সর্বশেষ সংবাদ আলজাজিরার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হল খুলতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো পাবে ৫০ কোটি টাকা ১ কোটি ৯ লাখ ৮ হাজার ডোজ টিকা পাচ্ছে বাংলাদেশ ঐশ্বরিয়া পাকিস্তানে! তীব্র বাতাসে ও গরমে কক্সবাজারে আর্চারিরা 18 anti-tank rockets recovered from Satchhari 6 killed as Myanmar security forces fire at protesters Bangladesh reports 5 deaths পাপুলের আসনে ভোট ১১ এপ্রিল ভোলাহাটের সব স্কুল এখন স্ক্যানার থার্মোমিটার দৃশ্যমান

১৬ই ডিসেম্বরের মধ্যে রাজাকারদের সম্পূর্ণ তালিকা প্রকাশ

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এমপি বলেছেন, ১৬ই ডিসেম্বরের মধ্যে রাজাকারদের সম্পূর্ণ তালিকা প্রকাশ করা হবে। ২৬শে মার্চ মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।

তিনি শনিবার গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ঘর বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদেও প্রশ্নের উত্তরে এসব কথা বলেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ মোহসীন,গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলাম, গাজীপুরে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মশিউর রহমান, কালিয়াকৈর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী হাফিজুল আমিন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন সিকদার, উপজেলা সহকারী কমিশনারভূমি আদনান চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম আজাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুরাদ কবির, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাসেল, কালিয়াকৈর পৌরসভার মেয়র মজিবুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আহমদ রেজা আলমামুন, উপজেলা পল্পী উন্নয়ন কর্মকর্তা আব্দুস সাত্তারসহ প্রমুখ।

আন্তর্জাতিক মানের হচ্ছে মাদ্রাসা শিক্ষা

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মাদ্রাসা শিক্ষার বৈপ্লবিক পরিবর্তনের জন্য সর্বপ্রথম পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। যার ধারাবাহিকতায় মাদ্রাসা শিক্ষাকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করতে কাজ করছে সরকার। প্রধানমন্ত্রীর একান্ত প্রচেষ্টায় সারাদেশে ৬ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ১ হাজার ৮০০ মাদ্রাসা বিল্ডিং তৈরির কাজ চলছে।
গতকাল শনিবার চট্টগ্রাম মহানগর মাদ্রাসা শিক্ষক ও ছাত্র পরিষদের উদ্যোগে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে মাদ্রাসা প্রধানদের সঙ্গে মাদরাসা শিক্ষার মান উন্নয়ন নিয়ে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে মাদ্রাসা শিক্ষাকে যাতে আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষার সাথে মোটামুটি তুলনামূলক একটা অবস্থানে নিয়ে আসা যায় সে জন্য কাজ করতে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন। সেই লক্ষ্যেই কাজ করছি আমরা। উপমন্ত্রী মতবিনিময় সভায় মাদরাসা শিক্ষার সঙ্গে জড়িত বিভিন্ন সমস্যার কথা শুনেন এবং সমস্যা সমূহ দ্রুত সমাধানের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশ্বস্ত করেন।
জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরসার প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ অছিউর রহমানের সভাপতিত্বে এবং দারুল উলুম কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মোহাম্মদ মহসিন ভূঁইয়ার সঞ্চালনায় মতবিনিময় সভায় বায়তুশ শরফ আদর্শ কামিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আমিনুল ইসলাম, পতেঙ্গা ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা ছলিম উল্লাহ, আহমদিয়া করিমিয়া সুন্নিয়া ফাজিল মাদরাসার প্রিন্সিপাল ড. মুহাম্মদ সরোয়ার উদ্দিন, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ ড. মুহাম্মদ লিয়াকত আলী বক্তব্য দেন।

২৭ জানুয়ারি রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে প্রথম যে টিকা দিবেন

আগামী ২৭ জানুয়ারি রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের একজন নার্সকে করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়ার মাধ্যমে প্রাথমিক টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি ভার্চুয়ালি এই কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন।

শনিবার রাজধানীর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব কিডনি ডিজিজেস অ্যান্ড ইউরোলজি পরিদর্শনকালে স্বাস্থ্যসচিব আবদুল মান্নান এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, ২৭ জানুয়ারি প্রথমে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের একজন নার্সকে করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে।

এছাড়াও ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল, মুগদা জেনারেল হাসপাতাল, কুয়েত মৈত্রী হাসপাতাল ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে টিকা দেওয়া হবে।

শুরুতে ফেব্রুয়ারির প্রথম ভাগে টিকাদান শুরুর পরিকল্পনা হলেও টিকা আগে পাওয়ায় প্রয়োগের সময়ও এগিয়ে আনা হল।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের মুম্বাই থেকে টিকাবাহী একটি বিমান ঢাকায় আসে। অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার এ টিকা বাংলাদেশকে উপহার হিসেবে দেয় ভারত সরকার।

ভারতে এই টিকার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া তেমন দেখা না গেলেও সতর্কতা হিসেবে শুরুতে ৪০০-৫০০ জনকে দিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখতে চায় সরকার

এবার ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেন হচ্ছে

নানা জটিলতা কাটিয়ে অবশেষে আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেন প্রকল্প। আগামী একনেক সভায় প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য উপস্থাপিত হতে পারে। অনুমোদন পেলে এ প্রকল্প নিয়ে দীর্ঘদিনের অনিশ্চয়তাও কেটে যাবে। ইতিমধ্যে প্রকল্পের পূর্ণাঙ্গ নকশা চূড়ান্তের কাজ শেষ হয়েছে। প্রায় ১৭ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটিতে অর্থায়ন করবে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি)। অর্থায়ন থাকবে সরকারেরও। সংশ্লিষ্টরা আশা করছেন আগামী জুলাইয়ে এ প্রকল্পের দৃশ্যমান কাজ শুরু হবে। সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করা নিয়ে দীর্ঘ জটিলতার অবসান ঘটেছে। পরিকল্পনা বিভাগ থেকে প্রকল্পের বেশ কিছু বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছিল। তা চূড়ান্ত করে ইতিমধ্যে ডিপিপির চূড়ান্ত খসড়া পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন তা অনুমোদনের জন্য একনেকে উঠবে। মন্ত্রণালয়সূত্র জানান, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ককে চার লেনে উন্নীত করতে মূল কাজে অর্থাৎ সড়ক, সেতু, কালভার্ট, ওভারপাস, আন্ডারপাস, ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণকাজে ব্যয় হবে ১৬ হাজার ৯১৮ কোটি টাকা। তিন বছর মেয়াদি এ প্রকল্পে অর্থায়ন করছে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক (এডিবি)। এ প্রকল্পের জন্য ৯৮৭ একর জমি অধিগ্রহণ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে জমি অধিগ্রহণের জন্য সরকার আলাদা করে ১ হাজার ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরুও হয়েছে। জানা গেছে, সড়ক ও জনপথ বিভাগ ইতিমধ্যে প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণের জন্য সাতটি জোনের মধ্যে পাঁচটির প্রস্তাব তৈরি করেছে। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কটি সাত জেলার ওপর দিয়ে নির্মাণ হবে। এ কারণে প্রতিটি জেলাকে একটি জোন ধরে সাতটি প্রস্তাব তৈরি করে জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হয়েছে। জমি অধিগ্রহণের অর্থায়নের পুরোটাই ব্যয় হবে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে। সড়ক বিভাগ জানায়, ঢাকা-সিলেট মহাসড়ককে চার লেনে উন্নীত করার কাজ শুরু হওয়ার কথা ছিল গত বছরের জানুয়ারিতে। কিন্তু নানা জটিলতায় ডিপিপি চূড়ান্ত করতে লম্বা সময় লেগে যায়। সড়ক ও জনপথ অধিদফতর ডিপিপি তৈরি করে তা একনেকের অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর পর সেখান থেকে দফায় দফায় প্রকল্পের     বিভিন্ন বিষয়ে আরও যাচাই-বাছাইয়ের জন্য ফেরত পাঠায়। অবশেষে সবকিছু ঠিক করে ডিপিপির খসড়া চূড়ান্ত করে একনেকের অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। সড়ক ও জনপথ (সওজ) অধিদফতর সূত্র জানিয়েছেন, প্রকল্পের ডিপিপি ও নকশা আপডেটের কাজ শেষ করে এডিবির কাছে পাঠানো হলে তারা খসড়া ডিপিপির বিষয়ে চূড়ান্ত মতামত দিয়েছে। আশা করা হচ্ছে, আগামী একনেক বৈঠকে ডিপিপিটি উত্থাপন করা হবে।

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ২১০ কিলোমিটার চার লেন প্রকল্পে থাকবে মহাসড়কের দুই পাশে দুটি সার্ভিস লেন। নির্মাণ হবে ছয়টি রেল ওভারপাস। এ ছাড়া বেশ কিছু আন্ডারপাস থাকবে। মহাসড়কের দুই পাশে দেওয়া হবে বেষ্টনী। যাতে সাধারণ মানুষ, গবাদি পশু সড়কে উঠতে না পারে। একই সঙ্গে নির্দিষ্ট স্থান ছাড়া সার্ভিস লেনের কোনো যানবাহন যেন মূল সড়কে উঠতে না পারে। ইউটার্ন থাকবে নির্দিষ্ট দূরত্বে। বিশেষ করে বাজার ও আরবান এলাকায় যেখানে জনবসতি আছে সেসব স্থান চিহ্নিত করে নির্মাণ করা হবে ইউটার্ন। এ প্রথমবারের মতো দেশের কোনো মহাসড়ক নির্মাণে ব্যবহার করা হবে পলিমার মটিফাইড বিটুমিন। যার ফলে সড়ক হবে টেকসই ও দীর্ঘস্থায়ী। প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন পাওয়ার পর প্রকল্পের দরপত্র আহ্বান করা হবে। মোট ১৩টি প্যাকেজে প্রকল্পের পূর্তকাজ সম্পন্ন হবে। আগামী জুলাইয়ে প্রকল্পের দৃশ্যমান কাজ শুরু হবে বলে আশা করছেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা

সোনামসজিদ বন্দর দিয়ে চাল আমদানি ১২১৬ মে.টন

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:
ভরা মৌসুমেও দেশে চালের বাজারে অস্থিরতা বিরাজ করছে। এমন সময় দেশের সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে ভারত থেকে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বাজার স্বাভাবিক রাখতে এক হাজার ২১৬ টন চাল আসার মাধ্যমে সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শনিবার পর্যন্ত টানা তিন দিনে ৩১ ট্রাকে এক হাজার ২১৬ টন চাল আমদানি হয়েছে। পানামা সোনামসজিদ পোর্ট লিংক লিমিটেডের ম্যানেজার (অপারেশন) কামাল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, গেল তিন দিনে মেসার্স তাসনিম এন্টারপ্রাইজ, নজরুল অটো রাইস মিল ও মেসার্স ঘোষ এন্টারপ্রাইজ এক হাজার ২১৬ টন চাল আমদানি করেছে। চালগুলোর মধ্যে রয়েছে- নন বাঁশমতি, স্বর্ণা, রতœাসহ আউস চাল। এর আগে সোনামসজিদ কাস্টমস শুল্ক স্টেশন থেকে ছাড়করণের পর চালভর্তি ভারতীয় ট্রাকগুলো পানামা ইয়ার্ডের ভেতরে প্রবেশ করে। প্রথম দিন বৃহস্পতিবার পাঁচটি ভারতীয় চালভর্তি ট্রাক প্রবেশ করে। এর পর ২৪টি ও তৃতীয় দিন শনিবার দুটি ভারতীয় চালভর্তি ট্রাক ইয়ার্ডের ভেতরে প্রবেশ করে। আশা করছি অন্য আমদানিকারকদের আমদানিকৃত চাল দু-একদিনের মধ্যে বন্দরে প্রবেশ করবে। আর চাল আমদানি শুরু হলে ও সঠিক সময়ে দেশের বিভিন্ন মোকামে আমদানি করা চাল সরবরাহ করতে পারলে দেশের বাজারে চালের দাম কমে আসতে শুরু করবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবী নারী সংগঠনের উদ্বোধন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবী নারী সংগঠন “ওয়েল ফেয়ার ক্লাব” এর শুভ উদ্বোধন হয়েছে।
আজ রবিবার সকাল ১১ টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ টাউন ক্লাবের হলরুমে ওয়েল ফেয়ার ক্লাবের আহ্বায়ক সেলিনা বিশ্বাসের সভাপতিত্বে পরিচিতি সভা ও আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।” জনকল্যাণে আমরা” এ স্লোগানকে সামনে নিয়ে জেলার নারী সমাজ কে নিয়ে জনকল্যাণে কাজ করার প্রত্যয় নিয়ে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে ওয়েল ফেয়ার ক্লাব।পরিচিতি সভায় উপস্থিত থেকে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্লাবের আহ্বায়ক সেলিনা বিশ্বাস, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন আখতার,নাজনীন হাসান, রোজিনা বেগম,ইউনাইটেড স্কুলের সমন্বয় কারি নাহিদা আক্তার দীপা,বালিয়াডাঙ্গা উচ্চবিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শেফালী খাতুন।অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন নবাবগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহনাজ বেগম প্রমূখ।অনুষ্ঠান শেষে ওয়েল ফেয়ার ক্লাবের শুভ উদ্বোধনের কেক কাটা হয়।

বিভিন্ন দাবীতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিক্ষকদের মানববন্ধন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি
বাংলাদেশ প্রার্থমিক শিক্ষক  কল্যাণ সমিতির বিভিন্ন দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান করেছে সংগঠনটির চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখা। 
রবিবার (২৪ জানুয়ারী)  সকাল ১১টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে জেলা প্রার্থমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতির উদ্যোগে এ মানববন্ধন অনুষ্ওঠিত হয়।পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।
সমিতির আহব্বায়ক মোঃ লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সমিতির যুগ্ম আহ্বায়ক মোঃ সাদিকুল ইসলাম সহ বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক বৃন্দ।
দাবিগুলো হলো অর্থ মন্ত্রণালয়ের ১২ আগষ্ট ২০২০ তারিখের পত্রটি প্রত্যাহার পূর্বক অধিগ্রহণকৃত বেসরকারি প্রার্থমিক বিদ্যালয়ের চাকুরির শর্তাদি নির্ধারণ বিধিমালার বর্ণিত ৫০℅ কার্যকর, চাকুরী কালের ভিত্তিতে টাইম স্কেল সহ অন্যান্য আর্থিক সুবিধাদি বহাল রাখা , চাকুরী কালের ভিত্তিতে জোষ্ঠতা, পদন্নোতির সুযোগ   সহ ম্যানেজিং কমিটি কতৃক প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকগণকে সরকারি ভাবে গেজেট ভুক্ত করা।
মানববন্ধন শেষে সংগঠেনর পক্ষ থেকে একটি স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।