সর্বশেষ সংবাদ নুরকে খোলা চিঠি মাক্স না পড়লে মিলবেনা সরকারী সেবা গোমস্তাপুরে বেতনের অভাবে মানবেতর জীবন যাপন ৪ শতাধিক কে.জি’র শিক্ষকের বিডিপিএ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার বিশেষ সভা রোহিঙ্গাদের জন্য জাপানের ৫ মিলিয়ন ডলার উন্নয়নশীল দেশ ২০২৪ ই নতুন গ্যাসক্ষেত্র অনুসন্ধানে ৭টি প্রস্তাব অনুমোদন গোমস্তাপুর অটোর ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু bring all drivers under a dope testing system: PM দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রকাশ হয়েছে ‘হরিবোল’

পুলিশের অভিযানে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ২৯০ বোতল বাংলামদসহ গ্রেপ্তার এক

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে ২৯০ বোতল চোলাই মদ ( বাংলা মদ)সহ ১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় মাদক বহনে ব্যবহৃত একটি মোটরসাইকেলও জব্দ করে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তি চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার রামকৃষ্ণপুর মাঝপাড়ার মৃত কান্দনের ছেলে মো. শরিফুল ইসলাম (৫০)।

সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো. মোজাফফর হোসেন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার বিদিরপুর মোড় থেকে ব্যাটারি চালিত ভ্যান থেকে ২৯০ বোতল বাংলামদসহ শরিফুলকে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করা হয়।

১১ অক্টোবর রোববার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে এসআই উৎপল কুমার সরকারসহ সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান টি পরিচালনা করে। এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে।

গ্রিনহাউস পদ্ধতিতে উচ্চফলনশীল সবজির চারা উৎপাদন হাওরে

হাওরের জেলা সুনামগঞ্জে প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যা এখন নিয়মিত কৃষকের ক্ষতির কারণ। প্রতিবছরই বন্যায় ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এ বছর টানা চারবার বন্যায় আমন ধানের সঙ্গে সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। তাই শীতের সবজি উৎপাদন নিয়ে দুশ্চিন্তার ভাঁজ কৃষকদের কপালে। এই অবস্থায় ‘গ্রিনহিল সিডলিং ফার্ম’ গ্রিনহাউস পদ্ধতিতে উচ্চফলনশীল সবজির চারা উৎপাদনে নেমেছে। মাটিবিহীন পদ্ধতিতে শূন্য মৃত্যুহার ও পোকা-মাকড়ের বিরুদ্ধে শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাসম্পন্ন চারা বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদনও শুরু করেছে তারা। সিলেট বিভাগের হাওরাঞ্চলে এই পদ্ধতিতে বারো মাস উচ্চফলনশীল সবজির চারা উৎপাদন এটিই প্রথম। ভবিষ্যতে কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র হিসেবেও প্রতিষ্ঠানটিকে গড়ে তোলার চিন্তা করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা। আধুনিক পলিহাউসে নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে সবজির চারা উৎপাদনের প্রথম উদ্যোগ নিয়ে স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন কৃষকরা।

সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সীমান্তের গ্রাম আমপাড়ায় এক একর জমিতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে ‘গ্রিনহিল সিডলিং ফার্ম’। বর্তমানে আগাম ফলনশীল কয়েক প্রজাতির টমেটো, লাউ, ফুলকপি ও কাঁচা মরিচের চারা উৎপাদন করা হচ্ছে। মাটির বদলে প্লাস্টিকের তৈরি বিশেষ ট্রেতে কোকোপিট ব্যবহার করে শতভাগ শিকড়যুক্ত চারা উৎপাদন করা হচ্ছে। তাই মাটিবাহিত রোগজীবাণুতে চারা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সুযোগ নেই।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গ্রিনহাউসের ভেতরে নানা জাতের চারাগাছের পরিচর্যায় ব্যস্ত প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা হাসান আহমদ। তাঁর পাশেই কাজ করছেন প্রকল্পটির একজন পরিচালক অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা গাজী নুরুল ইসলাম। চারার জন্য বেড তৈরি করছেন কয়েকজন শ্রমিক। হাসান আহমদ পরামর্শ দিচ্ছেন। এর মধ্যেই দেখা গেল সাম্প্রতিক চার দফা বন্যায় সবজিক্ষেত ক্ষতিগ্রস্ত এক কৃষক গ্রিনহাউসের ভেতর হন্তদন্ত হয়ে প্রবেশ করছেন। তিনি টমেটো চারা অর্ডার করার জন্য এসেছেন। কর্তৃপক্ষ জানায়, তাঁকে আগামী মাসে চারা সরবরাহ করা সম্ভব হবে। কিছুক্ষণ পর এলাকার আরো দুই কৃষককেও চারার জন্য আসতে দেখা গেল।

আবার চালু হচ্ছে ঢাকা-সিঙ্গাপুর ফ্লাইট চলাচল

দীর্ঘ বিরতির পর আবার চালু হচ্ছে ঢাকা-সিঙ্গাপুর ফ্লাইট চলাচল। আগামী ২০ অক্টোবর থেকে এ ফ্লাইট চলাচল শুরু হবে বলে শনিবার (১০ অক্টোবর) এয়ারলাইনসের ওয়েবসাইটে এ তথ্য জানা গেছে।

ওয়েবসাইটে তারা জানান, আগামী ২০ অক্টোবর রা সাড়ে ৮টা থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটি। সেই সঙ্গে ওই দিন রাত ১২টার দিকে ফ্লাইটটি সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। প্রথম ধাপে সিঙ্গাপুর-ঢাকা-সিঙ্গাপুর রুটে সপ্তাহে দুটি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।

এদিকে সিঙ্গাপুরে যেতে বাংলাদেশি নাগরিকদের করোনা নেগেটিভ সনদ লাগবে বলে সে দেশের সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। এছাড়াও ওই দেশে যাওয়ার পর তাদের আবারো করোনা পরীক্ষা করানো হবে এবং তাদের ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। আর এ জন্য অকিরিক্ত দেড় লাখ টাকা যাত্রীকেই বহন করতে হবে।

তবে সিঙ্গাপুর পৌঁছানোর পর করোনা পরীক্ষা করা হবে। প্রত্যেক যাত্রীকে বিমানবন্দর থেকে সরাসরি ১৪ দিনের জন্য হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। এজন্য অতিরিক্ত প্রায় দেড় লাখ টাকা খরচ হবে, যা যাত্রীকে বহন করতে হবে।

নদীর নাব্য ও গভীরতা ফিরবে, ভাঙ্গন সমস্যার হবে সমাধান

উত্তরাঞ্চলের বড় নদীর গভীরতা বেড়ে বন্যা নিয়ন্ত্রিত হবে। বছর বছর বন্যার পানি বৃদ্ধি এবং কমর সময় বসতভিটা, জমি-জিরাত যমুনার ভাঙ্গনের তোপের মুখে পড়ে হাজারো মানুষ নিস্ব হবে না। সকাল বেলার গেরস্ত সব হারিয়ে ফকির হবে না সন্ধ্যায়। ছোট নদীগুলো হারানো নাব্য ফিরে পেয়ে পূর্বের ¯্রােত রেখায় বয়ে যাবে। নদীর এই প্রবাহ গ্রামীণ জীবনের অর্থনৈতিক প্রবাহ বাড়িয়ে দেবে। বলা হয়, উত্তরাঞ্চলের মানুষ অবহেলিত (!)। সেই অবস্থা আজ আর নেই। সুষম উন্নয়নে দেশের উত্তরাঞ্চলে চোখ মেলে তাকিয়েছে আকাশপানে।

নদীমাতৃক এই দেশে উত্তরাঞ্চলের নদীগুলোকে স্বাভাবিক প্রবাহে ফিরিয়ে আনতে সরকার নদী রক্ষায় বহুমুখী কর্মসূচীর মেগা প্রকল্প গ্রহণ করেছে। বৃহৎ এই প্রকল্পটি জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদন দিয়েছেন ২০১৮ সালের শেষভাগে। বাঙালী-করতোয়া-ফুলজোড়-হুরাসাগর নদী সিস্টেম ড্রেজিং পুনর্খনন ও তীর সংরক্ষণ নামের এই প্রকল্পে ব্যয়ের প্রাক্কলন হয়েছে দুই হাজার ২৩৫ কোটি টাকা। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় বৃহৎ এই প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের প্রাথমিক সকল কাজ শেষ করেছে। গত বছর জানুয়ারি মাসেই প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ হয়েছে।

কর্মসূচী বাস্তবায়নের শুরুতেই করোনার থাবায় ভাটা পড়ে। তবে করোনাকালেও সরকারী পর্যায়ের ফাইল ওয়ার্ক সীমিত ভাবে চলতে থাকে। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) সূত্র জানায়, প্রকল্প বাস্তবায়নে দুটি পর্যায়ের নতুন একটি বিষয় সংযোজিত হয়েছে। তা হলো : নদীর গভীরতাকে চিরস্থায়ী করে নদীকে রক্ষা করে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ ধরে রাখা হবে। ড্রেজিংয়ের এই কাজটি করবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। এর আগে সারিয়াকান্দিতে যমুনায় রিভেটমেন্ট ও শক্তিশালী বাঁধের নির্মাণ কাজ করেছে সেনাবাহিনী। বৃহৎ এই প্রকল্পে নদীর গভীরতাকে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে নিয়ে ¯্রােতধারাকে বাড়িয়ে দিলে বন্যা নিয়ন্ত্রণ ও ভাঙ্গন দূর হবে। একজন পানি প্রকৌশলী জানান, এর আগে বন্যা নিয়ন্ত্রণের নামে নদীর উৎসমুখ বন্ধ করে অপরিকল্পিতভাবে অবকাঠামো গড়ে তোলায় নদী নাব্য হারিয়েছে। তলদেশ ভরাট হয়ে নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ রুদ্ধ হয়েছে কখনও সরাসরি তীর ও চরগ্রাম ভেঙ্গেছে। কখনও স্বাভাবিক প্রবাহে বাধা পেয়ে নদী ক্ষেপে গিয়ে ব্যাক ফ্লো করে আরও শক্তি সঞ্চয় করে কয়েকগুণ বেশি গতিতে তীর বসত ভিটা জমিজিরাত ভেঙ্গে দিয়েছে। এই অবস্থার পুনরাবৃত্তি যেন না হয় সে জন্যই নদীর গভীরতা বাড়িয়ে দিতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তিতে ক্যাপিটাল ড্রেজিংসহ অন্যান্য ড্রেজিং করা হবে।

প্রকল্পের তীর সংরক্ষণের কাজ করবে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)। তীর সংক্ষণের কাজের মধ্যেও নদী ড্রেজিংয়ের পর আনুষঙ্গিক যে কাজগুলো থাকে সেগুলো পাউবো করবে। এর মধ্যেও ভাঙ্গন প্রতিরোধ ও বন্যা নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি থাকবে। সব মিলিয়ে পাউবো পরবর্তী কাজগুলোর ধারাবাহিকতা রক্ষা করবে। যাতে বৃহৎ এই প্রকল্পটি অজেয় হয়ে থাকে। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দ্রুত বাস্তবায়নের সার্বিক কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। ড্রেজিং কাজের বিষয়টি নিয়ে শীঘ্রই সেনবাহিনীর উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে উভয় পক্ষ (পাউবো ও সেনাবাহিনী) কাজ বুঝে নেবে।

এই প্রকল্প বাস্তবায়নে বগুড়া, গাইবান্ধা ও সিরাজগঞ্জে মরা গাঙ্গে পরিণত হওয়া নদীর নাব্য ও গভীরতা বাড়িয়ে নদীকেন্দ্রিক উন্নয়নের বহুমুখী ধারা গড়ে তোলা হবে। প্রকল্প বাস্তবায়নে নদীগুলো অতীতের ¯্রােতধারা ফিরে পাবে। বর্তমান প্রজন্ম ছোট নদীগুলোর শুধু নামই শুনেছে। সেদিনের সেই প্রবাহ দেখেনি। খেয়াঘাট খেয়া পারাপার প্রজন্মের অচেনা। অথচ এই নদীকে ঘিরেই কৃষির সেচ কাজ, নদী পারাপারে পণ্য নিয়ে এক হাট থেকে আরেক হাটে গিয়ে বেচাকেনা হতো। এভাবে নদী কেন্দ্রিক কৃষি পণ্যের এই বিপণনে গ্রামীণ অর্থনীতি চাঙ্গা হয়ে ওঠে সাশ্রয়ী যোগাযোগে। এই খেয়াঘাট বা খেয়া পারাপারকে কেন্দ্র করে মিনি নৌবন্দর গড়ে ওঠে। প্রকল্প সংশ্লিষ্ট পানি বিজ্ঞানী জানান, প্রকল্প ঘিরে বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে নৌবন্দর গড়ে তুলে চারপাশের এলাকায় উন্নয়ন কাঠামো গড়ে তোলার পরিকল্পনা আছে। এই প্রকল্পের অনেক আগে যমুনা তীরের সারিয়াকান্দি এলাকাকে নৌবন্দর রূপান্তরের একটি পরিকল্পনা রয়েছে। বর্তমান প্রকল্পের সঙ্গে এটিকে সংযুক্ত করার কথাও ভাবা হচ্ছে। দূর অতীতে বগুড়ার সারিয়াকান্দির সঙ্গে পাশর্^বর্তী জামালপুর জেলার সঙ্গে নৌপথে উত্তরাঞ্চলের সঙ্গে পূর্বাঞ্চলের নদীকেন্দ্রিক যোগাযোগ ছিল।

ভোলাহাটে বৃদ্ধার আত্মহত্যা !

ভোলাহাট প্রতিনিধি

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাট উপজেলার ইমাম নগর গ্রামের মুনসুর আলী (৬০) নামে এক
বৃদ্ধা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। রবিবার সকাল ১১টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে কোয়াটার কিলোঃ পূর্বে মঞ্জুর মাষ্টারের আম বাগানের ডালে দড়ি দিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

নিহত মুনসুর আলী ইমাম নগর গ্রামের মৃত টুলু কিসাইয়ের ছেলে।

স্থানীরা লাশটি দেখতে পেয়ে ভোলাহাট থানা পুলিশকে খবর পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

ভোলাহাট সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইয়াজদানী জজ জানান, বাড়ির সকলের অজান্তে বাগানের মধ্যে গলায় দড়ি পেঁচিয়ে মুনসুর আলী আত্মহত্যা করেছে। এক পর্যায়ে স্থানীয়রা তার ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পায়।

থানা পুলিশের ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবর রহমান বলেন,এ ব্যাপারে ভোলাহাট একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে এবং ময়না তদন্তের মর্গে প্রেরণ হয়েছে।

পার্বতীপুর ইউপির সদস্য পদে উপনির্বাচনে ফয়সাল বিজয়ী

  গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার পার্বতীপুর ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন ফয়সাল কবির। মোরগ  প্রতিকে তিনি ভোট পেয়েছেন ৯৯৭ টি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শ্রী কমল চন্দ্র (তালা) প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ৭২৮টি। উল্লেখ্য, ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মারা যাওয়ায় শনিবার এ উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

32nd span of Padma Bridge installed

The 32nd span of the Padma Bridge was installed today, bringing a total of 4,800 kilometres of the structure into view.

The span was installed on the fourth and fifth pillars at Mawa end in Munshiganj around 9:30am, said Executive Engineer of the project Dewan Md Abdul Kader.

The authorities tried to install the span yesterday but they failed to fix it due to strong current in the river and difficulties in anchoring the crane carrying the span, our Munshiganj correspondent reports quoting the engineer.

The authorities have a plan to install two more spans this month, while the rest nine will be fixed by December, he said.

The 6.15km-long bridge will have a total of 41 spans.

লঞ্চের তলা ফেটে ঢুকছে পানি, আর্তনাদ ১২০ যাত্রীর

ডেস্ক : কাঁঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ড্রেজারের পাইপের ধাক্কায় এমভি শাহপরান নামে একটি লঞ্চের তলে ফেটে পানি ঢুকছে। এ ঘটনায় বাঁচার জন্য লঞ্চের ১২০ যাত্রী আর্তনাদ করছেন।

রোববার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

এমভি শাহপরান লঞ্চের যাত্রীদের উদ্ধারে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

বিস্তারিত আসছে…

‘আমার দারুন লাগছে’- করোনায় আক্রান্ত ট্রাম্পের উক্তি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রাণঘাতী করোনায় সংক্রমিত হওয়ার ৯ দিন পর এক নির্বাচনী প্রচারণায় বক্তব্য দিতে গিয়ে নিজের অনুভূতি প্রকাশ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেছেন, ‘আমার দারুন লাগছে’। খবর বিবিসির

যদিও ট্রাম্প করোনামুক্ত হয়েছেন কি না সে বিষয়ে এখন পর্যন্ত কিছু জানায়নি হোয়াইট হাউস। তবে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক জানিয়েছেন, ট্রাম্পের কাছ থেকে এখন করোনা ছড়ানোর সম্ভাবনা নেই।

শনিবার বিকেলে হোয়াইট হাউসের ব্যালকনিতে দাঁড়িয়ে সমর্থকদের সামনে সংক্ষিপ্ত ভাষণ দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তিনি বলেন, ‘আমি খুব ভালো আছি। বেরিয়ে আসুন ভোট দিন এবং আমি আপনাদের ভালোবাসি।’

ট্রাম্প আরো জানান, বিতর্ক বাদ দিয়ে তিনি তার সমর্থকদের সঙ্গে র‍্যালি করতে পছন্দ করেন।

আগামী ৩ নভেম্বর আমেরিকায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের দিন ধার্য করা হয়েছে। এদিকে সব ধরনের জনমত সমীক্ষায় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জো বাইডেন তার থেকে এগিয়ে রয়েছেন।

এর আগে ট্রাম্পের করোনার কারণে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জো বাইডেনের সঙ্গে দ্বিতীয় বিতর্ক বাতিল হয়। ভার্চুয়াল বিতর্কের প্রস্তাব দিলে সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন ট্রাম্প। তিনি সরাসরি বিতর্কে অংশ নিতে চেয়েছিলেন।

সম্প্রতি করোনা সংক্রমিত হওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন ট্রাম্প নিজেই। তারপরই সামরিক হাসপাতালে চারদিন চিকিৎসা নিয়ে ফেরেন হোয়াইট হাউসে। তবে তার করোনা নেগেটিভ এসেছে কি না সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু জানায়নি হোয়াইট হাউস।

তবে এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউসের চিকিৎসক শন কনলি জানিয়েছেন, ট্রাম্পের করোনা টেস্টে দেখা গেছে, তিনি এখন আর অন্যদের জন্য ঝুঁকির কারণ নন। পরীক্ষার ফলাফল বলছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের শরীরে সক্রিয়ভাবে ভাইরাসের প্রতিলিপি তৈরির কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

কনলির এ বিবৃতির বিষয়ে তাৎক্ষণিক কোনও মন্তব্য করেনি হোয়াইট হাউস। এমনকি, ট্রাম্পের করোনা টেস্টের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে কি না সেটাও নিশ্চিত করেনি কেউ।

এদিন ব্যালকনিতে আসার সময় মাস্ক পরা থাকলেও সেখানে গিয়েই সেটি খুলে ফেলেন ট্রাম্প। হোয়াইট হাউসে সমবেত কয়েকশ’ সমর্থকের মুখে মাস্ক থাকলেও সেখানে সামাজিক দূরত্বের কোনও বালাই ছিল না।

করোনা পজিটিভ হওয়ার পর থেকেই একাধিকবার বিতর্কে জড়িয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। অভিযোগ আছে, করোনা সংক্রমিত হওয়ার কথা জানতে পেরেও সেটা নাকি গোপন করতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প।

মাসে ১৫ জিবি ইন্টারনেট পাবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা


অনলাইন ক্লাসে উপস্থিতি বাড়াতে শিক্ষার্থীদের প্রতি মাসে বিনামূল্যে ১৫ জিবি ইন্টারনেট সেবা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) প্রশাসন। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা রবি সিম ব্যবহার করে এ সেবা পাবেন।

শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে ক্যাম্পাস বন্ধ থাকায় শাটল ট্রেনসহ অনেক খাতে ব্যয় কমেছে। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, এই অর্থ শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের কল্যাণে ব্যয় করা হবে।’

অধ্যাপক এস এম মনিরুল হাসান আরো বলেন, ‘যত দ্রুত সম্ভব দেশের বিভিন্ন স্থানে থাকা চবি শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাস নিশ্চিত করতে মাসে ১৫ জিবি ইন্টারনেট সরবরাহের উদ্যোগ নিয়েছি আমরা।’

এ সেবা দিতে রবি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চুক্তি হয়েছে বলেও জানান তিনি।