সর্বশেষ সংবাদ PM Hasina mourns death of Diego Maradona মেঘ কাটলেই বাড়বে শীত, তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা করোনায় ঝরে গেল আরও এক বাংলাদেশি তারকার প্রাণ চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‍্যাবের অভিযানে ৮ জুয়াড়ি গ্রেফতার গোমস্তাপুরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন বিষয়ক সেমিনার তথ্য-প্রযুক্তির ব্যবহারে বাংলাদেশ বিশ্বে অনুকরণীয় ভ্যাকসিন পেতে সরকারের ৭৩৫ কোটি টাকা ছাড় নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার সহনীয় রাখতে অারও যে সব পণ্য কেনা হবে সোনা মসজিদ স্থলবন্দরে মতবিনিময় সভা ও সহায়তা প্রদান ম্যারাডোনার মরদেহের ময়নাতদন্ত হবে

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের স্মরণে ডাকটিকিট অবমুক্ত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে ২০১৭ সালের ৩০ অক্টোবর ইউনেসকো ‘বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য’ স্বীকৃতি দিয়েছে। এ উপলক্ষ্যে ডাক অধিদপ্তর ১০ টাকা মূল্যমানের দুটি স্মারক ডাকটিকিটের সমন্বয়ে ৩০ টাকা মূল্যমানের একটি স্যুভেনির শিট অবমুক্ত করেছে।

এছাড়া এই উপলক্ষে ১০ টাকা মূল্যমানের একটি উদ্বোধনী খাম, পাঁচ টাকা মূল্যমানের একটি ডাটা কার্ড প্রকাশ করেছে ডাক অধিদপ্তর। আজ শুক্রবার ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার শুক্রবার ঢাকায় তার দপ্তর থেকে স্মারক ডাকটিকিট সমন্বয়ে স্যুভেনির ও উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত এবং ডাটা কার্ড প্রকাশ করেছেন। এই উপলক্ষে একটি বিশেষ সিলমোহর ব্যবহার করা হয়।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, জাতির হাজার বছরের পরাধীনতা থেকে মুক্তির ইতিহাসের চূড়ান্ত অভিযাত্রায় ঘটনাবহুল ১৮ মিনিটের ৭ মার্চের ভাষণটি ইতিহাসের এক অবিস্মরণীয় অধ্যায়, মুক্তির ঐতিহাসিক সোপান। এই ভাষণটি ছিল বঙ্গবন্ধুর উপস্থিত ভাষণ। এটির কোনো লিখিত পাণ্ডুলিপি ছিল না। বাঙালি জাতির পরাধীনতা থেকে মুক্তির আকাঙ্ক্ষা, বঞ্চনার হাহাকার, অত্যাচার, শোষণ, লাঞ্ছনা আর ক্ষোভ-হতাশার দীর্ঘশ্বাস, অধিকার হরণ ও মর্ম বেদনার কান্নার সুদীর্ঘ কাহিনী পরম্পরা বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা শেখ মুজিবুর রহমানের হৃদয়ের অন্তস্থল থেকে ছিল এই ভাষণ। এটি স্বাধীনতা সংগ্রামের পরিপূর্ণ এক দিকনির্দেশনা, ঐতিহাসিক ঘোষণা।

মুজিববর্ষে পুলিশ সদস্যরা জনতার পুলিশে পরিণত হবে– প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছেন, মুজিববর্ষে পুলিশ সদস্যরা জনতার পুলিশে পরিণত হবে। আমি আশা করি, মুজিববর্ষে নতুন স্পৃহা ও আদর্শে উদ্দীপ্ত হয়ে পুলিশ সদস্যগণ জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দিয়ে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জনতার পুলিশে পরিণত হবে।

আগামীকাল শনিবার ‘কমিউনিটি পুলিশিং দিবস উপলক্ষে আজ শুক্রবার দেওয়া এক বাণীতে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বিধান, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও মানবাধিকার রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত অন্যতম প্রধান প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পুলিশ। বাংলাদেশ পুলিশ দেশ ও জাতির সেবায় প্রতিনিয়ত তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব একনিষ্ঠভাবে ও সাহসিকতার সঙ্গে পালন করছে।

জনগণ ও পুলিশের পারস্পরিক আস্থা, সমঝোতা ও শ্রদ্ধা কমিউনিটি পুলিশিং এর মূলকথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আধুনিক কমিউনিটি পুলিশিং ব্যবস্থাপনায় জনগণের সাথে প্রাণবন্ত সম্পর্ক স্থাপনের মাধ্যমে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অপরাধ দমন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা ও সামাজিক সমস্যাদির উৎস উদ্ঘাটনপূর্বক তা সমাধান ও অপরাধ ভীতি হ্রাস করে মানুষের মধ্যে নিরাপত্তাবোধ সৃষ্টির লক্ষ্যে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশব্যাপী কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রম শুরু হওয়ার পাঁচবছরের মধ্যে ৬০ হাজার ৯১৮টি কমিটির মাধ্যমে ১১ লাখ ১৭ হাজার ৮০ জন কমিউনিটি পুলিশিং সদস্য পুলিশের সঙ্গে একযোগে অংশীদারেত্বের ভিত্তিতে কাজ করে অপরাধ নিয়ন্ত্রণ ও বিভিন্ন সামাজিক সমস্যা সমাধানে উল্লেযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ইতিমধ্যে, বাংলাদেশে রেলওয়ে, ইন্ডাস্ট্রিয়াল এবং হাইওয়ে পুলিশেও কমিউনিটি পুলিশিং কমিটি গঠনের মধ্য দিয়ে অপরাধ দমনে আরো একধাপ এগিয়ে গিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ। আগামীতেও নারী নির্যাতন, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনের পাশাপাশি সাইবার অপরাধ নিয়ন্ত্রণে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে কমিউনিটি পুলিশিং গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।

নাচোলে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত


নাচোল প্রতিনিধিঃ
“মুজিববর্ষের মূলমন্ত্র, কমিউনিটি পুলিশিং সর্বত্র” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত হয়েছে। আজ শনিবার বেলা ১১টায় নাচোল থানা পুলিশের আয়োজনে থানা চত্বরে একটি রালী শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নাচোল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রােেখউপজেলা নির্বাহী অফিসার সাবিহা সুলতানা,নাচোল পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান ঝালু,নাচোল সরকারি কলেজরঅফিসার ইনচার্জ (অধ্যক্ষ) হাফিজুর রহমান,নাচোল মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ওবাইদুর রহমান,উপঝেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক মতিউর রহমান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রেজাউল করিম বাবু,জেলা পরিষদের সদস্য রয়েল বিশ্বাস, ফতেপুর ইউপি (ভারপ্রাপ্ত) চেয়ারম্যান মজিবুর রহমান, , নেজামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতিআহম্দে আল শহীদ জুয়েল। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য, পৌর কাউন্সিলরসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

খুব শীঘ্রই টিকা আসছে দাবি মডার্নার: ট্রায়াল শেষের পথে জনসন অ্যান্ড জনসন ও ফাইজারের

খুব শীঘ্রই টিকা আসছে দাবি মডার্নার, ট্রায়াল শেষের প অক্ প্রতিষেধকের মাধ্যমে কোভিড-১৯ সারানো সম্ভব কি না, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই তা পরিষ্কার হয়ে যাবে। আমেরিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজ়িস (এনআইএআইডি)-এর ডিরেক্টর অ্যান্টনি ফাউচি সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছেন। সেই লক্ষ্য পূরণ করতে এ বার জোরকদমে প্রস্তুতি শুরু করে দিল দেশের ৩ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা মডার্না আইএনসি, জনসন অ্যান্ড জনসন এবং ফাইজার আইএনসি। খুব শীঘ্রই তাদের তৈরি সম্ভাব্য করোনা টিকা বাজারে আসতে চলেছে বলে বিবৃতি জারি করেছে মডার্না। অল্পবয়সিদের উপর প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করতে চলেছে জনসন অ্যান্ড জনসনও। ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ করার পথে ফাইজার। এই মুহূর্তে শেষ পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালাচ্ছে মডার্না আইনএনসসি। মোট ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে নিয়ে চূড়ান্ত পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালাচ্ছে তারা। এর মধ্যে ২৫ হাজার ৬৫০ জনের উপর তাদের তৈরি এমআরএনএ-১২৭৩ প্রতিষেধকের দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। এই স্বেচ্ছাসেবকেদর মধ্যে ৩৭ শতাংশ বিভিন্ন গোষ্ঠীর মানুষ বলে জানা গিয়েছে। তাদের মধ্যে ৪২ শতাংশ আবার কোনও না কোনও গুরুতর অসুখে ভুগছেন। মডার্নার যুক্তি, জেনেশুনেই কোমর্বিডিটি রয়েছে এমন স্বেচ্ছাসেবকদের বেছে নিয়েছে তারা। কারণ কোমর্বিডিটি থাকা সত্ত্বেও যদি তাদের তৈরি প্রতিষেধক কার্যকর হিসেবে প্রমাণিত হয়, সে ক্ষেত্রে জরুরি ভাবে টিকা প্রয়োগের অনুমোদন জোগাড় করা আরও সহজ হবে। এখনও পর্যন্ত তাদের তৈরি প্রতিষেধক ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা। যে কারণে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সম্পূর্ণ না হলেও, ইতিমধ্যেই অগ্রিম ১১০ কোটি ডলারের অর্ডার পেয়ে গিয়েছে বলে দাবি করেছে মডার্না।

প্রতিষেধকের মাধ্যমে কোভিড-১৯ সারানো সম্ভব কি না, আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই তা পরিষ্কার হয়ে যাবে। আমেরিকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজ়িস (এনআইএআইডি)-এর ডিরেক্টর অ্যান্টনি ফাউচি সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছেন। সেই লক্ষ্য পূরণ করতে এ বার জোরকদমে প্রস্তুতি শুরু করে দিল দেশের ৩ ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা মডার্না আইএনসি, জনসন অ্যান্ড জনসন এবং ফাইজার আইএনসি। খুব শীঘ্রই তাদের তৈরি সম্ভাব্য করোনা টিকা বাজারে আসতে চলেছে বলে বিবৃতি জারি করেছে মডার্না। অল্পবয়সিদের উপর প্রতিষেধকের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করতে চলেছে জনসন অ্যান্ড জনসনও। ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ করার পথে ফাইজার। এই মুহূর্তে শেষ পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালাচ্ছে মডার্না আইনএনসসি। মোট ৩০ হাজার স্বেচ্ছাসেবককে নিয়ে চূড়ান্ত পর্যায়ের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালাচ্ছে তারা। এর মধ্যে ২৫ হাজার ৬৫০ জনের উপর তাদের তৈরি এমআরএনএ-১২৭৩ প্রতিষেধকের দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ করা হয়েছে। এই স্বেচ্ছাসেবকেদর মধ্যে ৩৭ শতাংশ বিভিন্ন গোষ্ঠীর মানুষ বলে জানা গিয়েছে। তাদের মধ্যে ৪২ শতাংশ আবার কোনও না কোনও গুরুতর অসুখে ভুগছেন। মডার্নার যুক্তি, জেনেশুনেই কোমর্বিডিটি রয়েছে এমন স্বেচ্ছাসেবকদের বেছে নিয়েছে তারা। কারণ কোমর্বিডিটি থাকা সত্ত্বেও যদি তাদের তৈরি প্রতিষেধক কার্যকর হিসেবে প্রমাণিত হয়, সে ক্ষেত্রে জরুরি ভাবে টিকা প্রয়োগের অনুমোদন জোগাড় করা আরও সহজ হবে। এখনও পর্যন্ত তাদের তৈরি প্রতিষেধক ৭০ শতাংশ ক্ষেত্রে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা। যে কারণে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সম্পূর্ণ না হলেও, ইতিমধ্যেই অগ্রিম ১১০ কোটি ডলারের অর্ডার পেয়ে গিয়েছে বলে দাবি করেছে মডার্না।

শিবগঞ্জে অভিযান: ১৬ লাখ টাকার অবৈধ মোবাইল জব্দ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ ও কানসাট বাজারে উপজেলা প্রশাসনের ভ্রামমান আদালতের অভিযানে ৮৩ টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। যার আনুমানিক মূল্য ১৬ লাখ ৬০ হাজার টাকার ভারতীয় অবৈধ মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল রাব্বি জানান ;৩১ অক্টোবর দুপুর থেকে বিকাল পর্যন্ত বিজিবি”র সহায়তায় উপজেলা প্রশাসন যৌথ ভাবে অভিযান চালিয়ে ঐ সব ফোন জব্দ করে। এ সময় ২জনকে ১৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

তিনি আরোও জানাযন ;এরকম অভিযান চলমান থাকবে,যাতে করে দেশের উৎপাদন করা মোবাইল ফোন বেশি বাজারজাতকরণ হয়।

ভোলাহাটে গাঁজাসহ ১ জন গ্রেফতার


ভোলাহাট(চাঁপাইনবাবগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে গাজাসহ ১ জনকে গ্রেফতার করেছে ভোলাহাট থানা পুলিশ। শুক্রবার ৩০ অক্টোবর রাত সোয়া ১০ টার দিকে ভোলাহাট সদর ইউনিয়নের শিকারী গ্রাম থেকে আনারুলের বাড়ির সামনে পাকা রাস্তার উপর হতে ১ কেজি গাজাসহ ১ জনকে গ্রেফতার করা হয়।
গ্রেফতারকৃত আসামী হলো, ভোলাহাট উপজেলার পুরাতন হাসপুকুর গ্রামের সাজ্জাদ আলীর ছেলে এরফান আলী (৩৮)। ভোলাহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান জানান, এক কেজি গাজা তার হেফাজত হইতে উদ্ধার পূর্বক জব্দ করা হয়। আসামীর বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ভোলাহাটে কমিউনিটি পুলিশিং ডে অনুষ্ঠিত


ভোলাহাট(চাঁপাইনবাবগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ ‘মুজিববর্ষের মূলমন্ত্র, কমিউনিটি পুলিশিং সর্বত্র’ স্লোগান নিয়ে ভোলাহাট উপজেলায় কমিউনিটি পুলিশিং ডে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোলাহাট থানা পুলিশের আয়োজনে ৩১ অক্টোবর শনিবার সকাল ১০ টার সময় ভোলাহাট থানা চত্বরে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ভোলাহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান। তদন্ত অফিসার আনোয়ারুল ইসলামের সঞ্চালনায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ভোলাহাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যন রাব্বুল হোসেন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আওয়ামীলীগ ভোলাহাট উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ইয়াসিন আলী শাহ, ভোলাহাট সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ইয়াজদানি জর্জ, গোহালবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের, জামবাড়ীয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মুসফিকুর রহমান তারা, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সফাপতি ইখতেখার উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলী, আওয়ামীলীগ নেতা সাইফুল বিশ্বাস, গোহালবাড়ী ইউপি সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, পুলিশ এবং জনগণ একযোগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করছে। এতে পুলিশিং অনেক সহজ হয়েছে। সমাজে অপরাধ প্রবণতাও কমে আসছে। উপজেলায় আগের চেয়ে আইনশৃঙ্খলার অনেক উন্নতি হয়েছে। কমিউনিটি পুলিশিং ফোরাম পুলিশের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করলে আইনশৃঙ্খলা আরো উন্নত হবে বলে বক্তারা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

এবার নারী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেটভুক্তি শুরু!


মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানের হানাদার বাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসর রাজাকার, আলবদর, আলশামসসহ অন্যান্য সহযোগী কর্তৃক শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতিত নারী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের (বীরাঙ্গনা) গেজেটভুক্তির লক্ষ্যে আবেদন আহ্বান করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

স্ব স্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট আবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। আবেদনের সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (এনআইডি/যুদ্ধকালীন কমান্ডার-এর প্রতিবেদন/স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিবেদন, যদি থাকে) জমা দিতে বলা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির মতামতসহ তা সরাসরি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করবেন।

এছাড়াও অন্য কোনো ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, গবেষক, নারী সংগঠন বা এনজিও’র নিকট নারী বীর মুক্তিযোদ্ধা (বীরাঙ্গনা) সম্পর্কে তথ্য থাকলে তা মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে প্র

ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম শুরু ১০ নভেম্বর


দেশের ৬৪টি জেলায় আগামী ১০ নভেম্বর থেকে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু হবে বলে জানিয়েছে পাসপোর্ট অধিদফতর। বর্তমানে ৪৭টি জেলায় এ সেবার সম্প্রসারণ কাজ চলমান রয়েছে। গতকাল সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ১২তম বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়।

কমিটির সভাপতি মো. শামসুল হক টুকুর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, মো. আফছারুল আমীন, মো. হাবিবুর রহমান, সামছুল আলম দুদু, কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পীর ফজলুর রহমান, নূর মোহাম্মদ এবং সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ অংশ নেন।

বৈঠকের শুরুতে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়। বৈঠকে উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির আগে এবং চূড়ান্ত পরীক্ষার আগে ডোপ টেস্ট/বিশেষ স্বাস্থ্য পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করার সুপারিশ করা হয়। ইতোমধ্যে পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট শুরু করায় পুলিশ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানানো হয়। এছাড়া বৈঠকে জানানো হয় ‘ডোপ টেস্ট বিধিমালা ২০২০’ প্রণয়নের কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

বৈঠকে চলমান মাদকবিরোধী অভিযান অব্যাহত রাখাসহ দেশে কিশোর অপরাধ বৃদ্ধি পাওয়ায় কথিত কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণসহ তাদের সংশোধনের জন্য পদক্ষেপ নিতে সুপারিশ করা হয়। এছাড়া দেশের সব গাড়ি চালককে ডোপ টেস্টের আওতায় আনার সুপারিশ করা হয়।

বেঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব, সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব, দুই বিভাগের অধীনস্থ সংস্থা প্রধানসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কর্মকর্তা এবং সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

শিবগঞ্জে ৪ জন্ম তারিখে একাধিক গরমিল গ্রাম পুলিশের: বিভিন্ন অনিয়মে অভিযুক্ত

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে এক গ্রাম পুলিশের সরকারী চাকরীর বসয় শেষ হলেও তিনি চাকরীতে বহাল রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া ওই গ্রামপুলিশের জন্ম তারিখ ৪টি ও ৪ ধরনের শিক্ষাগত যোগ্যতা দেখানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে সেসাথে তার বিরুদ্ধে রয়েছে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ।

চাকরীতে বহাল ও ৪টি জন্ম সনদপ্রাপ্ত গ্রাম পুলিশ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার ধাইনগর ইউনিয়নের ৮নং ওযার্ডের আনোয়ারুল হক।
অনুসন্ধানে জানা গেছে ৩টি জন্ম সনদের তারিখ অনুযায়ী চাকরীর মেয়াদ শেষ হলেও একটি সনদের বয়স এখনও আছে। আর সংশ্লিষ্ট ধাইনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাবারিয়ার দাপটে তিনি এখনও বহাল রয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

তার জন্ম সনদে জন্ম তারিখগুলো হলো ১৫-০৬-১৯৫৮খ্রি., ০১-০১-১৯৫৮খ্রি, ০১-০৭-১৯৬০খ্রি.ও ১৫-০৬-১৯৬৮খ্রি.। কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের বিদ্যালয়ের পরিদর্শকের তথ্য অনুযায়ী চৈতন্যপুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে নবম শ্রেনীতে পাসকরেছেন এ গ্রাম পুলিশ।যার জন্ম তারিখ হলো ০১-০৭-১৯৬০, রেজিষ্ট্রেশন নং ২২৫১৪, শিক্ষাবর্ষ -১৭৭৩-১৯৭৪। বিদ্যালয়ের রেজিষ্টারে তার পিতার নাম মন্টু মন্ডল এবং গ্রাম দেখানো হয়েছে বামুনগাঁও।
অন্যদিকে, চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারীর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসারের স্বাক্ষরিত এন.আই ডাটাবেজ হতে পাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্র সূত্রে জানা গেছে, তার জন্ম তারিখ ০১-০১-১৯৫৮ খ্রি, পিতার নাম শাহজাহান আলী, মাতার নাম মোসা: বানু বেগম, স্ত্রীর নাম মোসা: আকতার বেগম, শিক্ষাগত যোগ্যতা ৫ম শ্রেণী পাস, ভোটার এরিয়া কোর্ড নং ০২৯৬, ভোটার সিরিয়াল নং ২৯৯, ভোটার নং ৭০০২৯৬০৩৩৪৮৬, জাতীয় পরিচয় নং ১৯৫৮৭০১৮৮২৩০৩৪৮৬।

অপরদিকে ১৪নং ধাইনগর ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশদের চাকরী সংক্রান্ত তথ্যদিতে গ্রামপুলিশ আনারুলের জন্ম তারিখ দেয়া হয়েছে ১৫/০৬/১৯৫৮ এবং সেখানে পিতার নাম রয়েছে শাহাজাহান(মন্টু)। শিক্ষাগত যোগ্যতা দশম শ্রেণী পাস।
আর বিদ্যালয়ে ভর্তি রেজিস্টার অনুযায়ী চতুর্থ জন্ম তারিখটি হলো ১৫-০৬-১৯৬৮।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবার স্থানীয় গ্রামবাসী একাধিকবার অভিযোগ দেয়ার পরও কর্মরত সেই গ্রাম পুলিশ।
অভিযোগকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন আবু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান হাবিব, অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর সার্জেন্ট আতাউর রহমান, অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক জালাল উদ্দিন জানান, সাম্প্রতিককালে আনারুরের অনিয়ম ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে আবেদন করার পরও এবং তদন্ত সাপেক্ষে বয়স চুরির ঘটনা প্রমানিত হলেও একমাত্র ধাইনগর ইউপি চেয়ারম্যন তাবারিয়ার চৌধুরী ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে আনারুল হক চাকুরিতে বহাল থেকে একের পর এক অনিয়ম করে চলেছে। যা সম্পূর্ন নিয়ম বর্হিভুত।

তারা আরো জানান, আমাদের শতাধিক লোকের স্বাক্ষরিত আবেদন সম্প্রতিকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও জেলা প্রশাসক বরাবর দাখিল এবং তদন্ত হলেও সে তদন্ত রির্পোট আলোর মুখ দেখেনি। একাধিকবার উপজেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করেও কোন লাভ হয়নি।
স্থানীয়দের অভিযোগ আনারুল তার প্রভাব খাটিয়ে গ্রামের মানুষকে বিভিন্ন ভাতার ব্যবস্থা করিয়ে দেয়ার নাম করে উৎকোচ নিয়ে থাকে।যারা ভাতাভোগী তাদের কাছে উৎকোচ না পেলে হয়রানী করারও অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এ ব্যাপারে গ্রাম পুলিশ আনারুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন আমার জন্ম তারিখ ১৯৬৮সাল যা আমার চেতন্যপুর উচ্চবিদ্যালয়ের ভর্তি রেজিস্ট্রার অনুযায়ী আমার জন্ম তারিখ হরো ১৫-৬-১৯৬৮ খ্রি আমার শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮শ শ্রেণী পাস। জাতীয় পরিচয় পত্রে আমার জন্ম তারিখ ভূল রয়েছে। সংশোধনের জন্য আবেদন করেছি।

আর ধাইনগর ইউপি চেয়ারম্যান তাবারিয়া চৌধুরী বলেন আনারুলের ক্ষেত্রে সাংবাদিকদের তথ্য দেয়ার কোন প্রয়োজন নেই।

অপরদিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল রাব্বী বলেন, এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রাম পুলিশ আনারুলের ঘটনাটি তদন্ত হযেছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেয়েছি। ২ বার শোকজ করা হয়েছে। একবারের জবাব দিলেও পরেরটির কোন জবাব দেয়নি। নিয়ম অনুযায়ী তিনবার শোকজ করতে হবে। কয়েকদিনে মধ্যে আরো একটি শোকজের পর আইন অনুয়ায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।