সর্বশেষ সংবাদ নুরকে খোলা চিঠি মাক্স না পড়লে মিলবেনা সরকারী সেবা গোমস্তাপুরে বেতনের অভাবে মানবেতর জীবন যাপন ৪ শতাধিক কে.জি’র শিক্ষকের বিডিপিএ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা শাখার বিশেষ সভা রোহিঙ্গাদের জন্য জাপানের ৫ মিলিয়ন ডলার উন্নয়নশীল দেশ ২০২৪ ই নতুন গ্যাসক্ষেত্র অনুসন্ধানে ৭টি প্রস্তাব অনুমোদন গোমস্তাপুর অটোর ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু bring all drivers under a dope testing system: PM দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রকাশ হয়েছে ‘হরিবোল’

রোহিঙ্গারা ভোটার হচ্ছে , নেপথ্যে স্থানীয় রাজনীতি

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কঠোর নিরাপত্তা ও নির্দেশনার পরও রোহিঙ্গাদের হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পৌঁছে যাচ্ছে। বিভিন্ন সময় দেখা যাচ্ছে চট্টগ্রাম অঞ্চল ছাড়াও পিরোজপুরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিদ্যমান ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হচ্ছেন মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গারা।

রোহিঙ্গাদের ভোটার বানাচ্ছে শক্তিশালী সিন্ডিকেট। সীমান্ত এলাকায় ভোটের রাজনীতিতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন রোহিঙ্গারা। এদিকে কোন কোন রোহিঙ্গা ভোটার ১৫ বছর বয়স বাড়িয়ে তালিকায় ঢুকে নিচ্ছেন বয়স্ক ভাতাও।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত বিভিন্ন তথ্য উঠে আসে। এদিকে চ্যানেল ২৪ এর প্রতিবেদনে উঠে আসে ঘুমধুম ইউনিয়নের ভোটার তালিকার একজন রোহিঙ্গার নাম। তিনি পেশায় একজ ভ্যান চালক। রোহিঙ্গা শরনার্থী হিসেবে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে এদেশে এসে ভোটারও হয়েছেন। বয়স ৫২ হলেও জাতীয় পরিচয়পত্রে ১৫ বছর বাড়িয়ে নিচ্ছেন বয়স্ক ভাতাও।

আর এতকিছু সম্ভব হয়েছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কল্যাণে। এলাকাবাসী সবাই তার রোহিঙ্গা পরিচয় ও এনআইডি জালিয়াতির ঘটনা জানলেও স্থানীয় মেম্বার জানেন না কিছুই।

এ প্রসঙ্গে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আবছার বলেন, নাইক্ষ্যংছড়িতে দিনে দিনে শক্তিশালী হয়ে উঠছে রোহিঙ্গা ভোটাররা। উপজেলা থেকে শুরু করে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে তাদের এই শক্তিশালী সিন্ডিকেট। এ নিয়ে সহজে মুখও খুলতে চান না অনেকে।

কিন্তু রোহিঙ্গা ভোটারদের বিরুদ্ধে কথা বলতে জনপ্রতিনিধিদের কিসের ভয়? এ জনপদের বাসিন্দারা বলছেন, ভোটের রাজনীতিতে জয়-পরাজয়ে বড় ভূমিকা রাখছে রোহিঙ্গারা। ফলে আওয়ামী লীগ-বিএনপি রাজনীতির বলয় ছাপিয়ে এই অঞ্চলে আলাদা দুটি ধারা তৈরি হয়েছে। রোহিঙ্গা বান্ধব আর বিরোধী।

ঘুমধুমের বাসিন্দাদের অভিযোগ, রাজনীতি আর টাকার খেলায় ১৩ রোহিঙ্গা বাদ পড়েছেন ভোটার তালিকা থেকে। বাকিরা আছেন বহাল তবিয়তেই।

শুধু নাইক্ষ্যংছড়িই নয়, এই রোহিঙ্গাদের অনেকে ছড়িয়ে পড়ছে আশপাশের উখিয়া, টেকনাফ, কক্সবাজার, রামু, সাতকানিয়াসহ আশপাশের জেলা ও উপজেলাগুলোতে। কেউ কেউ আবার পাসপোর্ট নিয়ে পাড়ি জমাচ্ছেন বিদেশেও।

এদিকে ২০১৯ সালের ৩ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম থেকে পাসপোর্ট নিতে গিয়ে আটক হন এক রোহিঙ্গা নারী। তার কাছ থেকে পাওয়া যায় একটি জাতীয় পরিচয়পত্র। ঐ রোহিঙ্গা নারীর হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র পাওয়ার ঘটনায় টনক নড়ে প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশনের।

নির্বাচন কমিশন তদন্তে নেমে পায় অবাক করা তথ্য। কমিশনের কিছু দুর্নীতিবাজ ডাটা এন্ট্রি অপারেটর, কর্মকর্তা কর্মচারী ও দালাল চক্রের সমন্বয়ে এ অঞ্চলে গড়ে উঠেছে একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট। অর্থের বিনিময়ে রোহিঙ্গাদের হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র তুলে দেওয়ার মিশন। ঐ ঘটনায় তাদের আটকসহ ও বরখাস্তও করা হয় নির্বাচন কমিশনের কয়েকজন কর্মকর্তা কর্মচারীকে।

তাদেরই একজন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসের উচ্চমান সহকারি আবুল খায়ের। রোহিঙ্গাদের এনআইডি দেয়ার মামলায় দীর্ঘদিন জেল খেটে সাময়িক বরখাস্ত হয়েছিলেন। বরখাস্ত হয়েও কাজ করছেন নিজ দপ্তরে।

সিন্ডিকেটের আরেক সদস্য কক্সবাজার জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহকারি মোজাফফর। তদন্ত কমিটির সুপারিশে বরখাস্ত হলে তিনিও দপ্তরে ছিলেন কর্মরত আছেন। বরখাস্ত কর্মকর্তা-কর্মচারিরা বহাল তবিয়তে কাজ করায় অবাক নির্বাচন কমিশন সচিবও।

রোহিঙ্গাদের ভোটার করার মামলায় আটককৃতদের ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে উঠে আসে জাতীয় পরিচয়পত্র বিভাগের পরিচালকসহ উর্ধ্বতন কয়েকজন কর্মকর্তার নাম।

এ পর্যন্ত তিন দফায় তদন্ত হয়েছে, কোন ফল পায়নি নির্বাচন কমিশন। এ নিয়ে উচ্চতর তদন্ত কমিটি কাজ করছে চক্রের সদস্যদের ধরতে।

এমসি কলেজের হোস্টেলে তরুণীকে গণধর্ষণ: ধর্ষণের দায় স্বীকার করেছে রাজন, আইনুল ও মাহবুবুর

সিলেট প্রতিনিধি

সিলেটের এমসি কলেজের হোস্টেলে তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনার দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন আসামি রাজন, আইনুল ও মাহবুবুর রহমান রনি।

এর মধ্যে আসামি রাজন সিএমএম- ১ এর অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. জিয়াদুল ইসলামের আদালতে এবং বাকি দুই আসামি রনি ও আইনুদ্দিন সিএমএম কোর্ট- দুই ও তিনে বিচারক সাইফুর রহমান এবং শারমিন খানম নিলার আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দেন বলে জানা গেছে।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) অমূল্য কুমার এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে পাঁচ দিনের রিমান্ড শেষে দুপুরে তাদেরকে সিএমএম আদালতে নিয়ে যায় শাহপরান থানা পুলিশ। এর আগে একই মামলায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন প্রধান আসামি সাইফুর রহমান, অর্জুন ও রবিউল।

অমুল্য কুমার চৌধুরী জানান, শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ১ এর অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট জিয়াদুর রহমানের আদালতে দীর্ঘ শুনানির পর প্রথমে অর্জুন ও সাইফুর রহমান স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

পরে ১ম আদালতে সময়ক্ষেপণ হওয়ায় আসামি রবিউল ইসলামকে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ২ এর বিচারক সাইফুর রহমানের আদালতে হাজির করা হলে একইভাবে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন রবিউল ইসলাম।

স্বীকারোক্তির পর তাদের তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত।

এদিকে রিমান্ডে থাকা বাকি দুই আসামি তারেক ও মাসুমকে আগামীকাল আদালতে তোলা হতে পারে। এর মাধ্যমে ৮ আসামির জবানবন্দি পর্ব শেষ হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পুলিশ ও ক্রীড়া সংস্থা ফুটবল দলের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত


এ. সোহাগ,চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশ ফুটবল দল ও জেলা ক্রীড়া সংস্থা ফুটবল দলের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
৩ অক্টোবর শনিবার বিকাল ৪ টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুরাতন স্টেডিয়ামে জেলা পুলিশ ফুটবল একাদশ ও জেলা ক্রীড়া সংস্থা ফুটবল একাদশের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিদায়ী জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি এ জেড এম নুরুল হক, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার এ এইচ এম আবদুর রকিব বিপিএম পিপিএম। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ জাকিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ইকবল হোসাইন,অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট দেবেন্দ্রনাথ ওরাঁও জেলা যুবলীগের সভাপতি সামিউল হক লিটন,জেলা পরিষদ সদস্য আব্দুল হাকিম সহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তা ও জেলা পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা বৃন্দ। অনুষ্ঠান শেষে বিদায়ী জেলা প্রশাসকে সংবর্ধনা দেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার পক্ষ থেকে।আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া অফিসার জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক সহ সভাপতি আব্দুল হান্নান। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহাবুব আলম খান।প্রীতি ফুটবল ম্যাচে জেলা ক্রীড়া সংস্থা একাদশ ৫–০ গোলে জেলা পুলিশ একাদশ কে পরাজিত করে।বিজয়ী দলের আহাদ,মালেক দুটি করে এবং ওমর একটি গোল করে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের পৃথক অভিযানে ইয়াবা-ফেনসিডিলসহ আটক ২

র‌্যাব-৫ রাজশাহী, সিসিপি-১ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের মাদকবিরোধী পৃথক অভিযানে ৯ হাজার ৮’শ পিস ইয়াবা ও ২’শ বোতল ফেনসিডিলসহ শীর্ষ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়েছে। শনিবার বেলা ৩ টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের সোনাপুর এলাকা হতে ৯ হাজার ৮’শ পিস ইয়াবাসহ ব্যবসায়ীকে আটক করা হয়। র্যাব-৫ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, আটক শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী শাহবাজপুর ইউনিয়নের সাইদুল হকের ছেলে সামির হোসেন ওরফে কালু (১৯)। এসময় একটি মোবাইলফোন, দুটি সীম ও একটি মেমোরি কার্ড শব্দ করে র্যাব। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসার কথা স্বীকার করেছে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী কালু। এব্যাপারে শিবগঞ্জ থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানায় র্যাব। এর আগে শুক্রবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে পৃথক অভিযানে ২’শ বোতল ফেনসিডিলসহ শিবগঞ্জ উপজেলার হামিদনগর এলাকা হতে শীর্ষ মাদক মো. মিজানুর রহমানকে আটক করে র‌্যাব-৫

শিবগঞ্জের পাঁকা ইউপির উপ-নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন:নির্বাচন ১০ অক্টোবর


স্টাফ রিপোর্টার, শিবগঞ্জ ঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জে শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নে উপ-নির্বাচন আগামী ১০ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।ইতিমধ্যেই প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ সম্পন্ন হয়েছে।
রির্টানিং অফিসার ও শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন অফিসার মাহবুবুল কবির জানায়, আগামী ১০ অক্টোবর পাকা ইউনিয়নের উপ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে। ইতিপূর্বে গত ২৯ মার্চ তারিখ ইউপি উপ-নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু করোনা ভাইরাসের কারণে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছিল। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছেন বীরমুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন মাস্টার (নৌকা), সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক (ধানের শীষ), মরহুম চেয়ারম্যান মজিবুর রহমানের সহধর্মণী মোসা. পারভিন (আনারস) ও জালাল উদ্দিন (মটরসাইকেল)। এর আগে নির্বাচনী তারিখ ঘোষণার সময় প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। পাঁকা ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ১৪ হাজার ৩শ ৭৯ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৩’শ ৬৭ জন ও মহিলা ভোটার ৭ হাজার ১২ জন। ৯টি ভোট কেন্দ্রে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে করোনাভাইরাস ও পদ্মা নদীর পানি পাঁকা ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে থাকলেও থেমে নেই নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা। কেউ বা হেটে আবার কেউ বা নৌকাতে প্রচারণা চালাছে।
প্রসঙ্গত: চলতি বছরের ৮ জানুয়ারি শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান মৃত্যুবরণ করায় চেয়ারম্যানের পদটি শূন্য হয়।

শাহবাজপুর সোনামসজিদ কলেজে নতুন ভবন উদ্বোধন


শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার শাহবাজপুর সোনামসজিদ ডিগ্রি কলেজের চারতলা ভিত বিশিষ্ট একতলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের উদ্বোধন করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ৮৬ লাখ টাকা ব্যয়ে একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ফলক উম্মোচন করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। এ উপলক্ষে কলেজ মিলনায়তনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ একরামুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন সাংসদ ডা. শিমুল। বিশেষ অতিথি ছিলেন কলেজের গর্ভনিং বডির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী (সিভিল) তৌহিদুজ্জামান। এছাড়াও শাহবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোজাম্মেল হকসহ অন্যরা। পরে কলেজ উন্নয়নে ১০ লাখ টাকার অনুদান ঘোষণা করেন সাংসদ ডা. শিমুল।

গোমস্তাপুরে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি ঃ মিথ্যা মামলার প্রতিবাদ ও প্রত্যাহারের দাবীতে উপজেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাগণ। শনিবার দুপুরে উপজেলা প্রেসক্লাব কার্যালয়ে বোয়ালিয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন,বোয়ালিয়া ইউনিয়নের বীরমুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক উপাধ্যক্ষ মোকবুল হোসেন। সংবাদ সম্মলনে বলেন, গত ৮ সেপ্টেম্বর ওই ইউনিয়নের রাজাকারের সন্তান জনৈক শরিফুল ইসলাম কর্তৃক ১০ জন মুক্তিযোদ্ধা সহ ১২ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সহকারী জজ আদালতে দায়ের করা এ মামলাটি জমিজমা সংক্রান্ত। মুক্তিযোদ্ধাদের দাবী, তাদের হয়রানী করার উদ্দ্যেশে এ মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। তারা অবিলম্বে এ মামলা প্রতাহারের দাবী জানান। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, সাবেক উপজেলা কমান্ডার মোজাম্মেল হক, সাবেক জেলা ডেপুটি কমান্ডার তাজুল ইসলাম সোনারদী, ইউনিয়ন কমান্ডার নিজাম উদ্দিন,বজলুল হক, বাহার আলী, মুক্তিযোদ্ধা মজিদুল হক দুলাল, বরজাহান আলী, বীরাঙ্গনা হাজেরা বেগম ও আরবী বেগম প্রমূখ।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিকাশের টাকা তুলতে গিয়ে নির্যাতনের শিকার ছাত্রী: মামলা দায়ের,গ্রেফতার ১

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে বিকাশের টাকা উঠাতে গিয়ে চেয়ারম্যানের ভাগ্নে ও দোকান মালিক সোহানের নির্যাতনের শিকার হয়েছে এক কলেজ ছাত্রী। ঘটনার ৪ দিন পর শনিবার(০৩ অক্টোবর) সকালে নির্যাতিত মেয়েটি থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ আসামী সোহান কে আটক করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছে।
অভিযুক্ত বিকাশ এজেন্ট নাচোল উপজেলার মল্লিকপুর বাজারের বিকাশের এজেন্ট ও গোমস্তাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জামাল উদ্দীনের ভাগ্নে সোহান।

নাচোল থানায় দায়েরকৃত মামলা সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে বান্ধবীর দেয়া ধারের টাকা বিকাশের দোকানে উঠাতে যায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার গোবরাতলা মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী ও শিবগঞ্জ উপজেলার ধাইনগর ইউনিয়নের গুপ্তমানিক-মুক্তারোড়া গ্রামের মো. টিপুর দ্বিতীয় মেয়ে জান্নাতি খাতুন। পরে বিকাশের এজেন্ট মোবাইল নিয়ে দেখতে পায় ম্যাসেজ এসেছে, কিন্তু কোন ব্যালান্স নেয়। সেটি জান্নাতিকে বললে সে দোকান ত্যাগ করে চলে আসে। এরপর ঐ দোকানদার প্রায় ১ কিলোমিটার দূর থেকে সে ছাত্রীকে ধরে নিয়ে গিয়ে দোকানের সামনে দড়ি দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে । মল্লিকপুর বাজারে দোকানের সামনে ৩ ঘন্টা বেঁধে রাখার সময় বাজারের লোকজন মোবাইলে ছবি ধারন করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড হলে শুক্রবার(২ অক্টোবর) তা দ্রত ভাইরাল হয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের অনুরোধে মেয়েটিকে ছেড়ে দেন চেয়ারম্যানের ভাগ্নে ও বিকাশ এজেন্ট সোহান।
এ ব্যাপারে নির্যাতনের শিকার জান্নাতি বলেন, আমার সহপাঠী গোবরাতলা ইউনিয়নের মহিপুর গ্রামের প্রবাসী শহিদুল ইসলামের মেয়ে সুমাইয়া খাতুন আমার নম্বরে বিকাশে আমার পাওনা ১০ হাজার টাকা পাঠায়। সোমবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে সেই টাকা উঠাতে গেলে মহিপুর মোড়ে বিকাশের দোকান বন্ধ পায়। পাশের একজনের পরামর্শে, মল্লিকপুর বাজারে সেই দোকানে গেলে এজেন্ট আমার ফোন চাই। ফোন নিয়ে তিনি বলেন, ম্যাসেজ আছে কিন্তু ব্যালান্সে টাকা নেয়। এরপর সেখান থেকে আমার আরেক বান্ধবীর বাড়ির উদ্দেশ্য রওনা হলে ১ কিলোমিটার দুরে খলসী বাজারে গেলে সেখান থেকে আমাকে ধরে ভ্যানে করে আবারো মল্লিকপুর বাজার থেকে তাকে ধরে নিয়ে যায় বিকাশ এজেন্ট সোহান।
তিনি আরো জানায়, দোকানের সামনে চোরের মতো দড়ি দিয়ে খুঁটির সাথে বেঁধে রেখে নির্যাতন ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এজেন্ট সোহান ও তার লোকজন। এসময় আমার ফোন কেড়ে নিয়ে সব ম্যাসেজ ডিলেট করে দেয় এবং আমার পরিবারের সাথেও যোগাযোগ করতে বাধা দেয়। পরে স্থানীয়দের অনুরোধে তারা আমার এক চাচাতো দুলাভাইয়ের কাছে ছেড়ে দেয়।

এদিকে জান্নাতির বড় বোন মাসকুরা বেগম বলেন, সেই বাজারে সোহানের দোকানের সামনে দিয়ে জান্নাতিকে বাসায় নিয়ে আসার সময় তারা বলছে, এবার ছেড়ে দিলাম। এনিয়ে কোন বাড়াবাড়ি করলে খবর আছে। আমরা এর উপযুক্ত বিচার চাই।
এদিকে জান্নাতির দেয়া তথ্যে তার সহপাঠী গোবরাতলা ইউনিয়নের মহিপুর গ্রামের সুমাইয়া খাতুনের যে নম্বর থেকে ম্যাসেজ গিয়েছিলো সেই নম্বরে অনেকবার চেষ্টা করেও সে নম্বরটি বন্ধ পাওয়া গেছে।
অন্যদিকে গ্রেফতারের আগে শুক্রবার রাতে অভিযুক্ত বিকাশের এজেন্ট সোহান মুঠোফোনে জানায়, বিকাশে প্রতারক সন্দেহে তাকে আটক করা হয়। পরে মেয়েটির পরিবারের সাথে সমাধান করে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে সমাধানের বিষয়টি অস্বীকার করে জান্নাতির পরিবার।
এদিকে এ ঘটনায় ভুক্তভোগী মেয়েটি নাচোল থানায় সোহানকে প্রধান আসামী করে একটি অভিযোগ দায়ের করলে নাচোল থানা পুলিশ সেহান কে আটক করে।
এ ব্যাপারে নাচোল থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি,তদন্ত ) আ: হান্নান জানান, মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে সোহানকে আটকের পর আদালতে হাজির করা হলে মহামান্য আদালত সোহানকে জেল হাজতে প্রেরণ করে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ও সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন সম্পন্ন

 
নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : মানবতার স্পর্শে, মেতেছি উল্লাসে এ স্লোগান কে সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্পর্শ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমাণ ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ও সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়েছে। 
ক্যাম্পেইন এ ১৫০জন এর অধীক মানুষের গ্রুপিং নির্ণয় করা হয়েছে। এ সময় স্পর্শ ফাউন্ডেশনের সদস্য বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 
২ অক্টোবর শুক্রবার বেলেপুকুরে কিডস ভ্যালি স্কুলে বিকেল ৩ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলে। এখানে ব্লাড গ্রুপিং এর পাশাপাশি সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণও করা হয়। মহৎ এ কাজের জন্য স্পর্শ টিমকে বাহবা দিয়েছেন দিয়েছেন এলাকাবাসী।
যদি মেনে চলি রক্তদানের নিয়মনীতি, রক্তদানে কারও হবে না ক্ষতি। প্রস্তুত যদি থাকে ২ জন রক্তদাতা, থাকবে গর্ভবতী মায়ের প্রাণের নিশ্চয়তা।

গোমস্তাপুর ও নাচোলে জেলা প্রশাসককে বিদায় সংবর্ধনা

নাচোল/ গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল ও গোমস্তাপুরে বিদায়ী জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হককে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।
শনিবার সকালে গোমস্তাপুর উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমানরে সভপতিত্বে আয়োজিত সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য রাখেন, বিদায়ী জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ হুমায়ুন রেজা, রহনপুর পৌর মেয়র তারিক আহমদ, গোমস্তাপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহিদুর রহমান, রহনপুর ইউসুফ আলী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম ডলার, রহনপুর ইউপি চেয়ারম্যান শাহ্ আল শফি আনসারী, উপজেলা প্রকৌশলী সুলতানুল ইসলাম, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুদ হোসেন, জেলা পরিষদ সদস্য ও জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হালিমা খাতুন, ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম প্রমুখ। এ সময় উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান, অন্যান্য ইউপি চেয়ারম্যান,উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাবৃন্দসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
অপরদিকে নাচোলে বিদায়ী জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হকের বিদায় সংবর্ধনা

নাচোলে বিদায়ী জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হকের বিদায়ী সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। আজ শনিবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়। উপজেলা নিবার্হী অফিসার সাবিহা সুলতানা সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক এ.জেড.এম নুরুল হক, নাচোল উপজেলার চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউল বাবু, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জান্নাতুন নাঈম মুন্নি, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) আঃ হান্নানসহ মুক্তিযোদ্ধা, বিভিন্ন অফিসের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক মন্ডলী, সাংবাদিক সহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।