সর্বশেষ সংবাদ PM Hasina mourns death of Diego Maradona মেঘ কাটলেই বাড়বে শীত, তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা করোনায় ঝরে গেল আরও এক বাংলাদেশি তারকার প্রাণ চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‍্যাবের অভিযানে ৮ জুয়াড়ি গ্রেফতার গোমস্তাপুরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন বিষয়ক সেমিনার তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহারে বাংলাদেশ বিশ্বে অনুকরণীয় ভ্যাকসিন পেতে সরকারের ৭৩৫ কোটি টাকা ছাড় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার সহনীয় রাখতে অারও যে সব পণ্য কেনা হবে সোনা মসজিদ স্থলবন্দরে মতবিনিময় সভা ও সহায়তা প্রদান ম্যারাডোনার মরদেহের ময়নাতদন্ত হবে

আলোকিত দিগন্ত নিউজ টুয়েন্টি ফোর ডটকম এর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : ২০১৯ সালে আলোকিত দিগন্ত নিউজ টোয়েন্টি ফোর ডটকমের প্রতিষ্ঠাতার পর থেকে আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায় দেশের জনপ্রিয় অনলাইন পত্রিকা আলোকিত দিগন্ত নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরনের খবরাখবর প্রকাশ করে আসছে। এরই মধ্যে পত্রিকাটি একটি বছর পূর্ণ করলো। ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল শনিবার বিকেল ৪ টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায় মুসলিমপুরে একটি আম বাগানের ভেতর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে কেক কেটে সবাই মুখ মিষ্টি করেন। আলোকিত দিগন্ত নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ২ম বর্ষে পদার্পণ ও ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী অনুষ্ঠানটি পরিনত হয় মিলন মেলায়। আলোকিত দিগন্ত নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম’র বিশেষ প্রতিনিধি আলী হোসেন এর সঞ্চালনায় পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মো. আল আমিন সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আলোকিত দিগন্ত নিউজ এর উপদেষ্টা সম্পাদক মো. আব্দুল করিম। বিশেষ অতিথি ছিলেন, আলোকিত দিগন্ত নিউজ এর নির্বাহী সম্পাদক ডাক্তার আবু তাহির, শিবগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি প্রভাষক মোহা. শফিকুল ইসলাম, রেডিও মহানন্দার শিবগঞ্জ সংবাদদাতা প্রভাষক নুরতাজ আলম, কানসাট নিউজের প্রকাশক ও সম্পাদক মো. ইমরান আলী, দৈনিক বিজয় বাংলাদেশ ও দৈনিক সাগরিকার প্রকাশক ও সম্পাদক এম. রফিকুল ইসলাম, দৈনিক বাংলার নিউজ এর সম্পাদক ও প্রকাশক মো. শহিদুল ইসলাম রনি। চাঁপাই সংবাদ এর সম্পাদক ও প্রকাশক মোসা. শামসুন্নাহার সোহানা, শ্যামপুর বন্ধন সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সভাপতি মো. রায়হান আলী, দৈনিক দেশ বায়ান্ন নিউজের সম্পাদক এইচ.এস হায়দার আহমেদ, মানবিক শিবগঞ্জের সভাপতি নাদিম হোসেনসহ আরও অনেকে।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে বিশেষ অধিবেশন:উপমন্ত্রীসহ ৬ সংসদ সদস্যের করোনা পজিটিভ

ডেস্ক : মুজিববর্ষ উপলক্ষে একাদশ জাতীয় সংসদের বিশেষ অধিবেশনে যোগ দিতে আসা সংসদ সদস্যগণের কোভিড-১৯ পরীক্ষার পর ছয় জনের করোনা পজিটিভ বলে জানা গেছে। জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে গত শুক্রবার পরীক্ষার জন্য তাদের নমুনা নেওয়া হয়।

নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে যাদের কোভিড-১৯ পজিটিভ এসেছে তারা হলেন- পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী এবং বাগেরহাট-৩ আসনের এমপি বেগম হাবিবুন নাহার, নওগাঁ-২ আসনের এমপি এবং সাবেক হুইপ মো. শহীদুজ্জামান সরকার, ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য শফিউল ইসলাম, পাবনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য নুরুজ্জামান বিশ্বাস, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য নাদিরা ইয়াসমিন জলি এবং তাহমিনা বেগম।

মিয়ানমারে নির্বাচন: রোহিঙ্গাদের বাদ রেখেই ৯১টি দলের অংশগ্রহন

দীর্ঘ পাঁচ দশকের সামরিক শাসনের সমাপ্তির পর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ মিয়ানমারে দ্বিতীয় বারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে সাধারণ নির্বাচন। তবে এই নির্বাচনে ভোট দিতে পারছেন না রোহিঙ্গারা, নির্বাচন হচ্ছে না রাখাইন স্টেটে। রোববার (৮ নভেম্বর) জাতিসংঘসহ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা অগ্রাহ্য করে রোহিঙ্গাদের ছাড়াই দেশটিতে ভোটগ্রহণ হচ্ছে।

নির্বাচনে দেশটির ৯১টি দল অংশ নিয়েছে। তবে নিরঙ্কুশ জয়ের প্রত্যাশা অং সান সু চি’র দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসির (এনএলডি)। বিশেষত রোহিঙ্গা গণহত্যার পক্ষে কথা বলে মিয়ানমারে জনপ্রিয়তা বেড়েছে তার দলের।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বিরোধী দলগুলো নির্বাচন পেছানোর দাবি জানিয়েছিল। তবে সরকার এবং নির্বাচন কমিশন সেই দাবি আমলে নেয়নি। তবে প্রবীণ ভোটারদের অগ্রিম ভোট দেওয়ার অনুমতি এবং সরকার ভোটার ও ভোটকর্মীদের জন্য পর্যাপ্ত ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম সরবরাহ করেছে।

নির্বাচনে এবার ৯১টি দল থাকলেও মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা সু চির ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) এবং সেনাসমর্থিত ইউনিয়ন সলিডারিটি পার্টির (ইউএসডিপি) মধ্যে।

জাতীয় নির্বাচন হলেও বেশ কয়েকটি সংঘাতপূর্ণ স্থানে নির্বাচনের কোনো ব্যবস্থই করেনি দেশটির কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। নিরাপত্তার দোহাই দিয়ে বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী এবং সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীকে এই নির্বাচনের বাইরে রাখা হয়েছে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচ জানিয়েছে, প্রায় দেড় মিলিয়ন মানুষ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন না।

নির্বাচন নিয়ে এনএলডির পক্ষে সু চি বলেছেন, এ দেশে এখন স্বাধীনতা এসেছে। জনগণ নির্দ্বিধায় কথা বলতে পারে। আমি যখন জন্মগ্রহণ করেছি তখন দেশটি সামরিক শাসনের অধীনে ছিল। এনএলডি কেবল চার বছর ক্ষমতায় আছে, আমাদের নতুন ভবিষ্যতের জন্য এই উন্নয়ন চালিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

এবারের নির্বাচনে মোট নিবন্ধিত ভোটার সংখ্যা তিন কোটি ৭০ লাখ। নির্বাচনে বিজয়ী হতে হলে দুই কক্ষ বিশিষ্ট দেশটির সংসদের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে কমপক্ষে ২২১টি আসন এবং হাউজ অব ন্যাশনালিটিসে কমপক্ষে ১১৩টি আসন পেতে হবে।

কোনো রাজনৈতিক দল এককভাবে অথবা একাধিক রাজনৈতিক দল যুগ্মভাবে এই আসনগুলো পেলে যুক্ত সরকার গঠন করতে পারবে। তবে সংসদের উভয় কক্ষে এক চতুর্থাংশ আসন সামরিক বাহিনীর জন্য সংরক্ষিত থাকবে। নির্বাচনে বিজয়ী দল সরকার গঠন করবে ২০২১ সালের মার্চ মাসে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে অন্ধ কল্যান সমিতি কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশ অন্ধ কল্যান সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে দোয়া মাহফিল হয়েছে। শহরের শাহিবাগ এলাকার চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতাল ভবনে অন্ধ কল্যান সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার প্রয়াত সদস্যদের রুহের মাগফেরাত কামনায় এই দোয়া মাহফিল হয়। সমিতির আজীবন ও প্রতিষ্ঠাতা সদস্য সম্প্রতি ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম সেন্টু’র মৃত্যুতে বাংলাদেশ অন্ধ কল্যান সমিতি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখা এই আয়োজন করে। শনিবার রাতে দোয়া ও স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ চক্ষু হাসপাতালের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মো. আব্দুল হাকিম। এসময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাহী কমিটির সদস্য আব্দুল হান্নান, কাউসার আলী, কামাল উদ্দিনসহ হাসপাতালের চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। দোয়া মাহফিলে অংশ নেয় মরহুমের পরিবারের পক্ষে মরহুমের ভাতিজা মো. ইকবাল মুরশেদ। দোয়া পরিচালনা করেন টাউন জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা মো. মাববুবুর রহমান। স্মরণসভায় মরহুমের জীবদ্দশায় বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কর্মকান্ডের বিবরণ তুলে ধরা হয়। দোয়া মাহফিলে প্রয়াত ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম সেন্টুসহ সমিতির ৭৩জন সদস্যের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

যে কোনো সংকট উত্তরণে বিচ্ছিন্নতা নয়, চাই সহযোগিতা

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারীর কারণে সৃষ্ট সংকট মোকাবেলার জন্য একটি সুসমন্বিত রোডম্যাপ তৈরি করতে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, কোভিড-১৯ মহামারী এক বহুমুখী বৈশ্বিক সমস্যা তৈরি করেছে এবং এটি বৈশ্বিকভাবে সমাধান করা উচিত। এ সংকট মোকাবেলায় আমাদের দরকার একটি সুসমন্বিত রোডম্যাপ।

শুক্রবার আসেম সদস্য দেশগুলোর অর্থমন্ত্রীদের ১৪তম আন্তর্জাতিক সম্মেলন ভার্চুয়ালি উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান। এ ভার্চুয়াল সম্মেলনের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ এবং প্রধানমন্ত্রীর আগে থেকে ধারণ করা ভিডিও বার্তার মাধ্যমে এটির উদ্বোধন করা হয়।

আসেম অর্থমন্ত্রীদের ১৪তম সম্মেলনের প্রতিপাদ্য হল- ‘কোভিড-১৯ সমাধান : শক্তিশালী, টেকসই, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও ভারসাম্যপূর্ণ পুনরুদ্ধার নিশ্চিতকরণ’।

শেখ হাসিনা আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, বিশ্ব শিগগিরই কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে কার্যকর ভ্যাকসিন পেতে চলেছে। তিনি সব দেশের জন্য, বিশেষ করে স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য বিনামূল্যে ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করার আহ্বান জানান। এ ক্ষেত্রে ধনী দেশ, বহুপক্ষীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এমডিবি) ও আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে (আইএফআই) উদার সমর্থন নিয়ে এগিয়ে আসা উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

পুনরুদ্ধারের জন্য সমন্বিত প্রচেষ্টা

প্রধানমন্ত্রী ধনী দেশ, এমডিবি ও আইএফআইগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন। কঠিন এ সময়ে সমৃদ্ধির পথে থাকা যে কোনো বাধা জয় করতে বৃহত্তর সহযোগিতার প্রতি গুরুত্বারোপ করে তিনি বলেন, যে কোনো সংকট উত্তরণে বিচ্ছিন্নতা নয়, সহায়তা করতে পারে সহযোগিতা।

উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য উন্নত দেশগুলোকে শুল্কমুক্ত ও কোটামুক্ত বাজার প্রবেশাধিকার এবং প্রযুক্তিগত সহায়তা বিষয়ে নিজেদের পূরণ না করা প্রতিশ্রুতিগুলো পূরণ করতে হবে বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি আক্রান্ত স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকে উদ্ধারে জি-৭, জি-২০, অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থাভুক্ত (ওসিসিডি) দেশগুলো, এমডিবি ও আইএফআইগুলোকে তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯ মহামারী সব দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা এবং অর্থনীতিতে ধ্বংসাত্মক প্রভাব ফেলেছে। বিশেষ করে স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলো সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত এবং বেশির ভাগ মানুষ আয় এবং কাজ হারিয়েছেন।

ঘুরে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতি

অর্থনীতিকে এগিয়ে নিতে বাংলাদেশের প্রচেষ্টা সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ গত এক দশকে টেকসই উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে এবং কিছু আর্থসামাজিক সূচকেও অসাধারণ অগ্রগতি পেয়েছে। তিনি উল্লেখ করেন যে, সরকার বাংলাদেশকে ২০৩১ সালের মধ্যে উচ্চ-মধ্য আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করতে ‘ভিশন ২০৪১’ গ্রহণ করেছে। বাংলাদেশ এসডিজি অর্জনে ঠিক পথে ছিল বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

কিন্তু করোনাভাইরাস ছড়ানো রোধে সরকারের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা সত্ত্বেও মহামারীটি অগ্রগতির ওপর মারাত্মক বাধা সৃষ্টি করেছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, অর্থনৈতিক ক্ষতি থেকে মুক্তি পেতে বিরাট প্রণোদনা প্যাকেজ দেয়া হয়েছে।

শেখ হাসিনা জানান যে, তার সরকার এখন পর্যন্ত বিভিন্ন খাতের পাশাপাশি সমাজের নানা স্তরের সহায়তার জন্য ১৪.১৪ বিলিয়ন ডলার সমতুল্য ২১টি প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। তিনি বলেন, কয়েক মাস প্রাথমিকভাবে ভোগার পর দেশের অর্থনীতি পুনরুদ্ধার হতে শুরু করেছে।

প্রধানমন্ত্রী রফতানি, রেমিট্যান্স ও কৃষি উৎপাদনে সর্বশেষ তথ্য তুলে ধরেন। এতে দেখা যাচ্ছে যে, অর্থনীতি টেকসই প্রবৃদ্ধির পথে ফিরে আসছে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। মূল বক্তব্য দেন বিশ্বব্যাংক ও এডিবির ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং আইএমএফের এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের উপ-পরিচালক।

জার্মানি, স্পেন, পোল্যান্ড, বুলগেরিয়া, থাইল্যান্ড, জাপান, চীন, মিয়ানমার, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুরসহ আসেম সদস্য দেশগুলোর অর্থমন্ত্রী, অর্থ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা ও সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিরা সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন।

১০ হাজার কিলোমিটার নৌ-পথ খনন হচ্ছে!

নাব্যতা হারিয়ে যাওয়া দেশের নদ-নদীগুলোর দশ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খননের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নদী ব্যবস্থাপনাকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে না পারলে দেশ ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী ১০ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খননের লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার বলে জানিয়েছেন নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে শিপিং অ্যান্ড কমিউনিকেশন রিপোর্টার্স ফোরাম (এসসিআরএফ) আয়োজিত নদী, নৌ-পথ ও পর্যটন খাতের বিকাশে করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।
নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, নদী খননের জন্য হোপার ড্রেজারসহ আধুনিক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করা হবে। নৌ-পথের নাব্যতা বজায় রাখতে সারাবছর বড় ধরণের ও সংরক্ষণ (ক্যাপিটাল ও মেইন্টেনেন্স) ড্রেজিং করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সময় এবং শেখ হাসিনার সরকারের সময় ছাড়া বাংলাদেশ সুস্থ্য ধারায় চলেনি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার মাঝখানে যারা ক্ষমতায় ছিল তারা দেশে রক্তপাত, লুটতরাজ ও অসুস্থ ধারা সৃষ্টি করেছিল। এ কারণে নদ-নদীর গতিপথ হারিয়ে গেছে। প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নির্দেশে নৌপথ উদ্ধারে কাজ করছি। প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশকে নিয়ে অনেক ষড়যন্ত্র হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ ও প্রাজ্ঞ রাজনীতির কারণে সকল ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দেশ এগিয়ে চলছে। প্রধানমন্ত্রী ১৬ কোটি মানুষকে সাহসী করে তুলেছেন। স্বপ্নচারিণী শেখ হাসিনা শুধু স্বপ্ন দেখাচ্ছেন না, তা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। তার নেতৃত্বেই বাংলাদেশ এগিয়ে যাবে।
খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যার পর জেলখানায় জাতীয় চার নেতাকে হত্যা এবং ৭ নভেম্বর রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধাদের হত্যা করে খুনিরা দেশে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছিল। তবে এসব হত্যাকান্ড মানুষ সমর্থন করেনি। যারা হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে তারা বাংলাদেশের রাজনীতিতে টিকে থাকতে পারেনি। টিকে আছে শুধু বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতি। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করছেন তার সুযোগ্যকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
সংগঠনের সভাপতি আশীষ কুমার সেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, নদী গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাবেক মহাপরিচালক প্রকৌশলী লুৎফর রহমান, নদী গবেষক আমিনুর রসুল বাবু, এসসিআরএফ’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম সবুজ ও বর্তমান সহ-সভাপতি অমরেশ রায়। এসসিআরএফ’র সাধারণ সম্পাদক মহসীনুল করিমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাবেক সভাপতি আনিসুর রহমান খান।

অনলাইনে যুক্ত হচ্ছে দুই লাখ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান:৩৩৩ টোল ফ্রি নম্বরে শিক্ষকের পরামর্শ

করোনাভাইরাস মহামারীর এ সময়ে শিক্ষাকার্যক্রম অব্যাহত রাখতে ৭০ শতাংশ শিক্ষার্থীই অনলাইনে শিক্ষা নিচ্ছে। বাকি ৩০ শতাংশকেও দূরশিক্ষণের আওতায় আনতে ৩৬০ ডিগ্রি অ্যাপ্রোচে কাজ করছে সরকার।

এজন্য জাতীয় সংসদ টেলিভিশন চ্যানেল এবং রেডিও’র পাশাপাশি ইন্টারনেট বা স্মার্টফোন না থাকলেও তাদের জন্য ৩৩৩ টোল ফ্রি নম্বরে কল করে শিক্ষকের পরামর্শ নেয়ার মতো উদ্ভাবনী সেবা চালু করা হয়েছে।

সম্প্রতি সেভ দ্য চিলড্রেন আয়োজিত ‘টেল মাই লিডার’ শীর্ষক ভার্চুয়াল হ্যাংআউটে দেয়া বক্তব্যে এসব তথ্য তুলে ধরেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বক্তব্যে ভবিষ্যৎ বাস্তবতাকে মাথায় রেখেই সরকার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে ‘ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাবস’ স্থাপন করছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগামী ৩ থেকে ৫ বছরের মধ্যে গ্রাম পর্যায়ে উচ্চ গতির ইন্টারনেট সংযোগ পৌঁছে দেয়া সম্ভব হবে। ফাইবার অপটিকের মাধ্যমে হাই-স্পিড ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটে সংযুক্ত দুই লাখ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

তিনি আরও বলেন, ১৬ কোটি মানুষের এ দেশে এখন ১১ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন। শতভাগ মোবাইল পেনিট্রেশন অর্জন সম্ভব হয়েছে। তাই সুবিধাবঞ্চিত কিংবা অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের শিক্ষাকার্যক্রম চালিয়ে নিতে খুব একটা বেগ পেতে হবে না।

প্রতিভা তুলাধরের সঞ্চালনায় হ্যাংআউটে আরও বক্তব্য দেন উগান্ডার ফার্স্ট লেডি এবং শিক্ষা ও ক্রীড়া মন্ত্রী জ্যানেট কাতাহা মুসেভেনি, দক্ষিণ সুদানের জাতীয় সাধারণ শিক্ষা ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী মার্টিন টাকো মই, কম্বোডিয়ার শিক্ষা, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি জেনারেল চৌন রামি এবং নেপালের শিক্ষা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব গোপী নাথ মৈনালি। ছয় দেশের শিশুদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এ হ্যাংআউটে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন ঐক্য ও রাফসান।

৭ নভেম্বর সৈনিক ও অফিসার হত্যা দিবস: তথ্যমন্ত্রী

বাংলাদেশের ইতিহাসে ৭ নভেম্বরকে কালো দিন এবং সৈনিক ও অফিসার হত্যা দিবস বলে উল্লেখ করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি শনিবার দুপুরে রাজধানীর মিন্টো রোডে সরকারি বাসভবনে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি এই দিনকে বিপ্লব ও সংহতি দিবস হিসেবে পালন করে অথচ প্রকৃতপক্ষে ১৯৭৫ সালের এই দিনে বীর মুক্তিযোদ্ধা ব্রিগেডিয়ার খালেদ মোশাররফ, বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল হুদা, বীর মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল হায়দারসহ বহু সৈনিক ও অফিসারকে হত্যা করা হয়েছিল। এমনকি যে কর্নেল তাহের বন্দীদশা থেকে জিয়াউর রহমানকে মুক্ত করেছিলেন, সেই পঙ্গু মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল তাহেরকেও জিয়া পরবর্তীতে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করেছিলেন।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘হত্যার রাজনীতির মাধ্যমেই বিএনপির অভ্যূদয়, তারা এদিনটি যেভাবে পালন করে, তাতেই প্রমাণ হয় এবং এদিনই আসলে জিয়াউর রহমান বহু সৈনিক ও অফিসারের লাশের ওপর দাঁড়িয়ে অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করেন’।

তিনি বলেন, ‘জিয়া প্রথমে তার মনোনীত বিচারপতি সায়েমকে রাষ্ট্রপতি ও প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক পদে রাখেন কিন্তু উপপ্রধান সামরিক আইন প্রশাসক হিসেবে ক্ষমতা ছিলো তার হাতেই।’

তিনি বলেন, ‘জিয়া শুধু অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করাই নয়,সেই ক্ষমতা নিষ্কণ্টক রাখতে সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর অফিসার হত্যাযজ্ঞ অব্যাহত রেখেছিলেন’।

এ সময় সাংবাদিকরা বিএনপি মহাসচিব ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ‘আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে ক্ষমতায় টিকে আছে’ এ মন্তব্যের দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে হাছান বলেন, ‘বর্তমান সরকার গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত একটি সরকার। আর পক্ষান্তরে বিএনপিই এদেশে গণতন্ত্র ধ্বংস করেছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘অগণতান্ত্রিকভাবে সেনা ছাউনিতে বিএনপি’র জন্ম। ক্ষমতায় থেকে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে তারা দল গঠন করেছে। আজ যারা বড়বড় কথা বলেন, সরকারের বিরুদ্ধে বিষোদগার করেন, মির্জা ফখরুল সাহেবসহ তারা সবাই সেই উচ্ছিষ্ট গ্রহণ করে বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন। আর গত একযুগ ধরে আমরা দেখছি, বিএনপি নির্বাচনকে বর্জন করছে, প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা এমনকি নির্বাচন ঠেকানোর নামে শত শত মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করে গণতন্ত্র নস্যাৎ করতে চেয়েছে, কিন্তু জনগণ তা হতে দেয়নি।’

বিএনপি নেতা গয়েশ্বর রায়ের মন্তব্যর জবাবে ড. হাছান বলেন, আওয়ামী লীগ নয়, বিএনপিই এখন লাইফ সাপোর্টে। কারণ তাদের নেতাদের ওপর কর্মীদের আস্থা নেই, আর নেতাদের মধ্যে ঐক্য নেই।

শিবগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের নতুন কমিটি গঠন : সভাপতি জিয়া, সম্পাদক ফরহাদ

স্টাফ রিপোর্টার, শিবগঞ্জ ঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলা প্রেসক্লাবের দ্বি-বার্ষিকী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়েছে দৈনিক গণমুক্তি পত্রিকার শিবগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি মো. জিয়াউল হক। তাঁর নিটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন দৈনিক সাগরিকা টুয়েন্টিফোর ডটকম’র প্রকাশক ও সম্পাদক এম. রফিকুল ইসলাম। সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন দৈনিক রাজশাহীর সংবাদের শিবগঞ্জ প্রতিনিধি মো. ফরহাদ আলী ও তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন দৈনিক খোলা কাগজের শিবগঞ্জ প্রতিনিধি প্রভাষক মামুন-উর-রশিদ।
রবিবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টার পর্যন্ত অনুষ্ঠিত নির্বাচেন ১৩জন প্রত্যক্ষ ভোটারদের প্রত্যক্ষ ভোটে ৯ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠিত হয়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিল সংস্কারের দাবীতে সচেতন নাগরিক সমাজের মানববন্ধন

চাঁপাইনবাবগঞ্জ:

চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের বটতলাহাট সংলগ্ন আজইপুর- রামকৃষ্ণপুর,শংকরবাটি এলাকার ঐতিহ্যবাহী বিল সংস্কারের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

৮ নভেম্বর বেলা সাড়ে ১১টায় বটতলাহাট মীরের বাগান সংলগ্ন বিলের পাশে সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে অত্র এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন;আলহাজ্ব মো শামসুদ্দীন বাবলু,মোঃ জিলহাজ্ব বিশ্বাস,যুগ্ন আহবায়ক মো: মাসিদুর রহমান মাসুদ,সাচিপ এর সভাপতি ডাঃ গোলাম রাব্বানী,১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী মোঃ সামিম আহম্মেদ,১৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থী মোঃ ওয়াহেদুজ্জামান অহেদ,মোঃ শহিদুল ইসলাম,ডাঃ মোঃ রিপন আহম্মেদ, খোরশেদ আলম,মোঃ হুমায়ুন কবির আলী,শান্তিমোড় রামকৃষ্টপুরের বাসিন্দা সেরাজুল ইসলাম, আঃকাইউম আলী প্রমুখ।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন,আজাইপুর রামকৃষ্ণপুর,বটতলাহাট,শংকরবাটি এলাকার ঐতিহ্যবাহী এই বিলটি সংস্কার না করায় বর্তমানে বিলটি প্রায়ই নষ্ট হবার পথে।এই বিলটিতে অত্র এলাকার জনগণ গোসল করে কাপড় ধৌত করে এবং রান্নার জন্য পানি ব্যবহার করে। তবে এই বিল এর বর্তমান অবস্থা এতই খারাপ যে,জঙ্গলে পরিণত হয়েছে, পানি নষ্ট হয়ে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে,এই পানিতে গোসল করলে বিভিন্ন ধরনের অসুখ দেখা দিচ্ছে। তাই অত্র এলাকা বাসির দাবি জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপে দ্রুত এই ঐতিহ্যবাহী বিলটি সংস্কার এবং বিল কে কেন্দ্র করে একটি পর্যটন এলাকা বা পার্ক তৈরি করার জোর দাবি জানাই।