সর্বশেষ সংবাদ গোমস্তাপুরে মামার বাড়ি বেড়াতে এসে নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু: উদ্ধার ২ চাঁপাইনাবগঞ্জে র শিবগঞ্জ ও গোমস্তাপুরে নতুন তিন করোনা রোগী সনাক্ত করোনাভাইরাস: ঢাকা শহরে ১৪ হাজার কোভিড-১৯ রোগী, সবচেয়ে বেশি মহাখালীতে এতিম শিশুদের পাশে মানিক শিশুকালের ঈদ বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মরহুম ওবায়দুর রহমান রেনু মাস্টারের জানাযা সম্পন্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড দুটি গ্রাম চাপাইনবাবগঞ্জে উদযাপিত হলো পবিত্র ঈদুল ফিতর: জেনে নিন কারা কোথায় ঈদ উদযাপন করলো ঈদের নামাজ পড়ানোর সময় সেজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত শনাক্ত ১৯৭৫ , মৃত্যু আরও ২১ জনের।

একাধিক মাদক মামলার অাসামী হেরোইনসহ গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী জমিনপুর গ্রামে মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর (ডিএনসি) চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের একটি টিম। অভিযানে ২০ গ্রাম হেরোইনসহ এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে ডিএনসির সদস্যরা।

পরিদর্শক মো. রায়হান আহমেদ খাঁন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারি, শিবগঞ্জ উপজেলার জমিনপুরে মাদক বিক্রির জন্য এক ব্যক্তি অবস্থান করছে।

খবর পাবার পর বৃহস্পতিবার বিকেলে দ্রুত ঐ এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ২০ গ্রাম হেরোইনসহ হাতেনাতে তোজাম্মেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত মোজাম্মেল এর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে।

এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-৩০।

ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করলো রাজারামপুর হামিদুল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ব্যাচ’ ২০১১


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রাজারামপুর হামিদুল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি ব‍্যাচ – ২০১১ এর উদ্যোগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর বাড়ি বাড়ি গিয়ে শতাধিক পরিবারের মাঝে ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।
আসিফ ইয়াসির নামের একজন শিক্ষার্থী জানান, ২০১১ সালের এসএসসি ব‍্যাচের শিক্ষার্থীরা প্রতিনিধিদের মাধ‍্যমে ইফতারের পরে রাজারামপুর ,উপর রাজারামপুর ,নামোরাজারামপুর ,নামোশংকরবাটি ,বটতলাহাট ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় প‍্যাকেট পৌঁছে দিয়েছি এসব এলাকার গরীব মানুষদের মাঝে ।আমরা প্রতি বছর ইফতার করি এবার সে ইফতার বাদ দিয়ে এ আয়োজন করলাম ।এ কাজে সহযোগিতা করছেন আসিফ,আকিব ,তৌহিদ ,সোহাগ ,সানাউল প্রমুখ।
এক প‍্যাকেটে ১ কেজি চিনি ,তেল আধা লিটার ,লাচ্চা, বুন্দিয়া ,নুডুলস ১ প‍্যাকেট করে ,দুধ দুই প‍্যাকেট ,চালের আটা ১ কেজি , সাবান ১ পিস আর ডিটারজেন্ট পাওডার হাফ কেজিসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী রয়েছে।
উল্লেখ্য যে, প্রতিবছর রাজারামপুর হামিদুল্লাহ্ উচ্চবিদ‍্যালয় এসএসসি – ২০১১ ব‍্যাচের শিক্ষার্থীবৃন্দ ঈদের আগে একত্রিত হয়ে একসঙ্গে ইফতার অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। চলতি বছর করোনা ভাইরাস সঙ্কট মূহুর্তে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে।

আম্পানের আগমনে ১৯ ঘণ্টা বিদ্যুৎহীন গোমস্তাপুর: আম,বোরো ও ঘরবাড়ির ক্ষতি


গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ
আম্পানের প্রভাবে সৃষ্ট দমকা হাওয়া ও বৃষ্টিতে চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে আম,পাকা বোরো ধান,মৌসুমী সবজী ও কিছু ঘড়বাড়ির ক্ষতি হয়েছে। তবে প্রানহানীর কোন খবর পাওয়া যায়নি।
গত বুধবার থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি এবং বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর আম্পানের
দমকা হাওয়া শুরু হলে এ ক্ষতি সাধিত হয়।
উপজেলা ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান জানান, উপজেলার প্রায় ২ হাজার ৩’শ ৩০ হেক্টর জমির বোরো ধান, ৪ হাজার ১’শ ৭৫ জমির আম ও ১ হাজার ১’শ ৭৫ হেক্টর জমির মৌসুমী সবজি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ।
বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার বোয়ালিয়া ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাসুদ হোসেন ও ত্রাণ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপণা কর্মকর্তা হাবিবুর রহমান। এদিকে গত বুধবার রাত সাড়ে ১০টা থেকে বৃহস্পতিবার বিকেল ৫ টা পর্যন্ত চাঁপাই-রহনপুর সংযোগ লাইন ফল্ট থাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বিচ্ছিন্ন ছিল ।

গোমস্তাপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে পেটের পীড়া সইতে না পেরে টনিক (২১) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের বালুটুঙ্গী গ্রামে।
স্থানীয়রা জানায়,উপজেলার চৌডালা ইউনিয়নের বালুটুঙ্গী গ্রামের মৃত রবিউল ইসলামের ছেলে টনিক পেটের পীড়া সহ্য করতে না পেরে বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। পরে পরিবার ও এলাকার লোকজন জানতে পেরে পুলিশকে খবর দেয় এবং লাশ উদ্ধার করে।
এব্যাপারে গোমস্তাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শামীম হোসেন জানান, খবর পেয়ে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় গোমস্তাপুর থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ‘এরফান গ্রুপ’র ঈদ উপলক্ষে বস্ত্র-অর্থ ও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ আসন্ন পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশের অন্যতম ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শীর্ষ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ‘এরফান গ্রুপ’র উদ্যোগে দুঃস্থ, অসহায় ও হতদরিদ্রদের মাঝে ঈদ সামগ্রী হিসেবে বস্ত্র, নগদ অর্থ ও বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে এরফান গ্রুপের চেয়ারম্যানের চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার কল্যানপুরস্থ বাসবভনের পিছনে শাড়ি, লুঙ্গী, নগদ অর্থ, আটা, সেমাই, চিনিসহ ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেন ‘এরফান গ্রুপ’র চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ চেম্বারের সভাপতি, ‘দৈনিক চাঁপাই দর্পণ’র প্রধান উপদেষ্টা ও পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মো. এরফান আলী।
এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহীদুল হুদা অলক, ‘এরফান গ্রুপ’র ব্যবস্থাপক মানবসম্পদ ও প্রশাসন মো. জাকির হোসেন, প্রকৌশলী মো. আলমগীর কবীর, চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ‘এরফান গ্রুপ’র ত্রান সহায়তা কার্যক্রমের সমন্বয়ক নাসরুম মিনাল্লাহ, ‘এরফান গ্রুপ’র চেয়ারম্যানের পিএস মো. তানভির আহমেদ তনয়, রাজিব আহমেদ, মজিবুর রহমান, মো. আক্তারুলসহ গ্রুপের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা। শাড়ি, লুঙ্গী ও নগদ টাকা বিতরণকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পুলিশের এস.আই মো. নাজমুল হোদা, এস.আই মো. নজরুল ইসলাম, এ.এস.আই সঞ্জয় কুমার, গোলাম রব্বানী, এরশাদ আলী, আনিসুর রহমান ৯ সদস্যের পুলিশের ২টি দল সহযোগিতা করে। ঈদ উপলক্ষে ‘এরফান গ্রুপ’র অর্থায়নে প্রায় ২ হাজার হতদরিদ্র মহিলা-পুরুষের মাঝে বস্ত্র, নগদ অর্থসহ বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।
এরফান গ্রুপের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব মো. এরফান আলী বলেন, দীর্ঘদিন থেকেই জেলার অসহায় দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সেবা করার চেষ্টা করে যাচ্ছি। ‘এরফান গ্রুপ’ আগামীতেও একইভাবে সাধারণ, আর্ত-পিড়িত, অসহায়-দরিদ্র মানুষের পাশে থাকবে এবং বেঁচে থাকা পর্যন্ত সাধ্যমত সহায়তা করে যাবো ইনশাল্লাহ। তিনি সকলের আন্তরিক দোয়া কামনা করেন।
উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন থেকেই প্রতি বছর রমজান মাসে বিভিন্নস্থানের অসহায়-দরিদ্র নারী-পুরুষ এবং শিশুদের মাঝে শাড়ি-লুঙ্গী ও নগদ টাকা বিতরণ করা হয় এরফান গ্রুপের উদ্যোগে। এছাড়া জেলার বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানেও রমজান মাসে প্রচুর পরিমানে অর্থ অনুদান দেয়া হয়। এরফান গ্রুপের উদ্যোগে এলাকার দুঃস্থ ও পিড়িত মানুষদেরও বিভিন্নভাবে সহায়তা করা হয়।
এছাড়াও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সভাপতি ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহবানে সাড়া দিয়ে ‘এরফান গ্রুপ’ নিজস্ব অর্থায়নে এবছর করোনা প্রভাবে সংকটময় সময়ে প্রথম ধাপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ১৫টি ওয়ার্ড ও সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ৫০ লক্ষাধিক টাকার খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে নিজ অর্থায়নে ‘এরফান গ্রুপ’। আসন্ন ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে দ্বিতীয় ধাপে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার ১৫টি ওয়ার্ড ও সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে ৬০ লক্ষাধিক টাকার (বস্ত্র, আটা, চিনি, সেমাই, তেল) ঈদ সামগ্রী ১২ হাজার পরিবারে বিতরণ প্রায় শেষ পর্যায়ে ‘এরফান গ্রুপ’র নিজ অর্থায়নে। এছাড়া বিভিন্ন ধর্মীয়, সামাজিক, কঠিন রোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সহায়তাসহ বিভিন্নভাবে অসহায়, দুঃস্থ মানুষের পাশে সকল সময়ই দাঁড়িয়েছে ‘এরফান গ্রুপ’।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের ইমামদের ১ কোটি সাড়ে ২৪ লক্ষ টাকার অনুদান বিতরণ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় করোনা প্রভাবে সংকটে পড়া দেশের ইমাম, মোয়াজ্জিন ও খাদেমদের ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর উদ্যোগে সারাদেশের মত চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাতেও অনুদান দেয়া হয়েছে। আসন্ন পবিত্র ঈদ উপলক্ষে জেলার সকল ইমাম, মোয়াজ্জিন ও খাদেমদের আর্থিকভাবে সহায়তার জন্য প্রতিটি মসজিদে ৫ হাজার করে টাকা অনুদান দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে উদ্যোগে মসজিদ কমিটির সভাপতির হাতে এই টাকা তুলে দেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আলমগীর হোসেন ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. আবুল কালাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন ইসলামিক ফাউন্ডেশন এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ে ফিল্ড অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম, হিসাব রক্ষক মো. সাদিকুল ইসলাম, মাস্টার ট্রেইনার তরিকুল ইসলাম, বিক্রয় সহকারী মনিরুল ইসলামসহ ইসলামিক ফাউন্ডেশনের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের অন্যান্যরা। জেলার ২ হাজার ৪’শ ৯১টি মসজিদে জেলায় ১ কোটি ২৪ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকার অনুদান দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ৭২৩টি মসজিদ, শিবগঞ্জ উপজেলায় ৭২৪টি, গোমস্তাপুরে ৪৬৯টি, নাচোলে ৩৭৬টি এবং ভোলাহাটে ২০৯টি। করোনা সতর্কতায় সকল মসজিদে মুসল্লীরা তারাবিহ এর নামাজ ও দৈনিক নামাজ আদায় করতে না পারায় মসজিদে ইমাম, মোয়াজ্জিন ও খাদেমদের ভাতাদি দিতে সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও জেলা প্রশাসন এই উদ্যোগ গ্রহন করেছেন বলে জানিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয় সুত্র।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আরো ৪ ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত: মোট আক্রান্ত ৪৬

নিজস্ব প্রতিবেদক চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চঁপাইনবাবগঞ্জে আরো ৪ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টার দিকে ঢাকা থেকে এই রিপোর্ট আসে। মোট ১২৫ জনের করোনাভাইরাস পরীক্ষা রিপোর্ট সিভিল সার্জন অফিসে আসে। এই ৪ জনের মধ্যে ৩ জন শিবগঞ্জ ও ১ জন নাচোল উপজেলার বাসিন্দা। চাঁপাইনবাবগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. জাহিদ নজরুল চৌধরী এই তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, গত ৭ এপ্রিল থেকে পর্যায়ক্রমে ১ হাজার ৫৩৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ১ হাজার ১৯২ জনের নমুনার পরীক্ষা রিপোর্ট পাওয়া গেছে। সব মিলিয়ে এখন ৪৬ জন পজিটিভ পাওয়া গেছে। এই ৪৬ জনের মধ্যে ২ জন ইতোমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। পেন্ডিং রয়েছে আরো ৩৪৩ জনের নমুনা।

যেভাবে পড়বেন সালাতুত তাসবিহ নামাজ

ডেস্ক

সালাতুত তাসবিহ অন্তত ফযীলতপূর্ণ নামাজ। এই নামাজ তিনশোবার তাসবিহ পাঠ করা হয় তাই সালাতুত তাসবিহ বলা হয়। এই নামাজের প্রত্যেক রাকাআতে ৭৫ বার তাসবিহ আদায়ের মাধ্যমে ৪ রাকাআতে মোট ৩০০ বার তাসবিহ পড়তে হয়।

সালাতুতু তাসবিহ নামাজের ফজিলতের মধ্যে অন্যতম হলো- বিগত জীবনের গোনাহ মাফ এবং অনেক সাওয়াব লাভ হয়। রমজানে এ নামাজের ফজিলত সবচেয়ে বেশি। এ নামাজের ব্যাপারে হাদিসের একটি বর্ণনা পাওয়া যায়।

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, ‘একদিন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম (আমার পিতা) হজরত আব্বাসকে বললেন, ‘হে আব্বাস! হে চাচাজান! আমি কি আপনাকে দেব না? আমি কি আপনাকে দান করব না? আমি কি আপনাকে সংবাদ দেব না? আমি কি আপনার সঙ্গে ১০টি সৎকাজ করব না? (অর্থাৎ ১০টি উত্তম তাসবিহ শিক্ষা দেব না) যখন আপনি তা (আমল) করবেন-

তখন আল্লাহ আপনার আগের, পরের, পুরাতন, নতুন, সবধরনের গোনাহ মাফ করে দেবেন।

ইচ্ছাকৃত কিংবা অনিচ্ছাকৃত গোনাহ মাফ করে দেবেন।

সগিরা ও কবিরা গোনাহ মাফ করে দেবেন।
গোপন ও প্রকাশ্য গোনাহ মাফ করে দেবেন।

(হে চাচা!) আপনি ৪ রাকাআত নামাজ পড়বেন এবং প্রত্যেক রাকাআতে সুরা ফাতেহা পাঠ করবেন এবং যে কোনো একটি সুরা মেলাবেন। (অর্থাৎ প্রত্যেক রাকাআতে এ তাসবিহটি ৭৫ বার করে আদায় করতে হবে।)

সালাতুত তাসবিহ পড়ার নিয়ম সুরা ফাতেহার সঙ্গে অন্য একটি সুরা মেলানোর পাশাপাশি প্রত্যেক রাকাআতে (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) অর্থাৎ সুবহানাল্লাহি ওয়াল হামদু লিল্লাহি ওয়া লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াল্লাহু আকবার-এ তাসবিহটি ৭৫ বার পড়তে হবে। তবে একই নিয়মে ৪ রাকাআতে মোট ৩০০ বার তাসবিহ পড়ার মাধ্যমে তা আদায় করতে হয়।

নামাজে দাঁড়িয়ে সুরা ফাতেহা পড়ার আগে এ তাসবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) পড়ুন- ১৫ বার।

সুরা ফাতেহা ও অন্য সুরা মিলানোর পর রুকুর আগে এ তাসবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) পড়ুন- ১০ বার।

রুকুতে গিয়ে রুকুর তাসবিহ (سُبْحَانَ رَبِّىَ الْعَظِيْم) পড়ার পর এ তাসবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) পড়ুন- ১০ বার।

রুকু থেকে সোজা হয়ে দাঁড়ানো অবস্থায় এ সাতবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) ১০ বার।

সেজদায় গিয়ে সেজদার তাসবিহ (سُبْحَانَ رَبِّىَ الْأَعْلَى) পড়ার পর সেজদাবস্থায় এ তাসবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) পড়ুন- ১০ বার।

দুই সেজদার মাঝে বসাবস্থায় এ তাসবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) পড়ুন- ১০ বার।

দ্বিতীয় সেজদায় গিয়ে সেজদার তাসবিহ (سُبْحَانَ رَبِّىَ الْأَعْلَى) পড়ার পর আবার সেজদাবস্থায় এ তাসবিহ (سُبْحَانَ اللهِ وَالْحَمْدُ لِلهِ وَلَا اِلهَ اِلَّا اللهُ وَاللهُ اَكْبَرُ) পড়ুন- ১০ বার।

এভাবে দ্বিতীয় রাকাআতে দাঁড়িয়ে প্রথম রাকাআতে মতো এ নামাজ আদায় করা। দুই রাকাআতের পর বৈঠকে তাশাহহুদ পড়ে সালাম না ফিরিয়ে উপরের নিয়মে বাকি ২ রাকাআত আদায় করে নেয়া।

মনে রাখতে হবে

তাসবিহ পড়ার সময় যদি কোনো স্থানে নির্দিষ্ট সংখ্যার চেয়ে কম তাসবিহ পড়া হয় তবে, পরবর্তী যে রোকনে তা স্মরণ হবে সেখানেই তা পড়ে নিলেই হবে।

আর কোনো কারণে যদি এ নামাজে সাহু সেজদার প্রয়োজন হয় তবে এ সেজদায় কিংবা সেজদার মাঝখানে বসাবস্থায় এ তাসবিহ পড়তে হবে না।

তাসবিহ পড়ার ক্ষেত্রে স্মরণ রাখার জন্য আঙুলের কর গণনা করা যাবে না তবে আঙুল চেপে তাসবিহ এর সংখ্যা স্মরণ রাখা যাবে।

(অতঃপর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বললেন, হে চাচা!) এভাবে যদি প্রতিদিন একবার এ নামাজ পড়তে সক্ষম হন; তবে তা পড়বেন। আর যদি সক্ষম না হন, তবে প্রত্যেক জুমআর দিনে একবার পড়বনে।

তাও যদি না পারেন, তবে প্রত্যেক মাসে একবার পড়বেন। তাও যদি না পারেন তবে প্রত্যেক বছর একবার পড়বেন, আর যদি তাও না পারেন তবে আপনার জীবনে অন্তত একবার পড়বেন। (তিরমিজি, আবু দাউদ, ইবনে মাজাহ, মিশকাত)

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে রমজান মাসে সর্বাধিক তাসবিহ সম্বলিত নামাজ পড়ে উল্লেখিত ফজিলত লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।

পাশেই করোনা রোগী, আতঙ্কে শ্রাবন্তী!

ডেস্ক : একটা খবরে একেবারে দুশ্চিন্তায় ফেলে দিয়েছে রাজ, শুভশ্রী, শ্রাবন্তী, পায়েল, রচনা ও অরিন্দম শীলকে ৷ আর চিন্তা হবেই না কেন? তারা যেই আবাসনে থাকে সেখানেই করোনার মতো মারণ রোগ থাবা মারে, চিন্তা তো হবেই!

কলকাতার বাইপাসের কাছে অভিজাত এক আবাসনে হানা দিয়েছে করোনা ৷ ভারতীয় গণমাধ্যমে খবর অনুযায়ী, এই অভিজাত আবাসনের এক ব্যক্তি করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি হয়েছেন হাসপাতালে ৷ আর এই খবর কানে আসা মাত্র ঘুম উড়েছে রাজ ও শুভশ্রীর ৷ কয়েকদিন আগেই প্রেগন্যান্ট হওয়ার খবর সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছিলেন শুভশ্রী ৷ সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরেই শুভশ্রী ফ্যানদের জানিয়ে ছিলেন এবছরই তাদের সংসারে আসতে চলেছে নতুন সদস্য ৷ তাই তো তাদের ব্লকে করোনা ধরা পড়ায় রীতিমতো চিন্তার ভাঁজ সেলিব্রেটি জুটির কপালে৷

তবে শুধু রাজ-শুভশ্রী নয়, দুশ্চিন্তায় পড়েছেন আরেক সেলিব্রেটি জুটিও ৷ শ্রাবন্তী ও রোশন ৷ রাজ-শুভশ্রীর মতো একই আবাসনে থাকেন শ্রাবন্তী ৷ করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির খবর পেয়ে নায়িকা জানিয়েছেন, খুবই আতঙ্কে আছি৷ খুব চিন্তা হচ্ছে৷ করোনার প্রকোপের পর থেকে সাবধানতা নিয়েছিলাম৷ এবার দেখছি আরো সতর্ক হতে হবে ৷ তবে আক্রান্ত ব্যক্তি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুক তাই চাই৷

গাড়ির পার্টস দিয়ে ভেন্টিলেটর বানাচ্ছে আফগান মেয়েরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত একটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় বিশেষ পুরস্কার জিতে বিশ্ববাসীর নজর কেড়েছিল আফগানিস্তানের একদল কিশোরী। সেই মেয়েরাই এবার বাস্তবতার সঙ্গে লড়ে সাফল্য দেখাল।

করোনায় আক্রান্ত দেশকে ভেন্টিলেটর উপহার দিয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। মে মাসের শেষের দিকে বাজারে আসলে এ ভেন্টিলেটর অনেক কম দামে পাওয়া যাবে।

যুদ্ধ বিধ্বস্ত আফগানিস্তানের প্রায় ৪ কোটি মানুষের জন্য আছে মাত্র ৪০০ ভেন্টিলেটর। যা প্রয়োজনের তুলনায় অতি নগন্য। অথচ দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত ইতোমধ্যে ৭ হাজার ৬৫০ জন ছাড়িয়ে গেছে। মৃত্যু হয়েছে ১৭৮ জনের। দেশটির স্বাস্থ্যসেবা অত্যন্ত ভঙ্গুর হওয়ায় কর্তৃপক্ষ আশঙ্কা করছে পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটবে।

ভেন্টিলেটর তৈরি করা দলটির নাম ‘আফগান ড্রিয়েমার্স’। তাদের অন্যতম সদস্য ১৭ বছরের নাহিদ রাহিমি বলেন, ‘আমরা যদি আমাদের চেষ্টার মাধ্যমে অন্তত একটি জীবনও রক্ষা করতে পারি তবে সেটাও অনেক গুরুত্বপূ্র্ণ। এ দলটির সবার বয়স ১৪ থেকে ১৭ বছর বয়সে। তারা যে ভেন্টিলেটর তৈরি করছে তাতে ব্যবহার করা হয়েছে পুরনো টয়োটা করোলা গাড়ির মটর এবং হোন্ডা মোটরসাইকেলের চেইন ড্রাইভ।

তারা বলছে, শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত সমস্যায় থাকা রোগীদের সাময়িক স্বস্তি দেবে তাদের এই ভেন্টিলেটর। যতক্ষণ ভালো মানের একটি পাওয়া না যায়।

দল নেতা সুমাইয়া ফারুকি বলেন, ‘আমাদের চিকিৎসক ও নার্সরা এ সময়ে দেশের হিরো। তাদের সহযোগিতায় কিছু করতে পেরে গর্ব অনুভব করছি।’

বর্তমানে বিশ্বে বাজারে ভেন্টিলেটরের মারাত্বক সংকট রয়েছে। আর যা বিক্রি হচ্ছে তার দাম পড়ছে ৩০ হাজার থেকে ৫০ হাজার ডলার। আর আফগান এ মেয়েরা যে ভেন্টিলেটর তৈরি করেছে তার দাম পড়বে ৬০০ ডলারের কম। দলটির প্রতিষ্ঠাতা রয়া মাহবুব, ‍যিনি টাইম ম্যাগাজিনের ১০০ প্রভাবশালী উদ্যোক্তার একজন হয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘কাজ ৭০ শতাংশ শেষ হয়ে গেছে। হাসপাতালে প্রাথমিক পরীক্ষায় সফলতাও এসেছে। মে মাসের শেষ দিকে এটি বাজারে আসবে।’ সূত্র: বিবিসি।