সর্বশেষ সংবাদ গোমস্তাপুরে মামার বাড়ি বেড়াতে এসে নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু: উদ্ধার ২ চাঁপাইনাবগঞ্জে র শিবগঞ্জ ও গোমস্তাপুরে নতুন তিন করোনা রোগী সনাক্ত করোনাভাইরাস: ঢাকা শহরে ১৪ হাজার কোভিড-১৯ রোগী, সবচেয়ে বেশি মহাখালীতে এতিম শিশুদের পাশে মানিক শিশুকালের ঈদ বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মরহুম ওবায়দুর রহমান রেনু মাস্টারের জানাযা সম্পন্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড দুটি গ্রাম চাপাইনবাবগঞ্জে উদযাপিত হলো পবিত্র ঈদুল ফিতর: জেনে নিন কারা কোথায় ঈদ উদযাপন করলো ঈদের নামাজ পড়ানোর সময় সেজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত শনাক্ত ১৯৭৫ , মৃত্যু আরও ২১ জনের।

রবীন্দ্রজয়ন্তীতে ক্ষ্যাপার অনলাইন আড্ডায় বিশেষ আয়োজন

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৯তম জন্মবার্ষিকী ঘিরে বিশেষভাবে সাজানো হয়েছে থিয়েটার পত্রিকা ‘ক্ষ্যাপা’র অনলাইন আড্ডা। শুক্রবার (২৫ বৈশাখ/৮ মে) কবিগুরুর জন্মদিন। বিশেষ এই দিনটিতে তিনটি আড্ডা ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

এদিন বিকেল ৪টায় আলাপনে অংশ নেবেন দেশের নন্দিত নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান। সঞ্চালনা করবেন আমিনুর রহমান মুকুল। এরপর রাত ৯টায় শিশুদের জন্য বিশেষ আয়োজনে পাপেট পরিবেশন করবেন কাজী নওশাবা আহমেদ ও তার দল ‘টুগেদার উই ক্যান’। সঞ্চালনা করবেন মুনিরুল ইসলাম।

সবশেষে রাত সাড়ে ১০টায় গান ও পাঠ অভিনয়ে অংশ নেবেন গুণী অভিনয়শিল্পী অপি করিম ও নন্দিত সংগীতশিল্পী ফারহিন খান জয়ীতা। সঞ্চালনা করবেন মোস্তাফিজ শাহীন। ক্ষ্যাপার ফেসবুক পেজ থেকে আড্ডাটি সরাসরি সম্প্রচার হবে।

লাইভ দেখা যাবে এই লিংকে-
https://www.facebook.com/Khepa-ক্ষ্যাপা-163220297707293/

ভয়াল করোনার ঘরবন্দি সময়ে মানুষের পাশে থাকতে গত ৮ এপ্রিল থেকে প্রতিদিন ফেসবুকে অনলাইন আড্ডা সম্প্রচার করছে ক্ষ্যাপা। ইতোমধ্যে ৪৫টি আড্ডায় অংশ নিয়েছেন দেশ-বিদেশের সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বরা।

ইতোমধ্যে ফেসবুক লাইভের মধ্য দিয়ে চৈত্রসংক্রান্তি, পয়লা বৈশাখও উদযাপন করেছে ক্ষ্যাপা। এই আয়োজনটি সংস্কৃতি অঙ্গনে ইতোমধ্যে সাড়া জাগিয়েছে। মানসিকভাবে কিছুটা সময় সুস্থ থাকার পাশাপাশি ঘরবন্দি সময়ে আর্থিকভাবে অসচ্ছ্বল নাট্যকর্মীদের জন্য একটি তহবিল গঠন করা এই আয়োজনের উদ্দেশ্য।

রমজান মাসে প্রতিদিন রাত ১০টায় এই লাইভ আড্ডাটি সম্প্রচার হচ্ছে। এই আয়োজন থেকে প্রাপ্ত অর্থ ইতোমধ্যে অর্থ সংকটে থাকা বেশ কয়েকজন নাট্যকর্মীকে দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতেও এই প্রক্রিয়া অব্যহত থাকবে। ক্ষ্যাপার তহবিলে সহযোগিতা পাঠানো যাবে- ০১৭১৭৩৮৬৬৪৬ এই বিকাশ নম্বরে (ব্যক্তিগত)। অথবা এক্সিম ব্যাংকে ক্ষ্যাপার এই অ্যাকাউন্টে ০১৪১১১০০৩০৬৩১৩ পাঠানো যাবে।

ক্ষ্যাপার ফেসবুক লাইভ সম্প্রচারের দায়িত্বে রয়েছেন পাভেল রহমান, অপু মেহেদী, প্রসেনজিত রায়, মাহফুজ সুমন, শাহনাজ জাহান ও শাকিল মাহমুদ, ইমরান, পারভেজ, স্বপন, রণধীর প্রমুখ।

ছোলা খাওয়ার ক্ষেত্রে যে দুটি বিষয় মাথায় না রাখলেই ঘটবে মারাত্মক বিপদ

ডেস্ক

রমজানে ইফতারের সবচেয়ে বড় অত্যাবশ্যকীয় খাদ্যদ্রব্যের নাম ছোলা। ইফতারির প্রধান অনুষঙ্গের একটি। রমজানে ছোলা ছাড়া চলবে না। এটা একদম নিয়ম হয়ে গেছে। তাই রমজান মাস আসলেই ছোলার চাহিদা বেড়ে যায়। তবে রমজান মাসে ছোলা সিদ্ধ করে খাওয়া তা নিয়ে সমস্যা নয়। সমস্যা হল স্বাস্থ্যের জন্য ছোলা অনেকেই সকালে খালি পেটে কাঁচা খেয়ে থাকেন। তবে এই কাঁচা ছোলার সঙ্গে আর কী খাওয়া ঠিক কিংবা ঠিক না সে বিষয়টি অনেকেই মাথায় রাখেন না। অথচ এই বিষয়টি খেয়াল রাখা খুব জরুরি। কারণ সঠিক তথ্য না জানার জন্য অনেক সময় হিতে বিপরীত ফলাফল ভোগ করতে হতে পারে। দেখা যাবে ভালো করতে গিয়ে আপনার শরীরের জন্য তা বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাই সঠিক তথ্য জানাটা আপনার শরীরের জন্য খুবই জরুরি।

অনেকেই হিমোগ্লোবিন বৃদ্ধি ও খাদ্য পরিপাকের কথা মাথায় রেখে রাতেই ছোলা ভিজিয়ে দেন ও পরের দিন সকালে সেগুলো খান। কাঁচা ছোলা খাওয়া শরীরের জন্য খুবই ভালো, তা যেমন আপনার শরীরের রক্তের পরিমাণ বৃদ্ধি করে, তেমনি আপনাকে ফিটও রাখে। তবে প্রায় সময়ই দেখা যায় ছোলা খাওয়ার কিছুক্ষণ পরই অন্যান্য খাবার খান অনেকেই। যা বিপদ বয়ে আনতে পারে।

বিশেষ করে এই সময় আপনি যদি দুটি জিনিস খান, তাহলে আপনার শরীরে অসুখের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে। আসলে কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর এই দুটি জিনিস শরীরে গেলে তা আপনার শরীরের জন্য বিষক্রিয়ার সৃষ্টি করতে পারে। তাতে করে শরীরে বিভিন্ন রকম রোগ দানা বাঁধতে পারে। তাই সকালে ছোলা খাওয়ার পর দুটি জিনিস ভুলেও খাবেন না। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই দুটি জিনিস সম্পর্কে-

১) সকালে খালি পেটে কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর ভুলেও কোনো রকম আচার খাবেন না। আসলে আচারের মধ্যে অনেক সময় ভিনেগার দেয়া হয়, কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর যদি আপনার পেটে ভিনেগার যায় তাহলে তা বিষক্রিয়া করতে পারে। এতে করে কাঁচা ছোলা ও আচার একই সঙ্গে আপনার পেটে গেলে তা উপকারের বদলে অপকার করবে এবং আপনার হার্ট অ্যাটাক পর্যন্ত হতে পারে। সেই সঙ্গে সহ্য করতে হবে গলা-বুক জ্বালা ও অম্বলের সমস্যা।

২) সকালে খালি পেটে কাঁচা ছোলা খাওয়ার পর কখনোই করলা খাবেন না। কারণ কাঁচা ছোলাতে যে অক্সাইড পাওয়া যায়, সেই অক্সাইড আপনি পাবেন করলাতে। বরং কাঁচা ছোলাতে যে পরিমাণ অক্সাইড পাওয়া যায় করলাতে তার চেয়ে অনেক বেশি মাত্রায় অক্সাইড থাকে। তাতে করে শরীরের মধ্যে তা প্রবেশ করার পর তা মিলেমিশে বিষক্রিয়ার সৃষ্টি করে। তবে এই বিষক্রিয়া খুবই ধীরে ধীরে কাজ করে ও পরে তা গভীর অসুখের সৃষ্টি করতে পারে।

আইসোলেশনে প্রেমে মজেছেন তরুণ-তরুণী!

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার আইসোলেশন ইউনিটে দ্বিতীয় তলায় ভর্তি থাকা এক তরুণী তৃতীয় তলার এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেছেন। তাদের এখানে রাখা হয়েছে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য। অনেকবার নিষেধ করার পরও আইসোলেশনে থাকা ওই তরুণ ও তরুণী তাদের নিজ নিজ তলার বারান্দায় দাঁড়িয়ে কথা বলছেন।

অপরদিকে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকার পরও তিনি উপজেলার গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হওয়া নিজের স্ত্রীর সঙ্গে থাকছেন এক ব্যক্তি। চিকিৎসকেরা অনেক চেষ্টা করেও তাকে সেখান থেকে সরাতে পারেননি।

ওই দুটি ঘটনার বিষয়ে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন এখানে দায়িত্ব পালনকারী কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা কর্মকর্তা শাহিন রেজা।

বুধবার রাতে এই চিকিৎসা কর্মকর্তা তার ফেসবুক আইডিতে দেওয়া পোস্টে গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশন ওয়ার্ডের কথা উল্লেখ করে জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত স্ত্রীকে একা আইসোলেশন ইউনিটে যেতে দেননি স্বামী। সঙ্গে তিনিও রয়ে গেছেন।

অপরদিকে আইসোলেশন ওয়ার্ডের দ্বিতীয় তলায় থাকা তরুণী এবং তিনতলায় থাকা এক তরুণ প্রেম করছেন।

ফেসবুকের এই পোস্টের সত্যতা চিকিৎসক শাহিন রেজা নিজেই গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন। গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজির প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন ইউনিটের দায়িত্বে থাকা শাহিন রেজা বলেন, ‘বুধবার করোনায় আক্রান্ত নারীকে আইসোলেশনে আনা হলে তার স্বামী সঙ্গে আসেন। তারা একই সঙ্গে আইসোলেশনে থাকতে চান। বিব্রতকর পরিস্থিতিতে তাদের আইসোলেশনে পাঠাতে বাধ্য হয়েছি।’

এ বিষয়ে জয়পুরহাটের সিভিল সার্জন সেলিম মিঞা বলেন, ‘করোনায় আক্রান্ত এক নারীকে আইসোলেশন ইউনিটে আনা হলে তার স্বামী তার সঙ্গে ঢুকে পড়েন। স্বামীকে আইসোলেশন থেকে বের করে আনার পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। আইসোলেশনেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। যদি কেউ নিয়ম না মেনে চলেন, তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

চাকরি হারাচ্ছেন চিকিৎসকসহ ১৪১ কর্মচারী

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

করোনা পরিস্থিতিতে চাকরি হারাচ্ছেন ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বেসরকারি জনবলের চিকিৎসকসহ ১৪১ জন কর্মচারী। মাত্রাতিরিক্ত রোগীর চাপ সামাল ও হাসপাতালের সরকারি কর্মচারীদের সহায়তা দিতে ওয়ানস্টপস সার্ভিসসহ বিভিন্ন বিভাগে এসব কর্মচারীদের নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে এদের অনেকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখনও আছেন হোম কোরায়ান্টাইনে। এমতাবস্থায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অমানবিক এই সিদ্ধান্তে হতভম্ব ও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন কর্মচারীরা।

ধারণা করা হচ্ছে, এসব জনবল ছাটাইয়ের কারণে বহুল প্রত্যাশিত ও প্রশংসিত ওয়ানস্টপ সার্ভিস সেবা দেয়ার সক্ষমতা হারাবে। বন্ধ হয়ে যেতে পারে হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিট-সিসিইউ এর বায়োক্যামিক্যাল ল্যাবের সেবা কার্যক্রম। ব্যাহত হবে বিভিন্ন পরীক্ষাসহ অন্যান্য বিভাগের স্বাভাবিক সেবাদান কার্যক্রম। এতে চরম ভোগান্তির শিকার হবে রোগীরা। দৌরাত্ম্য বাড়বে দালাল সংঘবদ্ধ চক্রের।

হাসপাতাল উপ পরিচালক ডা. লক্ষী নারায়ণ মজুমদার জানান, করোনার কারণে রোগী কমে যাওয়ায় হাসপাতালের রক্ষণাবেক্ষণের তহবিল থেকে এখন আর এসব কর্মচারীদের বেতন ভাতা মেটানো সম্ভব নয় বলেই এই সিদ্ধান্ত। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ও রোগীর চাপ বাড়লে বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে জানায় হাসপাতাল কতৃৃপক্ষ। এসব কর্মচারীদের বেতন ভাতা মেটাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে প্রতিমাসে প্রায় ১৫ লাখ টাকা ব্যয় করতে হয়। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চান হাসপাতালের বেসরকারি জনবলের ১৪১ কর্মচারী ও তাদের পরিবার।

সংশ্লিস্ট সূত্র জানায়, হাসপাতালের ওয়ানস্টপ সার্ভিসের এক কম্পিউটার অপারেটর করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ১০ দিন ধরে আছেন নগরীর নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারান্টাইনে। করোনা পরিস্থিতিতে রোগীদের সেবা দিতে গিয়ে তাঁর মত এই ওয়ানস্টপ সার্ভিসের চিকিৎসক ও মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্টসহ আক্রান্ত হয়েছেন অনেকে।

এমতাবস্থায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তে এখন ভেঙ্গে পড়েছেন তাঁরা। হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটের ইমারজেন্সি বায়োকেমিষ্ট্রি ল্যাব, রেডিওলজী বিভাগ, প্যাথলজী, বর্হিবিভাগের চিকিৎসকসহ সনোলজিষ্ট, মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্ট, রেডিওগ্রাফার ও অফিস সহায়ক পদমর্যাদার এরকম ১৪১ কর্মচারীর চাকরি থাকছে না আগামী পহেলা জুন থেকে। গত এপ্রিলে হাসপাতাল পরিচালক এক পত্রে এই নোটিশ জারি করেছেন। করোনাকালে এমন নোটিশে ক্ষুব্ধ ও হতাশ হাসপাতালের বেসরকারি জনবলের এই কর্মচারীরা।

কর্মচারীদের ছাটাইয়ের সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে ওয়ানস্টপ সার্ভিস, ইমারজেন্সি বায়োকেমিক্যাল ল্যাব, প্যাথলজী ল্যাব ও রেডিওলজী বিভাগ সক্ষমতা হারাবে। ওয়ানস্টপ সার্ভিসের প্যাথলজী পরীক্ষা, ইজিসি, এক্সরে ও আলট্রাসনোগ্রাম পরীক্ষার সেবা বন্ধ হয়ে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্ট মেডিক্যাল টেকনোলজিষ্টরা। একই সাথে বর্হিবিভাগের গাইনী, মেডিসিন ও সার্জারি বিভাগের সেবাদানে অচলাবস্থা তৈরি হবে।

এসময় ভোগান্তির শিকার হবেন সেবা নিতে আসা রোগীরা। করোনার আগে হাসপাতালের আউটডোর, ইনডোর ও জরুরি বিভাগে মাত্রাতিরিক্ত ১০ হাজারের বেশি রোগীর চাপ সামালসহ সরকারি কর্মচারীদের সহায়তা দিতে অস্থায়ীভাবে এসব কর্মচারী নিয়োগ দেয়া হয়েছিল। রোগীদের কাছ থেকে আদায় করা ইউজার ফি-এর সাথে অতিরিক্ত ১০ শতাংশ টাকার রক্ষণাবেক্ষণ তহবিল থেকে এসব কর্মচারীর বেতন ভাতা পরিশোধ করা হত। কিন্তু এই নোটিশের ফলে চাকরি হারাতে হচ্ছে তাদের।

এটিকে অমানবিক উল্লেখ করে সমস্যা সমাধানে সরকারের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন চিকিৎসক নেতৃবৃন্দ। স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ-স্বাচীপ ময়মনসিংহ শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. মতিউর রহমান ভুইয়া জানান, করোনা পরিস্থিতিতে যেখানে এসব চিকিৎসক কর্মচারীদের সহায়তার প্রয়োজন সেখানে তাদের ছ্টাাই কোনভাবেই কাম্য নয়। সমস্যা সমাধানে সরকার ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় উদ্যোগ নেবে বলে আশা করছেন তিনি।

এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়, করোনার কারণে রোগী কম আসায় ইউজার ফি কমে গেছে। ফলে রক্ষণাবেক্ষণ তহবিল এখন তলানিতে। এমতাবস্থায় এসব কর্মচারীকে কোনমতেই রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে বিষয়টি দেখা হবে বলেও জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

কর্তৃপক্ষ আরও জানায়, করোনার আগে হাসপাতালের বর্হিবিভাগে বিভাগে দৈনিক গড়ে ছয় হাজার এবং ওয়ানস্টস সার্ভিস ও জরুরি বিভাগে আরও পাঁচ শতাধিক রোগী সেবা নিতে ভিড় জমাত এবং হাসপাতালের অন্তবিভাগে গড়ে প্রতিদিন তিন হাজারের বেশি রোগী ভর্তি থাকত। এসময় ইউজার ফি আদায়ের ফলে সরকারের রাজস্ব চার কোটি টাকা থেকে বেড়ে এক লাফে ১৩ কোটি ছাড়িয়ে গিয়েছিল। ফলে হাসপাতালের রক্ষণাবেক্ষণ তহবিলে টাকার কোন অভাব ছিল না।

বর্তমানে বর্হিবিভাগে গড়ে প্রতিদিন পাঁচশ, ওয়ানস্টপ সার্ভিস ও জরুরি বিভাগে গড়ে প্রতিদিন দুইশ’ রোগী আসছেন সেবা নিতে। আর এক হাজার শয্যার হাসপাতালের অন্ত বিভাগে ভর্তি থাকছে গড়ে সাতশ’ রোগী! করোনা পরিস্থিতিতে রোগীর এই সংখ্যা আরও কমতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। ফলে রাজস্ব আয়েও ধ্বস নেমেছে। এমতাবস্থায় গত ২১ এপ্রিল হাসপাতাল পরিচালকের স্বাক্ষর করা এই নোটিশে বলা হয় বেসরকারি কর্মচারীদের অস্থায়ী নিয়োগ আদেশ আগামী পহেলা জুন-২০২০ থেকে বাতিল করা হলো।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে ফেন্সিডিলসহ আটক ২


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ মাদক বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মিয়াপুর এলাকা থেকে ৪৭৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ ২ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব ৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা। আটক মাদক ব্যবসায়ীরা হচ্ছে, রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার ছয়ঘাঁটা গ্রামের মো. আইনুদ্দিনের ছেলে মো. শহিদ (৩৫) এবং একই উপজেলার টালধারী গ্রামের মৃত আইনাল হকের ছেলে মো. আলমগীর হোসেন (৩৪)। শুক্রবার সকালে র‌্যাবের পাঠানো এক প্রেসনোটে জানানো হয়, র‌্যাব-৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল কোম্পানী কমান্ডার এর নেতৃত্বে ৮মে শুক্রবার সকাল আনুমানিক ৮টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ থানার মিয়াপুর এলাকার পাঁকা রাস্তার উপর উপর অভিযান চালানো হয়। এসময় অভিনব কায়দায় ১টি ইটভর্তি  ট্রলিতে  ইটের নীচে ৩টি বস্তায় আমদানী নিষিদ্ধ ৪৭৫ বোতাল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ীর মাদক ব্যাবসায়ী মোঃ শহিদ ও মোঃ আলমগীর হোসেন কে হাতেনাতে আটক করা হয়। উক্ত মাদক ব্যবসায়ীরা দীর্ঘদিন যাবৎ ফেন্সিডিলসহ বিভিন্ন ধরনের মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। এঘটনায় জেলার শিবগঞ্জ  থানায় মামলা হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০


গোমস্তাপুর প্রতিনিধি:

চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে দুপক্ষের সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২০ জন আহত হয়েছে। আজ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার গোমস্তাপুর ইউনিয়নের লালকোপরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ৫ জন কে উন্নত চিকিৎসার জন্য রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বোয়ালিয়া ইউনিয়নের ঘাটনগর এলাকার ফিটু মিয়ার ছেলে ইমরুলের সাথে ওই এলাকার জালালউদ্দিনের জমি নিয়ে দীর্ঘদিনের বিরোধ চলে আসছিল। আজ শুক্রবার দুপুরে ইমরুল তার লোকজন নিয়ে ওই জমির দখল নিতে গেলে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয় পক্ষের ২০ জন আহত হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে দুরন্ত’৯৫ এর উদ্দ্যোগে ৩’শ কর্মহীনদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘দূরন্ত-৯৫’ এর উদ্যোগে করোনা ভাইরাস সতর্কতায় কর্মহীন ও অসহায় হয়ে পড়া পরিবারের বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার নারী-পুরুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। ‘মন, মনন ও মানিবকায় আমরা’ শ্লোগানে শুক্রবার সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারী কলেজ শহীদ মিনার চত্বরে এসব বিতরণ করেন ‘দূরন্ত-৯৫’ এর চীফ এ্যাডমীন আলহাজ্ব এ্যাড. ইয়াসমীন সুলতানা রুমা। সাথে ছিলেন ‘দূরন্ত-৯৫’ এর এ্যাডমীন সদস্য ডা. আকতারুল আলম পলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. মো. নাদিম সরকার, সমাজ সেবা অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের অতিরিক্ত উপ-পরিচালক সিরাজুম মুনির আফতাবী, মো. আমিনুল জনি ও দূরন্ত-৯৫ সদস্য মো. রায়হান আলী, আবু তালেব, বেনাউল ইসলাম, খাইরুল বাসার পলাশ ও তৌহিদুল ইসলাম, আশিকুল ইসলাম, মো. পলাশ, মো. মনো, জেসমিন সোহানা, সালেহা পারভীন, আব্দুল জলিল, আমিনুল ইসলাম, মোকসেদুল মোমিন, মো. পিপুল, মঈনুল ইসলাম, মাইনুল ইসলাম মাস্টার। এসময় এলাকার ৩০০ জনকে প্রতিটি প্যাকেটে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, ১লিটার তেল, ১কেজি পেঁয়াজ, ১ কেজি আটা, ১টি সেমাই বিতরণ করা হয়।
উল্লেখ্য, ‘দূরন্ত-৯৫’ এর ১২৫জন সদস্যের যৌথ ব্যবস্থাপনায় এসব অসহায়, কর্মহীন মানুষের হাতে খাদ্য সামগ্রীগুলো তুলে দেয়া হয়। গত ১৭ এপ্রিল একই স্থানে ‘দূরন্ত-৯৫’ এর উদ্যোগে করোনা ভাইরাস সতর্কতায় এলাকার ১২৫ জন অসহায়, কর্মহীন মানুষের হাতে প্রতিটি প্যাকেটে ৫ কেজি চাল, ১ কেজি ডাল, ২ কেজি আলু, ১লিটার তেল, ১কেজি পেঁয়াজ, ১টি সাবান দেয়া হয়।

মসজিদ চত্তর থেকে নাচোলে ধর্ষণ মামলার আসামী গ্রেফতার


নাচোল প্রতিনিধি

 চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করেছে নাচোল থানা পুলিশ। আটককৃত ব্যক্তি হলেন, উপজেলার নেজামপুর কাঠালিয়া পাড়ার মৃত দবির উদ্দি দবু’র ছেলে  সেলিম রেজা(২৬) । নাচোল থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সেলিম রেজা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে উপজেলার নেজামপুর মাদ্রাসার পাড়ার মসজিদে নামাজ পড়ার সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিত্বে দারোগা সোহেল রানা তাকে আটক করে। পুলিশ জানায়, ধৃত সেলিম রেজার বিরুদ্ধে গত মাসে নাচোল থানায় একটি ধর্ষনের মামলা হয়েছে। নাচোল থানার মামলা নং ৭।  ধৃত আসামীকে  আজ শৃক্রবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে বলে ওসি জানান।