সর্বশেষ সংবাদ চাপাইনবাবগঞ্জে ন্যাশনাল ব্যাংকের চারজন সহ করোনা ভাইরাসে নতুন সংক্রামিত ২২ চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাস্ক না পরায় ৪৫ জনকে জরিমানা শিবগঞ্জে মাস্ক না পরায় ৬১ জনকে ৭৭০০ টাকা জরিমানা জেকেজি চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা গ্রেফতার:এখনো অধরা ‘মহাপ্রতারক’ সাহেদ ভোলাহাটে মাদক মামলার আসামি গ্রেফতার বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতুর রং করেই দায়িত্ব শেষ ! সেতুর রেলিং ও ফুটপাত দেবে ঝুঁকিপূর্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদকের বৃক্ষ রোপণ অনিক দেওয়ানের স্বপ্ন কবি হবার। জনসাধারণকে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা জোরদার করার নির্দেশ মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ সচিবের পুলিশ রিমান্ডে মৃত্যু , বিচার বিভাগীয় তদন্ত চেয়ে হাইকোর্টে রিট

জাতিসংঘ পুরস্কার পেয়েছে ভূমি মন্ত্রণালয়

মর্যাদাপূর্ণ ‘ইউনাইটেড ন্যাশনস পাবিলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ পেয়েছে বাংলাদেশ ভূমি মন্ত্রণালয়। ই-মিউটেশন উদ্যোগ বাস্তবায়নের স্বীকৃতি হিসেবে এ পুরস্কার পেয়েছে।

জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমাকে চিঠি দিয়ে একথা জানিয়েছেন জাতিসংঘের অর্থনৈতিক ও সামাজিক বিষয়ক বিভাগের (ডেসা) আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল লিউ ঝেনমিন।

জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধির অফিস থেকে পাঠানো এক জ্ঞিপ্তিতে জানানো হয়, ই-মিউটেশন উদ্যোগ বাস্তবায়নের স্বীকৃতি স্বরূপ ‘স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক সরকারি প্রতিষ্ঠানের বিকাশ’ ক্যাটাগরিতে এই পুরস্কার পেয়েছে ভূমি মন্ত্রণালয়।

বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধিকে লেখা চিঠিতে জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল উল্লেখ করেন, ‘জনস্বার্থে সেবার ক্ষেত্রে মন্ত্রণালয়টির অসামান্য অর্জন শ্রেষ্ঠত্বের দাবিদার। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, ভূমি মন্ত্রণালয়ের এই উদ্যোগ আপনার দেশে জনপ্রশাসনের উন্নয়নে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখেছে। প্রকৃতপক্ষে, এই কাজ জনসেবায় ব্রতী হতে বাকিদের অনুপ্রেরণা ও উৎসাহ জোগাবে।’

ওই চিঠি পাওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রদূত ফাতিমা বলেন, ‘আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের এ ধরনের সাফল্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের দূরদর্শী উদ্যোগেরই ফসল।’

স্থানীয়, জাতীয় ও বৈশ্বিক সম্প্রদায়ের জন্য প্রদত্ত সেবার গুণগত মান ও উৎকর্ষ উদযাপনের উদ্দেশ্যে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ রেজ্যুলেশন ৫৭/২৭৭ এর মাধ্যমে ২৩ জুনকে ‘জাতিসংঘ পাবলিক সার্ভিস দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করে। প্রতিবছর ২৩ জুন, যথাযোগ্য আনুষ্ঠানিকতার সঙ্গে জাতিসংঘ দিবসটি উদযাপন করে। এসময় বিশ্বজুড়ে সরকারি সেক্টরে গৃহীত সর্বোত্তম উদ্ভাবনী উদ্যোগসমূহকে পুরস্কারের মাধ্যমে স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘ এবারের পাবলিক সার্ভিস পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান স্থগিত করেছে। তবে জাতিসংঘের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নমুখী প্রচার কার্যক্রমের মাধ্যমে এই পুরস্কার বিজয়ের বিষয়টি তুলে ধরার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে।

দুই মিনিটে ঘরে বসেই সোনালী ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট

সোনালী ব্যাংক লিমিটেডে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য এখন আর সরাসরি ব্যাংকে যেতে হবে না। মুঠোফোন অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে দুই মিনিটে ঘরে বসেই খোলা যাবে অ্যাকাউন্ট। আজ বুধবার এক অনলাইন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘সোনালী ই-সেবা’ নামের ওই সেবার উদ্বোধন করেন সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ।

বুধবার বেলা তিনটার দিকে ভিডিও কনফারেন্সিং প্ল্যাটফর্ম জুম-এ এক অনলাইন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে সোনালী ব্যাংক লিমিটেড কর্তৃপক্ষ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ব্যাংকটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মো. আতাউর রহমান প্রধান।প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১১ বছর আগে যখন ডিজিটাল বাংলাদেশের কথা বলেছিলেন, তখন মনে হতো এটা অলীক কল্পনা। কিন্তু আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এখন তা দৃশ্যমান। সরকারের প্রায় ৬০০ রকম সেবা এখন অনলাইনে আমরা প্রযুক্তির মাধ্যমে দিতে পেরেছি। ২০২১ সালের মধ্যে বর্তমান সরকার ২ হাজার ৮০০ ধরনের সেবা ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সোনালী ব্যাংক বাংলাদেশের রাষ্ট্রায়ত্ত সবচেয়ে বড় ব্যাংক। সোনালী ই–সেবা অ্যাপ্লিকেশন নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় করতে পারা প্রশংসার দাবি রাখে।
ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউর রহমান প্রধানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সোনালী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান জিয়াউল হাসান সিদ্দিকী।
চেয়ারম্যান বলেন, বিভিন্ন ধরনের ভাতাসহ নানা ধরনের সেবা নিতে আসা মানুষের যে ভিড়, তাতে ব্যাংকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছিল না। তাই পরিচালনা পর্ষদ অনলাইনে অ্যাকাউন্ট খোলার সিদ্ধান্ত নেয়। এ ক্ষেত্রে সোনালী ই-সেবা অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যাংকটির নিজস্ব জনবল ও ব্যবস্থাপনায় তৈরি করেছে। সোনালী ব্যাংক লিমিটেডকে ডিজিটালাইজেশনের আওতায় নিয়ে আসার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার বিষয়ে পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমরা সোনালী ব্যাংকের ডিজিটালাইজেশনের যেসব উদ্যোগ নিচ্ছি, তা অচিরেই দৃশ্যমান হবে।’

দুই মিনিটে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য গুগল প্লে-স্টোরে গিয়ে সোনালী ই–সেবা নামে অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে। এরপর অ্যাকাউন্ট খুলতে ইচ্ছুক ব্যক্তি নির্দেশনামতো মুঠোফোন নম্বর দেবেন। নম্বরটি ভেরিফিকেশনের পর গ্রাহকের ছবি ও জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা জন্মতারিখ লিখতে হবে। এভাবে অ্যাপের নির্দেশনামতো দুই মিনিটে খোলা যাবে অ্যাকাউন্ট।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে প্রথমবার ঢাকাগামী স্পেশাল ম্যাংগো ট্রেনের যাত্রা শুরু

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
শুক্রবার (৫ জুন) বিকেল ৪টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলষ্টেশন থেকে ঢাকার উদ্যোশ্যে যাত্রা শুরু করেছে মালবাহি স্পেশাল ম্যাংগো ট্রেন।
এই উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলস্টেশনে ট্রেনটিতে আম উঠিয়ে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি মোঃ আব্দুল ওদুদ, নারী সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসী ও জেলা প্রশাসক এজেডএম নূরুল হক।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সার্কেল) ইকবাল হোছাইন, পশ্চিমরেলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা ফুয়াদ হোসেন আনন্দ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বার এ্যান্ড কর্মাস এর সভাপতি মোঃ এরফান আলী , জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ রুহুল আমিন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম, গ্রামীণ ট্রাভেলস এর চেয়ারম্যান মোঃ মোখলেসুর রহমান, শিবগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ্সিলাম, সদর থানার ওসি জিয়াউর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, রেলের কর্মকতারাসহ স্থানীয় আমচাষি ও ব্যবসায়ীরা।


প্রথমদিন এক হাজার কেজি আম চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেল স্টেশন থেকে বুক করা হয়। মোট ৬টি মালবাহি গাড়ির প্রতিটি ওয়াগনে ৪৫ হাজার কেজি আম ও বিভিন্ন শাকসবজি, ফলমূল, ডিমসহ অন্যান্য কৃষিজাত পণ্য ক্যারেটের মাধ্যমে বহন করতে পারবে ব্যবসায়ীরা।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলওয়ে ষ্টেশন মাস্টার মোঃ মনিরুজ্জামান জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে কেজি প্রতি আমের ভাড়া ১ টাকা ৩০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে। ট্রেন ছাড়ার আধা ঘন্টার পূর্ব মুহুর্ত পর্যন্ত মালামাল বুকিং দিতে পারা যাবে।
তিনি আরও জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী ট্রেনটির নাম হবে ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন-২’। আর ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ ফেরার পথে নাম হবে ‘ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন-১’। ট্রেনটি সপ্তাহে প্রতিদিন চলাচল করবে। প্রতিদিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বিকেল ৪টায় ছেড়ে যাবে। রাজশাহী পৌঁছাবে ৫টা ২০ মিনিটে। এখানে ৩০ মিনিট থেমে ৫টা ৫০ মিনিট মিনিটে ট্রেনটি যাত্রা শুরু করবে। এরপর ট্রেনটি ঢাকায় পৌঁছাবে রাত ১টায়।
অপরদিকে ঢাকা থেকে ট্রেনটি রাত ২টা ১৫ মিনিটে ছেড়ে আসবে। রাজশাহী পৌঁছাবে সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে। এখানে ২০ মিনিট থেমে ট্রেনটি চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাবে। পৌঁছাবে সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে। ট্রেনটিতে মোট ছয়টি ওয়াগন থাকবে। প্রতিটি ওয়াগনে ৪৫ হাজার কেজি আম নেয়া যাবে। তবে শুধু আম নয়, সকল প্রকার শাকসবজি, ফলমূল, ডিমসহ কৃষি পণ্য, বাড়ির ফর্ণিচার এবং রেলওয়ের আইনে পার্সেল হিসেবে বহনযোগ্য সকল সামগ্রী বহন করা হবে।
স্পোশাল এ ট্রেনটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ছেড়ে এসে আমনূরা বাইপাস, কাঁকনহাট, রাজশাহী, সরদহ, আড়ানি ও আব্দুলপুর বাইপাস স্টেশনে থামবে। এসব স্থানে আমসহ পার্সেল পণ্য ট্রেনে তোলা হবে। টাঙ্গাইল, মির্জাপুর, কালিয়াকৈর, জয়দেবপুর, টঙ্গী, বিমানবন্দর, ক্যান্টনমেন্ট, তেজগাঁও এবং কমলাপুর স্টেশনে ট্রেনটি থামবে। ফেরার পথে ট্রেনটি তেজগাঁও, টঙ্গী, টাঙ্গাইল, সিরাজগঞ্জ, চাটমোহর এবং রাজশাহী স্টেশনে থামবে। তবে যাত্রাপথে কোথাও সাধারণ যাত্রী এ ট্রেনে তোলা হবে না।
প্রসঙ্গত: চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে বনলতা টেনটি চালু করার সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম ঢাকায় নিয়ে যাবার জন্য ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন চালুর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।

৭০ দিন পর সোনামসজিদে ভারতীয় ৮৫ পণ্যবাহী ট্রাক প্রবেশের মাধ্যমে আমদানি-রফতানি শুরু

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধি : করোনা পরিস্থিতির কারনে দীর্ঘ দুই মাস ১০ দিন বন্ধের পর ভারত থেকে পণ্যবাহী ৮৫ টি ট্রাক প্রবেশের মাধ্যমে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে আবারো পণ্য আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও জেলা প্রশাসকের দেয়া নিদের্শনা মেনে বন্দরের কার্যক্রমও পরিচালিত হচ্ছে।আর এতে করে ২ দেশেরই বন্দর সংশ্লিষ্টরাও খুশি।
২ দফা আমদানী রপ্তানী শুরুর ঘোষণা দেয়ার পরও ভারতীয় কর্তপক্ষের অনাগ্রহের অবসান ঘটিয়ে দীঘ প্রতিক্ষার পর বৃহস্পতিবার (৪ জুন) বেলা ১১টার দিকে ভারত থেকে আমদানি পণ্যবাহী ট্রাক সোনামসজিদ স্থলবন্দরে প্রবেশ করে। বুধবারের বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা মোতাবেক জিরো পয়েন্টে ভারতীয় ট্রাকচালক ও তাদের সহকারীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা শেষে বিকেল ৫টার মধ্যে তাদেরকে ভারতে ফিরে যাবার নির্দেশনা পালন করা হচ্ছে।সেসাথে বন্দরে কর্মরত সকলকে মাক্স ,গ্লোবস ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে দেখা গেছে। বন্দর এলাকায় ব্যবস্থা করা হয়েছে হাত ধোয়ার।

আর সোনামসজিদ স্থলবন্দর পরিচালনাকারী বেসরকারি প্রতিষ্ঠান পানামা পোর্ট লিংক লিমিটেডের ডেপুটি র্পোট ম্যানেজার মো: মাইনুল ইসলাম জানালেন সকল নির্দেশনা মেনে বন্দরে ২৫ টি পেঁয়াজের ট্রাক সহ ৮৫ টি ভারতীয় পন্যবাহী ট্রাক প্রবেশের কথা।তিনি আরও জানান, সময়ের অভাবে ৩টি ভারতীয় ট্রাকের পণ্য খালাস সম্ভব না হলেও ঐ ট্রাকগুলোর চালক ও হেলপারদের বিকেল ৫টার মধ্যেই ট্রাক রেখে ফেরত পাঠানো হয় ভারতে।

অপরদিকে কাষ্টমস এর সহকারী কমিশনার মো: সাইফুর রহমান বন্দর পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান ও মেডিকেল টিমের সহায়তায় আমদানী রপ্তানী কার্যক্রম শুরুর বিষয়টি নিশিশ্চত করে জানান পুরোদমে আমদানি শুরু হতে আরও কয়েকদিন সময় লাগবে।

গত ২৫ মার্চ সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি-রফতানি বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে এপ্রিল ও মে মাসে ২ দফা বন্দর দিয়ে পণ্য আমদানি-রফতানির চেষ্টা করা হলেও সুরক্ষা ব্যবস্থার ঘাটতির কারণে বন্দর চালুকরা সম্ভব হয়নি।