্রীন পোশাক কারখানার সংখ্যা প্রায় ১৩৫টি। এর মধ্যে ৩৯টি প্লাটিনাম মানের। বিশ্বের প্রথম সারির ১০টি সবুজ কারখানার মধ্যে ৬টি বাংলাদেশে অবস্থিত। আরও প্রায় ৫শটি কারখানা লিড সনদের জন্য আবেদন করেছে।

উদ্যোক্তারা বলছেন, শ্রমিকের অধিকার, সোশ্যাল কমপ্লায়েন্স এবং কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিশ্বে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। কিছু দুর্ঘটনার মাধ্যমে দেশের তৈরি পোশাকশিল্পের অভ্যন্তরীণ কিছু দুর্বলতা উন্মোচিত হয়েছে। জাতীয় পর্যায়ে আরএমজি সাসটেইনেবিলিটি কাউন্সিল প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। যার মাধ্যমে ক্রেতা, শ্রমিক, সরকার এবং শিল্পোদ্যোক্তারা এক প্ল্যাটফরমে একত্রিত হয়েছেন।

তৈরি পোশাকশিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএর সভাপতি ড. রুবানা হক আমাদের সময়কে বলেন, ‘গো হিউম্যান, গো গ্রিন’- এ মূলমন্ত্রকে সামনে রেখে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০তম বার্ষিকী এবং জাতির পিতার ১০০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে বিজিএমইএ সরকারের এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ৭টি প্রতিশ্রুতি পূরণে কাজ করে যাচ্ছে। পোশাকশিল্পের প্রাণ যে শ্রমিক ভাইবোনেরা তাদের সহায়তা করা, সেই সাথে আর্থসামাজিকভাবে উন্নত জীবন ও ভবিষ্যৎ গড়ে তোলাই এসব প্রতিশ্রুতির মূল লক্ষ্য।

তিনি জানান, বর্তমানে মোট ৭০ নারীকর্মী সংশ্লিষ্ট কারখানার সহায়তায় চট্টগ্রামের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ প্রোগ্রামের অধীনে স্নাতক পর্যায়ে অধ্যয়নরত রয়েছেন। যেসব শ্রমিক ভাইবোনদের সন্তানেরা কারখানার ডে কেয়ার সেন্টারে পুরো দিন কাটায়, তাদের অনলাইন শিক্ষা প্রদানের জন্য বিজিএমইএ এবং জাগো ফাউন্ডেশন যৌথ উদ্যোগে অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা শিল্পকে একটি নতুন দিকনির্দেশনা দেওয়ার চেষ্টা করছি। প্রথাগত ব্যবসা এবং পণ্য থেকে বেরিয়ে বাজার ও পন্য বহুমুখীকরণ, সর্বোপরি শিল্পখাত বহুমুখীকরণের ওপর আমরা গুরুত্বের সাথে কাজ করছি। নিরাপত্তা এবং সবুজ শিল্পায়নের পাশাপাশি কারখানাগুলো এখন চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করছে, সার্কুলার ফ্যাশনের ক্ষেত্রে কারখানাগুলো আরও সচেতন হচ্ছে।

মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা

ঢাকা: এবার মোটরসাইকেলে যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।

বুধবার (৩১ মার্চ) বিআরটিএর উপপরিচালক (প্রকৌশল শাখা) বিমলেন্দু চাকমা স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে বিষয়টি জানানো হয়। আদেশে বলা হয়েছে, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত (আপাতত দুই সপ্তাহ) রাইড শেয়ারিং সার্ভিসে মোটরসাইকেলের মাধ্যমে যাত্রী পরিবহনে নিষেধাজ্ঞাসহ অন্য মোটরযানে যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে সরকারের উপরোক্ত নির্দেশনা কঠোরভাবে অনুসরণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

এছাড়া গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের নির্দেশনাও দিয়েছে বিআরটিএ।

১ ও ৭ এপ্রিল রাতে টেলিযোগাযোগ সেবা বিঘ্নিত হতে পারে

ঢাকা: মোবাইল অপারেটরদের তরঙ্গ পুনর্বিন্যাসের কারণে ১ ও ৭ এপ্রিল রাতে টেলিযোগাযোগ সেবা বিঘ্নিত হতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

বুধবার (৩১ মার্চ) বিটিআরসি এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, প্রথম ধাপে ১ এপ্রিল রাত ১১টা থেকে ২ এপ্রিল সকাল ৭টা পর্যন্ত এবং দ্বিতীয় ধাপে ৭ এপ্রিল রাত ১১টা থেকে ৮ এপ্রিল সকাল ৭টা পর্যন্ত টেলিযোগাযোগ সেবা বিঘ্নিত হতে পারে। বিটিআরসি জানায়, গত ৮ মার্চ নিলামের মাধ্যমে ১৮শ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে ৭.৪ মেগাহার্টজ এবং ২১শ মেগাহার্টজ ব্যান্ডে ২০ মেগাহার্টজসহ সর্বমোট ২৭.৪ মেগাহার্টজ তরঙ্গ গ্রামীণফোন, রবি ও বাংলালিংক ডিজিটাল কমিউনিকেশনস লিমিটেডকে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ফলে আগে বরাদ্দ করা তরঙ্গের সঙ্গে নিলামে বরাদ্দ নতুন তরঙ্গ একত্রীকরণ করতে গিয়ে তরঙ্গ পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে।

‘যার কারণে প্রথম ধাপে ১ থেকে ২ এপ্রিল ১৮শ মেগাহার্জ ব্যান্ড এবং ৭ থেকে ৮ এপ্রিল ২১শ মেগাহার্টজ ব্যান্ডের তরঙ্গ পরিবর্তনজনিত কার্যক্রমের জন্য প্রতিদিন নির্দিষ্ট কিছু সময়ে মোবাইল নেটওয়ার্ক সেবায় সাময়িক বিঘ্ন ঘটতে পারে। ’

গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার জন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে বিটিআরসি।

ভোলাহাটে রেশম প্রযুক্তির উন্নয়নে দিনব্যাপী সেমিনার

ভোলাহাট(চাঁপাইনবাবগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ ভোলাহাটে বাংলাদেশ রেশম গবেষণা প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট রাজশাহী ও বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড আয়োজিত ভোলাহাট রেশম নার্সারি চত্বরে দিনব্যাপী সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। ৩১ মার্চ বুধবার সকাল ১০টার দিকে বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড রাজশাহীর মহাপরিচালক আবদুল হাকিমের সভাপতিত্বে রেশম প্রযুক্তি উন্নয়ন, বিস্তার ও দক্ষ জনশক্তি সৃষ্টির মাধ্যমে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধিকরণ শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় আয়োজিত দিনব্যাপি সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় প্রধান অতিথি ছিলেন, বস্ত্র ও পাঠ মন্ত্রণালয়ের (পরিকল্পনা অনুবিভাগে) এনডিসি, যুগ্মসচিব অলিউল্লাহ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বাবেউবো রাজশাহীর (গবেষণা ও প্রশিক্ষণ)পরিচালক (যুগ্মসচিব) এ.কে.এম আমিরুল ইসলাম, বাবেউবো রাজশাহীর(অর্থ ও পরিকল্পনা) পরিচালক এম.এ মান্নান, বাবেউবো রাজশাহীর (প্রশাসন) পরিচালক সৈয়দ মোস্তাক হাসান, বাবেউবো রাজশাহীর(উৎপাদন ও বিপণন) পরিচালক নাসিমা খাতুন, ভোলাহাট উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রাব্বুল হোসেন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মশিউর রহমান। এ সময় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনা করেন, বাবেউবো রাজশাহীর(সম্প্রসারণ) পরিচালক এমদাদুল বারী ও বাবেউবো রাজশাহীর ও সিনিয়র সায়েন্টিফিক অফিসার সাখাওয়াত হোসেন। সেমিনারে উপজেলার রেশম চাষিরা উপস্থিত ছিলেন।

ক্যান্সারে আক্রান্ত ৬ বছরের শিশু সাগর বাঁচতে চাই

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:
৬ বছরের শিশু সাগর, পরিবারের ২ ভাই ও ১ বোনের মধ্যে সে ছোট। চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার আলীনগর ইউনিয়নের নাদিরাবাদ গ্রামের বাবলু হোসেনের ছেলে। ৩ বছর বয়সে সাগরের পেটে ব্যথা শুরু, এ পেট ব্যথা থেকে ধীরে ধীরে সমস্ত শরীর ফুলে যায়। চিকিৎসা করতে ধরা পড়ে মরণব্যাধি ক্যান্সার। এ রোগের খবর শুনতে পরিবারে মাঝে নেমে আসে অন্ধকারের ছাপ। ভ্যানে ফেরিওয়ালা করে বিভিন্ন এলাকায় ডাব,আনারস,কলা তরমুজ ইত্যাদি ঘুরে ঘুরে বিক্রি করে সাগরের পিতা বাবুল হোসেন। পিতার পক্ষে এ রোগের চিকিৎসা করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। প্রধানমন্ত্রীসহ দেশ-বিদেশের বিত্তবান ব্যক্তিদের সহযোগিতা কামনা করেছেন অসহায় পরিবারটি।
সাগরের পিতা বাবলু হোসেন জানান, ছেলের ৩ বছর বয়স থেকে এ রোগের লক্ষন শুরু হয়। পেট ব্যথা শুরু হয়ে আস্তে আস্তে সমস্ত শরীর ফুলে যেতে থাকে। স্থানীয় ডাক্তারে কাছে চিকিৎসা করানো হয়। কোন সুফল না পেয়ে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানকার ডাক্তাররা ছেলেকে দেখে বিভিন্ন ধরনের টেস্ট করতে দেয়। পরে টেস্টের রেজাল্ট দেখে তাকে ডাক্তাররা জানায় সাগর ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত হয়েছে । সে সময় ডাক্তারের পরামর্শে ঔষধপাতি খাওয়ানো হলেও ভাল হচ্ছিলনা সাগর। খরচ হচ্ছিল ব্যয়বহুল। ভাল না হওয়ায় একজনের পরামর্শে ছেলেকে রাজশাহী কোর্ট স্টেশনে একটি হোমিও প্যাথিক চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে যায়। সেখানকার ঔষধ খেয়ে কিছুটা সুস্থ্যতা বোধ করে। তবে গত ৪ মাস থেকে ছেলের অসুখ বেড়ে যেতে থাকলে আবারও তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে নিয়ে যাওয়া হয়। কর্তব্যরত ডাক্তাররা ক্যান্সারে আক্রান্ত ছেলের অবস্থা দেখে ভাল না বলে। কিন্তু পিতা হয়ে থেমে থাকতে পারাছিনা। সন্তানের আর্তনাদ শুনে দ্বারে-দ্বারে,পথে-পথে ঘুরছি ভাল চিকিৎসার করার জন্য । রোগে আক্রান্ত সাগর স্বাভাবিক ভাবে খেতে পারছেনা । ৪ মাস আগে তার ডান পাশের চোখের মণি নষ্ট হয়ে গেছে। ১৫দিন পর আরেকটি চোখ নষ্ট হয়ে গেছে। ছেলের জন্য এনজিও থেকে ৯৫ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে চিকিৎসা করেছি। ভ্রাম্যমাণ ব্যবসা করে দিন আনি দিন খাই। ভ্যান গাড়িতে ডাব,কলা ও আনারস বিক্রি করে যে টাকা পায় তা দিয়ে পরিবারের সংসার ও ছেলের চিকিৎসা করায়। অভাব অনটনের সংসার নিয়ে ছেলের চিকিৎসার খরচ করতে হিমসিম খাচ্ছিলাম তখন চাচাতো ভাই ওবাইদুল্লাহ্ চিকিৎসার জন্য ৩০ হাজার টাকা দেয়। খরচ করতে আর পারছি না। ইউপি সদস্য ও চেয়ারম্যান এর কাছে হাত পেতেও কোনো সাড়া পাইনি। প্রতিদিন ছেলের জন্য চারশত টাকা খরচ লাগছে। কি করে এই খরচ চালাবো? সেই দুশ্চিন্তায় আমার দিন পার হচ্ছে। ভিটেমাটি ছাড়া আর কোনো সম্বল নেই তার ।
সাগরের মা কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, হামার ২টি ব্যাটা ও একটি মেয়ে। সাগর হামার শেষ ব্যাটা। হামি তাকে খুব আদর করে মানুষ করেছি। কি-গেই-নে-যে আল্লাহ হামাকে এতো বড় শাস্তি দিল। হামি কি আর করবো। হামি ব্যাটার সাথে ভালো করে ঘুমাতে পারিনা। তার যখন যেটা দরকার বলছে, তখন সেটা করতে হচ্ছে। মা চলো আমাকে হেঁটে নিয়ে বেড়াও, মা আমাকে খেতে দাও, ওটা সেটা খেতে দাও তখন সেটা হামাকে খেতে ও করে দিতে হচ্ছে। এমন কি হামি যখন রান্না করি তখনই তাকে কোলে নিয়ে রান্না করি। কষ্ট হামি আর কত সহ্য করব, আল্লাহ তুমি একটা কিছু করো। হামার বাচ্চাটার দিগে যদি প্রধানমন্ত্রী একটু দেখতো তা হলে হয়তোবা হামার ব্যাটাটার ভালো চিকিৎসা করে স্বাভাবিক জীবন ফিরে পাইতো।
এ বিষয়ে গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা মাসুদ পারভেজ এর সাথে কথা বলে জানা যায়, ক্যান্সার নিরূপণের জন্য ছয় বছরের আক্রান্ত শিশুটিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নেওয়ার পরামর্শ প্রদান করা হয়েছে। যদি কোন সহ্নদবান ব্যাক্তি সহযোগিতা হাত বাড়তে চান, তাহলে নি¤েœ বিকাশ,নগদ, রকেট পার্সোনাল নম্বর ঃ ০১৭৫০২৩৩৩৮৪। এছাড়া মোঃ বাবলু, হিসাব নং- ৪৭০৭৬০১০১০৮৬০, সোনালী ব্যাংক, রহনপুর শাখা,চাঁপাইনবাবগঞ্জ।