সর্বশেষ সংবাদ অপরাধীদের দিন শেষঃ তৈরী হচ্ছে জাতীয় ডিএনএ ডাটাবেজ’ গণভবন থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে বহু প্রতিক্ষীত রেলসেতুর নির্মাণকাজের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী করোনাযোদ্ধাদের কোয়ারেন্টিন’ ভাতা পাওয়া শুরু গোমস্তাপুরে সাবেক ছাত্র নেতা সুমনের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে ২ বাংলাদেশীকে ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ অন্যের ট্রাক থেকে তেল চুরি করতে গিয়ে আটক ৪ বঙ্গবন্ধুর ভার্স্কয নিয়ে কটুক্তির প্রতিবাদে চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবকলীগের মানববন্ধন পদ্মা সেতুতে বসল ৩৯তম স্প্যান ঃ আর বসবে মাত্র দুটি স্প্যান র‌্যাংকিংয়ে সুখবর বয়ে আনল বাংলাদেশ ফুটবল দল তিন ব্যাংক তালিকাভুক্ত হচ্ছে শেয়ারবাজারে

মাছে করোনা! আমদানি নিষিদ্ধ করলো চীন


ভারত থেকে আমদানি করা হিমায়িত সামুদ্রিক মাছে করোনা ভাইরাস পেয়েছে চীন। এ ঘটনায় ভারত থেকে মাছ আমদানি নিষিদ্ধ করেছে দেশটি।

প্রতি বছর ভারতের ব্যবসায়ীরা চীনে কোটি কোটি ডলারের সামুদ্রিক মাছ ও খাবার রপ্তানি করে থাকে।

এমন ঘটনায় ভারতের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়বে। একই সঙ্গে তাদের ব্যবসায়ীক সুনামে আসবে বড় আঘাত।

শুক্রবার চীনের শুল্ক অফিস জানিয়েছে, ভারতের বাসু ইন্টারন্যাশনাল নামে একটি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে আগামী এক সপ্তাহ সব ধরনের মাছ আমদানি বন্ধ থাকবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, সম্প্রতি ভারতীয় প্রতিষ্ঠানটির পাঠানো হিমায়িত কাটলফিশের (এক প্রজাতির সামুদ্রিক মাছ) তিনটি নমুনা পরীক্ষায় করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়। এর পরপরই তাদের কাছ থেকে আমদানি নিষিদ্ধ করলো চীনা কর্তৃপক্ষ।

ইন্ডিয়ামার্টের তথ্যমতে, ভারতের অন্যতম বৃহত্তম সামুদ্রিক খাদ্য রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান বাসু ইন্টারন্যাশনাল। কলকাতাভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম শুরু হয়েছিল ২০০২ সালে।

তারা সাধারণত তাজা ও হিমায়িত দুই ধরনেরই সামুদ্রিক মাছ, কাঁকড়া, ঝিনুক, ইল প্রভৃতি রপ্তানি করে থাকে।

চীন ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, কোরিয়া, ভিয়েতনাম, মালয়েশিয়ায় সামুদ্রিক খাবার রপ্তানি করে বাসু ইন্টারন্যাশনাল।

তবে এক সপ্তাহ পর চীন এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া ইঙ্গিত দিয়েছে।

রহনপুর পৌর মেয়রের সভা অনুষ্ঠিত

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
আসন্ন রহনপুর পৌরসভা নির্বাচনে রহনপুর পৌর মেয়র তারেক আহমেদ এর উদ্যোগে নাগরিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। শনিবার বিকালে রহনপুর মহিলা কলেজে অনুষ্ঠিত নাগরিক সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম। সভায় সভাপতিত্ব করেন গোমস্তাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুস সালাম তুহিন। বক্তব্য রাখেন রহনপুর পৌরসভার মেয়র তারিক আহমদ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবুল কাশেম মোহাম্মদ মাসুম, গোমস্তাপুর উপজেলার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোখতারুল হক সুমন,সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নেসা বাবলি, বিএনপির প্রবীণ নেতা আব্দুল মতিন, সাবেক ছাত্রনেতা বদরুজ্জামান দোয়েল, সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। পৌর মেয়র তার বক্তব্যে বলেন পৌরসভার এই ৫বছরে তিনি প্রতিটি ওয়ার্ডে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন এবং আগামী নির্বাচনে আবারো তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে অসমাপ্ত কাজগুলো বাস্তবায়ন করবে।

গোমস্তাপুরে বাংলাদেশ কংগ্রেস দলে যোগদান ডাঃ জোহনার

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
বাংলাদেশ কংগ্রেস দলে যোগদান করলেন ডাঃ জোহনা  খাতুন (ফ্রেডড্রীক)।শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টায় রহনপুর ইউসুফ আলী সরকারি কলেজ সংলগ্ন মডেল মসজিদ চত্বরে এক  অনুষ্ঠানে তিনি যোগদান করেন। যোগদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কংগ্রেস চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা  সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এমদাদুল হক বাদশা।রহনপুর পৌর সভাপতি ডাঃ শুকুর উদ্দিন কালু, রহনপুর ৭নং ওয়ার্ড সহ-সভাপতি সাহেব আলী, উপজেলা সভাপতি আইয়ুব হোসেন শাহাব, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল হাবিব, আবুল কালাম মাস্টার প্রমূখ।

পর্যটকদের জন্য হোম স্টে সার্ভিস চালুর উদ্যোগ

দেশব্যাপী দুর্গম এলাকায় নিরাপদে ও স্বল্প খরচে পারিবারিক পরিবেশে আবাসিক সুবিধাসম্পন্ন হোম স্টে সার্ভিস চালুর উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। মূলত চড়া মূল্যে হোটেল মোটেলে থাকার বিকল্প হিসেবে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। দেশব্যাপী পর্যটন শিল্প বিকাশে হোম স্টে সার্ভিস কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জানা গেছে, করোনা তান্ডব পরিস্থিতিতে এই উদ্যোগ নেয়া হলেও স্বাভাবিক সময়েও তা অব্যাহত থাকবে। ট্যুরিজম বোর্ড জানিয়েছে, বর্তমানে দেশের প্রান্তিক ও দুর্গম এলাকায় গুরত্বপূর্ণ পর্যটন স্পটগুলোতে পর্যটকদের থাকার কোন ব্যবস্থা নেই। এই অভিযোগ দীর্ঘদিনের। এ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই ট্যুরিজম বিশেষজ্ঞরা মতামত জানিয়ে আসছেন। এ অবস্থায় বেশ গুরুত্ব দিয়েই সারাদেশের পর্যটন এলাকায় হোম স্টে করার জন্য স্থানীয় লোকজনকে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। এ উদ্যোগটি বাস্তবায়ন করা হলে করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে দিন-রাত যাপনের নিশ্চয়তা পাবেন পর্যটকরা। করোনা-পরবর্তীতেও অপেক্ষাকৃত কম মূল্যে তৃণমূলের পর্যটন কেন্দ্র ভ্রমণে রাত যাপনের ব্যবস্থা রাখা হবে। এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সম্প্রতি রাজধানীর বনানীতে লিটল ট্র্রি নামের একটি হোম স্টে সার্ভিস প্রস্তুত করা হয়েছে। বনানীর মতো উন্নত এলাকায় এই গেস্ট হাউসে অপেক্ষাকৃত কম দামেই থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যা সাধারণ ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের পর্যটকদেরও ক্রয়সীমার মধ্যে থাকছে।

এ সম্পর্কে ট্যুরিজম সূত্র জানায়, বিশ্বব্যাপী করোনা তা-বে পর্যটন খাত লন্ডভন্ড। বাংলাদেশে করোনা তান্ডব ততটা ভয়ঙ্কর না হলেও বিশ্বব্যাপী পর্যটন খাত যে নড়বড়ে অবস্থায় পড়েছে- তার ঢেউ এখানেও লেগেছে। বিশ্ব পরিস্থিতির তুলনায় এদেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকলেও সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের এভিয়েশন ও পর্যটন খাত। এতে পর্যটননির্ভর প্রতিষ্ঠানগুলোর ৪০ লাখ কর্মী বিপাকে পড়েন। এখনো তাদের জীবিকা ও উপার্জন হুমকির মুখে। তাদের পরিবারের দেড় কোটির বেশি মানুষ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে ক্ষতির শিকার হয়েছেন। এসব কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংশ্লিষ্ট ও স্থানীয় লোকজনকে কাজে লাগাতে দুর্গম এলাকায় ‘হোম স্টে’ নামে নতুন এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সারাদেশে ভ্রমণপিপাসুদের প্রিয় স্থানগুলোতে যেখানে থাকার ব্যবস্থা নেই- সেখানে থাকার ব্যবস্থা করা হবে পারিবারিক পরিবেশে। ছোট ছোট বাড়িতে অবকাঠামোর উন্নয়ন করে পর্যটকদের জন্য থাকার ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে এই কার্যক্রমে। এ ছাড়া অন্যান্য সুবিধাদিও থাকবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ বলেন, এটা একটা সম্পূর্ণ নতুন ধারণা থেকে করা হয়েছে। দেশের দুর্গম এলাকা যেমন খাগড়াছড়ি, বান্দরবন, নেত্রকোনার মতো দুর্গম এলাকা যেখানে হোটেল মোটেল নেই তেমন এলাকাকে প্রাধান্য দিয়েই হোমস্টে তৈরি করা হয়েছে। যদিও আমরা সারাদেশে ‘হোম স্টে’ সার্ভিস চালু করতে চাই। পর্যটনের বিকাশ ও সংশ্লিষ্ট কর্মী এবং স্থানীয় লোকজনকে এর সঙ্গে সম্পৃক্ত করতে চাই। অনেক জায়গা আছে থাকার ব্যবস্থা নেই বলে পর্যটকরা সেখানে যেতে চান না। অভ্যন্তরীণ ট্যুরিজম এক্ষেত্রে সুফল পাবে। বিদেশী পর্যটকরাও থাকতে পারবেন কম খরচে। করোনায় পর্যটন খাত সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা দ্রুত এই পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠে পর্যটনের বিকাশ ঘটাতে চাই। সে কারণেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়। আমরা এরই মধ্যে দেড় শতাধিক তৈরি করে ফেলেছি। আমরা আশাবাদী প্রকল্পটি বেশ কার্যকর ফল বয়ে আনবে। তিনি বলেন, দেশের বিভিন্ন এলাকায় ছোট ছোট পর্যটন স্পট রয়েছে। একই এলাকায় একাধিক স্পটও রয়েছে। প্রত্যন্ত গ্রাম এলাকায়ও রয়েছে পর্যটন স্পট। একাধিক পর্যটন কেন্দ্রকে ঘিরে একটি হোম স্টে সার্ভিস চালু করলে উদ্যোক্তরা করোনার সময় টিকে থাকতে পারবেন। করোনা পরিস্থিতি পুরোপুরি স্বাভাবিক হলে পর্যটক এবং ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা উভয়পক্ষই সুবিধা পাবেন। সরকার এ ধরনের কাজে উদ্যোক্তাদের সহায়তা করবে সব সময়।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ইনবাউন্ড ট্যুর অপারেটর এ্যাসোয়িশেনের প্রেসিডেন্ট ও ওয়ার্ল্ড ট্যুরিজম ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট রেজাউল একরাম গণমাধ্যমকর্মীদের বলেন, এটা একটা নতুন উদ্যোগ। চলমান কোভিড মহামারীর দরুন ভ্রমণ পেশায় যারা জড়িত- তারা বিচ্ছিন্ন হয়ে অনেকেই ভিন্ন পেশায় যুক্ত হয়েছেন। জনপ্রিয় এই ব্যবসা নেই বললেই চলে। কেবল অভ্যন্তরীণ ট্রাভেল শুরু হয়েছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে এখনও তেমন শুরু হয়নি। তিনি বলেন, আমাদের মধ্যে অনেকেই খাবারের ব্যবসা শুরু করেছেন অনলাইনে। অনেকে হোটেল ব্যবসায় জড়িত হয়েছেন। বড় হোটেল করার খরচ অনেক। তাই ছোট ছোট গেস্ট হাউস করছে। বনানীর মতো পশ এলাকায় ‘লিটল ট্রি’ হয়েছে। হোটেলে এমন ভাড়া পেতে ৬ হাজার টাকা লাগবে। সেখানে অর্ধেকেই পাবেন গেস্টরা। বিদেশী গেস্টদের জন্য না হলেও অভ্যন্তরীণ ট্যুরিস্ট যারা রয়েছেন তারা থাকতে পারবেন।

জানতে চাইলে লিটল ট্রি নামের গেস্ট হাউসের মালিক মোঃ মোশাররফ হেসেন শিশির বলেন, কম খরচে উন্নত পরিবেশে থাকার ব্যবস্থা রেখেই করা হয়েছে ‘হোম স্টে’ সার্ভিস। বাবার সার্ভিস এ্যাপার্টমেন্টকে লিটল ট্রি নামের হোম স্টে সার্ভিস করেছি। এখানে রয়েছে সাতটি রুম। পর্যটকদের সুবিধার জন্য রয়েছে ড্রয়িং রুমও। অন্যান্য সুবিধা তো রয়েছেই। একটি বড় হোটেলে ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা যেসব রুমের ভাড়া নেয়া হয়, সেই রকম রুমের ভাড়া দেয়া হবে অনেক কম। দাম নির্ধারণ এখনও করিনি। তবে এক হাজার ২০০ টাকা থেকে দেড় হাজার টাকায় রাত যাপনের ব্যবস্থা রাখা হবে, যা পর্যটকদের জন্য লাভজনক। এদিকে রাজধানীসহ সারাদেশে এ ধরনের হোম স্টে সার্ভিস চালুর বিষয়ে বেশ সাড়া মিলেছে বলে জানিয়েছে ট্যুরিজম বোর্ড। পর্যটন কেন্দ্র এলাকার জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে অনেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

৮ মাস পর টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে জাহাজ চলাচল শুরু

দীর্ঘ আট মাস পর কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল শুরু হয়েছে। শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) সকালে কেয়ারি সিন্দাবাদ ও ফারহান ক্রুজ নামে দুটি জাহাজ যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়।

জানা যায়, পর্যটন মৌসুমের কথা ভেবে করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয় জেলা প্রশাসন। কাগজপত্র যাচাই-বাচাই করে কেয়ারি সিন্দাবাদ ও ফারহান ক্রুজকে অনুমতি দেয়ার পর শুক্রবার সকালে টেকনাফের দমদমিয়া ঘাট থেকে পর্যটকবোঝাই করে সেন্টমার্টিনে যায় জাহাজ দুটি।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চট্টগ্রাম বিভাগের উপপরিচালক নয়ন শীল বলেন, চলতি মৌসুমে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে চলাচলের জন্য দুটি জাহাজে অনুমতি চেয়েছে। তার মধ্যে কেয়ারি সিন্দাবাদ জাহাজকে গত ১ অক্টোবর থেকে ১২ ডিসেম্বর এবং ফারহান ক্রুজ জাহাজকে ৪ নভেম্বর থেকে আগামী বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। অনুমতি পেয়েও হয়তো অভ্যন্তরীণ কারণে এতদিন জাহাজগুলো চলাচল করেনি।

কেয়ারি সিন্দাবাদ জাহাজের টেকনাফের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাহ আলম বলেন, জেলা প্রশাসকের ছাড়পত্র পেয়ে শুক্রবার থেকে জাহাজ চলাচল শুরু করেছি। যদিও এর আগে বিআইডব্লিউটিএ ও নৌপরিবহন দফতরের ছাড়পত্র পাই আমরা। করোনা পরিস্থিতির ওপর দৃষ্টি রেখে সেন্টমার্টিনে পর্যটক আনা-নেয়া চালু থাকবে।

বিদেশে চাকরি পাবার জন্য ‘সমা’ অ্যাপ আসছে

যে শ্রেণির মানুষেরা বিদেশে চাকরি নিয়ে যাওয়ার আগে ঋণের বোঝায় দিশেহারা হয়ে পড়েন, তাদের পাশে দাঁড়াতে সিঙ্গাপুরে চালু হওয়া সমা (Sama) স্টার্টআপ বাংলাদেশেও কাজ করবে।

শুক্রবার ‘সমা’ অ্যাপ নিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়, বাংলাদেশ সরকারের নিবন্ধন নেয়ার জন্য আবেদন করছে প্রতিষ্ঠানটি। সিঙ্গাপুরে এখন সাড়ে তিন লাখের বেশি প্রবাসী শ্রমিক কাজ করেন। যাদের অধিকাংশ বাংলাদেশ এবং ভারতের নাগরিক।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, এসব শ্রমিকেরা সিঙ্গাপুরে পা রাখার আগেই ঋণের কবলে পড়েন। প্রথম কয়েক মাস, কখনো বছর লেগে যায় তাদের সেই ঋণ শোধ করতে।

সিঙ্গাপুরের আইন অনুযায়ী, কোনো কর্মীর কাছ থেকে কর্মসংস্থান এজেন্টরা দুই মাসের বেশি বেতন নিতে পারেন না। কিন্তু অন্য দেশে সিঙ্গাপুর এই বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। তাই কর্মীদের চাকরি নিয়ে দেশটিতে যাওয়ার পরেও নিজ দেশের এজেন্টদের মাসের পর মাস অর্থ দিয়ে যেতে হয়।

গত এপ্রিলে এই সমস্যা থেকে শ্রমিকদের মুক্তি দিতে সিঙ্গাপুর-ভিত্তিক ‘সমা’ স্টার্টআপের যাত্রা শুরু হয়। এখান থেকে কর্মীরা নিজেদের পছন্দমতো চাকরি খুঁজে নিতে পারেন। এ জন্য সর্বোচ্চ দুই মাসের বেতন দিতে হয় তাদের।

অন্য কোম্পানির সঙ্গে পার্থক্য: সহপ্রতিষ্ঠাতা নেমানজা গ্রুজিক এবং কীর্তন প্যাটেল বলেছেন, তারা কোম্পানিগুলোর থেকে ‘ফি’ নেয়। যেখানে শ্রমিকেরা কাজ করছেন, তাদের বুঝিয়ে এ বিষয়ে রাজি করান। কিন্তু অন্যরা শ্রমিকদের থেকে ‘ফি’ নেয়। এতে তাদের ওপর চাপ পড়ে।

কীর্তন প্যাটেল বলছেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি শ্রমিকেরা ঋণের চিন্তা বাদ দিয়ে কাজ করলে বেশি আউটপুট দেন।’

বাংলাদেশে আসার বিষয়টি জানিয়েছেন নেমানজা গ্রুজিক। তিনি বলেন, ‘বিদেশি এজেন্টদের প্রতি শ্রমিকদের নির্ভরতা কমাতে আমরা বাংলাদেশ এবং ভারতে কাজ করতে যাচ্ছি। এ জন্য নিবন্ধনের আবেদন করছি।’

চাকরি প্রত্যাশীরা কোম্পানিটির হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ করে সব কাগজপত্র জমা দিতে পারেন।

অ্যাপে এখন পর্যন্ত ১৫০০ মানুষ নিবন্ধন করেছেন। এখানে শ্রমিকেরা তাদের বেতন ডিজিটাল ওয়ালেটে রাখতে পারেন। এর মাধ্যমে দেশে সরাসরি অর্থ পাঠানো যায়।

৫ম বারের মতো শিবগঞ্জে “কলিম উদ্দীন আহম্মদ স্মৃতি শিক্ষাবৃত্তি” প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার, শিবগঞ্জ ঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জে ৫ম বারের মতো ৭ জন মেধাবী অসচ্ছল ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে “কলিম উদ্দীন আহম্মদ স্মৃতি শিক্ষাবৃত্তি” প্রদান করা হয়েছে। এ উপলক্ষে শনিবার(১৪ নভেম্বর ) সকালে বৃত্তি প্রদান কমিটির সভাপতি ও দাদনচক এইচ. এম. উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ মোহাঃ শফিকুর রহমানের বাসভবন চত্ত্বরে মরহুম কলিম উদ্দীন আহম্মদের পরিবারের সদস্যগণ আনুষ্ঠানিকভাবে ৫ম বারের মতো এই বৃত্তি প্রদান করেন।
এ সময় স্থানীয় ৬টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০২০ সালের এসএসসি উত্তীর্ণ অসচ্ছল পরিবারের ৭ জন মেধাবী ছাত্রছাত্রীকে এককালীন ৮ হাজার টাকা করে বৃত্তি প্রদান করা হয়।
বৃত্তি প্রাপ্তরা হলো দাদনচক এইচ. এম. উচ্চ বিদ্যালয়ের মোঃ মাহিন ইকবাল (১১৪০৪৯, বিজ্ঞান) ও মোঃ আব্দুল্লাহ (১১৪০৫৪, বিজ্ঞান), হুমায়ুন রেজা উচ্চ বিদ্যালয়ের সজিব কুমার সাহা (১১৪৮৪৩, বিজ্ঞান), দাদনচক বেল আফরোজ ইদ্রিশী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মোসাঃ সুরাইয়া সুলতানা (৪২০৬৭৬, বিজ্ঞান), বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের মোসাঃ জুলি আরাফাত (১১৪৮৯৩, বিজ্ঞান), আলহাজ শরীফ আহ্মদ কারিগরি উচ্চ বিদ্যালয়ের মোঃ বারিক আলী (১১৫০৩০, বিজ্ঞান) এবং মনাকষা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ফাতেমা জাহান মিসকাত (১১৫০১৭, বিজ্ঞান)।
এ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে বৃত্তি প্রদান কমিটির সভাপতি আলহাজ মোহাঃ শফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্তিত ছিলেন শিবগঞ্জ সরকারি মডেল হাই স্কুলের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক আলহাজ মোঃ আসাদুজ্জামান । বিশেষ অতিথি ছিলেন বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আলহাজ মোঃ মোশাররফ হোসেন।
এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপষিÍত ছিলেন দাদনচক এইচ. এম. উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আলহাজ মুহাঃ নজরুল ইসলাম, দাদনচক বেল আফরোজ ইদ্রিশী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাঃ শফিকুল আলম, দাদনচক এইচ. এম. উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাঃ গোলাম রাব্বানী, মনাকষা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাঃ আরিফ উদ্দিন, বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাঃ সাব্বির উদ্দিন, ৬১নং মনাকষা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সেলিমা খাতুনসহ বৃত্তি প্রদান পরিচালনা কমিটির সদস্যবৃন্দ। এছাড়া অনুষ্ঠানে স্থানীয় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ, সাংবাদিক ও বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য, মনাকষা ইউনিয়নের সাতরশিয়া গ্রামের শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি মরহুম কলিম উদ্দীন আহম্মদ ১৯২৪ সালে বি.এ, বি.টি. পাশ করার পর দীর্ঘ ৪৪ বৎসর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত ছিলেন। তিনি দাদনচক হেমায়েত মেমোরিয়াল হাইস্কুল, মালদহের কালিয়াচক হাইস্কুল, মনাকষা হুমায়ুন রেজা হাইস্কুল, দিনাজপুরের বিরোল হাইস্কুল, রাণীনগর হাইস্কুলে (ধাইনগর) প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ১৮৯৯ সালের ১৭ জুন জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৬৮ সালে মনাকষা হুমায়ুন রেজা হাইস্কুল থেকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে অবসরগ্রহণ করেন এবং ১৯৭০ সালের ২৬ মার্চ ইহলোক তাঁর নামে ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত “কলিম উদ্দীন আহম্মদ স্মৃতি শিক্ষাবৃত্তি ফান্ড” থেকে অসচ্ছল মেধাবীদের বৃত্তি প্রদান করে আসছে কলিম উদ্দীন আহম্মদ স্মৃতি শিক্ষাবৃত্তি কমিটি।

শিবগঞ্জে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্ধোধন

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জের সত্রাজিতপুর আলাবক্স মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজ মাঠে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্ধোধন হয়েছে।শনিবার(১৪ নভেম্বর) সকালে টুর্নামেন্টের উদ্ধোধন করেন শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম।এ সময় ছত্রাজিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম রাব্বানী ছবি, ছত্রাজিতপুর আলাবক্স কলেজের অধ্যক্ষ আতাউর রহমান , সাবেক ছত্রাজিতপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সোহাগ আলী , শিবগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিফ আহসান। সাবেক ছাত্রনেতা লোকমান আলী, আমিরুল ইসলাম দানেশ, নিয়াম,পাভেল,নাজমুল, রিপন, নাসরুল সহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।উদ্ধেধনী খেলায় বন্ধু ক্রিকেট একাদশ এবং রসুলপুর ক্রিকেট একাদশ অংশ গ্রহন করে বন্ধু ক্রিকেট একাদশ বিজয়ী হয়।
প্রসঙ্গত: এ টুর্নামেন্টে ১৬ টি দল অংশ গ্রহন করছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পানি ব্যবস্থাপনা সমিতির সাধারণ সভা

চাঁপাইনবাবগঞ্জের দ্বা রিয়াপুর পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিঃ এর ১৪ তম বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৪ ই নভেম্বর সকাল সাড়ে আটটায় দারিয়াপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে দ্বারিয়াপুর পানি ব্যবস্থাপনা সমিতির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথি ছিলেন;চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মোঃ নজরুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী আনিসুর রহমান,জেলা সমবায় অফিসার প্রফুল্ল কুমার প্রামানিকসহ অনান্যরা। উল্লেখ্য যে;দারিয়াপুর পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিমিটেডের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের ভোট গ্রহন চলছে,সভাপতি পদে ৪ জন সাধারণ সম্পাদক পদে ৪ জন প্রত্যাশী হয়েছে।

নাচোলে প্রথম খ্রীষ্টান ফাদার অনিল ইগ্নেসিউস মারান্ডীকে সংবর্ধনা

নাচোল (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি :

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে প্রথম পবিত্র খ্রীষ্টান ফাদার অনিল ইগ্নেসিউস মারান্ডীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। শনিবার(১৪ নভেম্বর) বেলা ১১ টায় নাচোল উপজেলার নেজামপুর ইউনিয়নের কার্ত্তিকপুর গ্রামে স্থানীয় খ্রীষ্ঠাণ ধর্মম্বলীরা এ সংবর্ধনার আয়োজন করে। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মুন্ডমালা ধর্মপল্লীর পাল পুরোহিত ফাদার প্রেট্রিক গমেজ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ৩৩৮ সংরক্ষিত জাতীয় সংসদ সদস্য ফেরদৌসি ইসলাম জেসি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নাচোল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের। নেজামপুর ৩নং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুল হক। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নেজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার আল শহীদ জুয়েল,সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়মীলীগের কার্য নির্বাহী সদস্য হাবিবুর রহমান, আদিবাসী নেতা কর্ণেলিউস মুরমু প্রমুখ। আলোচনা সভায় বক্তারা প্রধান অতিথির নিকট নাচোল উপজেলার আদিবাসী ও খ্রীষ্টান সম্প্রদায় অধ্যাষিত জমিন-কমিন, কার্ত্তিকপুর, বাসুগ্রাম,ধরইল শ্যামপুর এলাকার রাস্তাঘাট নির্মান, শিক্ষা ক্ষেত্রে স্কুল ও চিকিৎসা কেন্দ্রর জোর দাবি জানান।