সর্বশেষ সংবাদ গোমস্তাপুরে মামার বাড়ি বেড়াতে এসে নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু: উদ্ধার ২ চাঁপাইনাবগঞ্জে র শিবগঞ্জ ও গোমস্তাপুরে নতুন তিন করোনা রোগী সনাক্ত করোনাভাইরাস: ঢাকা শহরে ১৪ হাজার কোভিড-১৯ রোগী, সবচেয়ে বেশি মহাখালীতে এতিম শিশুদের পাশে মানিক শিশুকালের ঈদ বিনোদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মরহুম ওবায়দুর রহমান রেনু মাস্টারের জানাযা সম্পন্ন চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে ঘূর্ণিঝড়ে লণ্ডভণ্ড দুটি গ্রাম চাপাইনবাবগঞ্জে উদযাপিত হলো পবিত্র ঈদুল ফিতর: জেনে নিন কারা কোথায় ঈদ উদযাপন করলো ঈদের নামাজ পড়ানোর সময় সেজদারত অবস্থায় ইমামের মৃত্যু ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত শনাক্ত ১৯৭৫ , মৃত্যু আরও ২১ জনের।

৭৪ সালের সেই বাসন্তির বাড়িতে শেখ হাসিনা

সময়টা ৯১ সালের শেষ দিকের। রংপুর সফরে গেলেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। নেত্রীর সাথে আমরা সবাই উঠলাম সার্কিট হাউজে। ভোরে নাস্তা সেরে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বের হতেন, ফিরতেন সন্ধ্যায়। সারাদিন মঙ্গা কবলিত এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করতেন। মিশে যেতেন মানুষের মাঝে। রংপুরের পুত্রবধূ হিসাবে বক্তৃতা করে মানুষকে নাড়া দিতেন। দুপুরে খেতেনও না। তবে আমাদের গাড়িতে পাঠাতেন কলা, রুটি। কয়েকদিন ছিলেন তিনি রংপুরে। একদিন সন্ধ্যার পর আড্ডা দিচ্ছিলাম আমরা। এই সময় মৃণাল কান্তিদা ছুটে আসলেন। বললেন, আপা ডাকছে আপনাদেরকে। আমরা গেলাম। তিনি বললেন, কাল সবাইকে নিয়ে যাব পুরাতন ইতিহাস জানাতে। সেই ইতিহাস ৭৪ সালে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের। ভোরে উঠতে হবে সবাইকে। তিনি আমাদেরকে জানালেন, বাসন্তির বাড়িতে যাবেন। তারপর হাসতে হাসতে বললেন, এক্সক্লুসিভ আগেই ফাঁস করে দিলাম। তৈরি থেকো। তারপর অনেক বিষয় নিয়ে গল্প আড্ডা দিলেন। পরদিন সকালে নাস্তা সেরে বের হলাম সবাই কুড়িগ্রামের চিলমারির পথে। চিলমারি সদর থেকে মাঝিপাড়ায় ব্রহ্মপুত্র নদীর তীরে বাসন্তির বাস। ১৯৭৪ সালে বাসন্তির জালপরা ছবি প্রকাশিত হয়েছিলো দৈনিক ইত্তেফাকে। পরে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়ে ছবিটি। বাংলাদেশের দুর্ভিক্ষের মূর্তপ্রতীক হিসাবে এই ছবি বঙ্গবন্ধু সরকারকে বিব্রত করে।

মাঝিপাড়া বাসন্তির বাড়ি পর্যন্ত গাড়ি যায় না। কিছুদূর হাঁটতে হবে। শেখ হাসিনা গাড়ি থেকে নেমে হাঁটা শুরু করেন। আমরা পেছনে পেছনে। বাসন্তির ভাঙ্গা বাড়িতে পৌঁছলাম। ৭৪ সালে বাসন্তির ভাঙ্গা ঘর আগের মতোই আছে। তার পরনের শাড়িটি ছেড়া। কোনো পরিবর্তন নেই। শেখ হাসিনা বললেন, দেখ সবাই বাসন্তিকে নিয়ে বক্তৃতাই দিয়ে গেল। রাজনীতি করলো। কিন্তু তার ভাগ্যর পরিবর্তন কেউ করলো না। তিনি নগদ ৩০ হাজার টাকা বাসন্তিকে দেন। স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আনসার সাহেব,তিনি সাবেক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছিলেন,দলীয় সভানেত্রীকে জানালেন,সেই সময় তিনি এলাকায় লংগরখানা খুলেছিলেন। এই সময় দুইজন সাংবাদিক আসলেন ঢাকা থেকে। তারা বললেন, বন্যার খবর সংগ্রহ করছেন। তারাই বাসন্তিকে টাকা দিয়ে জাল পরা ছবিটি তোলেন পাটক্ষেতে শাক তোলার সময়।

বাসন্তিকে কাছ থেকে দেখলাম। কথা বলতে এগিয়ে গেলাম আমি। পাশে থাকা মোনাজাত উদ্দিন বললেন, ও কথা বলতে পারে না। প্রতিবন্ধী। ৭৪ সালে ইত্তেফাকের রিপোর্টার শফিকুল কবীর ও ফটোগ্রাফার আফতার আহমেদ যান চিলমারিতে। আফতাব আহমেদের ছবি আর শফিকুল কবীরের লেখা প্রকাশিত হয়েছিলো ইত্তেফাকে।

চিলমারির নেতারা শেখ হাসিনাকে বলেন, তখন একটি সাধারণ কাপড়ের চেয়ে জালের দাম বেশি ছিলো। ছবিটি তোলা হয় পরিকল্পিতভাবে। শেখ হাসিনা আমাদেরকে বললেন, বাসন্তি ষড়যন্ত্র আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণের অংশ ছিলো। আর কিছু না। বিশ্ববাসীর কাছে সরকারকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে তোলা ছবি নিয়েই হয়েছে সব রাজনীতি। এই কারণে পরের কোন সরকার বাসন্তির জন্য কিছু করেনি। আমাকেই করতে হচ্ছে।

চিলমারি থেকে রংপুর ফিরে খবরটি ঢাকা পাঠাই। ৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর শেখ হাসিনা ঘর করে দিয়েছিলেন বাসন্তিকে।

(লেখাটি নঈম নিজাম এর ফেসবুক ওয়াল থেকে নেয়া)

গোমস্তাপুরে নিজের ও স্বামীর নামে ত্রানের চাল উঠালেন রহনপুর ইউপি সদস্য রুলি

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সৃষ্ট পরিস্থিতিতে সমাজের খেটে-খাওয়া, অসহায়, দরিদ্র, কর্মহীনদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ১০ কেজি করে ত্রানের চাল নিয়ে এবার অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে গোমস্তাপুরের এক মহিলা ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে।
অভিযোগটি চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর ইউনিয়নে পরিষদের ১,২,৩ নং ওয়ার্ডের মহিলা সদস্য রুলি খাতুনের নামে।তিনি তার ও তার স্বামীর নামে এ চাল উত্তোলন করেন।
এ ঘটনায় ওই এলাকার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম
রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা ইউপি সদস্য রুলি খাতুন ও তার স্বামী কুতুবুল আলমের বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে একটি অভিযোগ দাখিল করেছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার ওই ইউনিয়নের দুঃস্থ ও অসহায় মাঝে ১০ কেজি করে  চাল বিতরন করা হয়। চাল বিতরনের যে তালিকা পাওয়া গেছে, সেখানেও ইউপি সদস্য রুলি খাতুন ও তার স্বামী কুতুবুল আলমের নাম রয়েছে। এমনকি এর আগেও প্রকৃত উপকারভোগীদের বঞ্চিত করে নিজের আত্মীয় স্বজনদের নামে সরকারি সহায়তা প্রদানের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

অভিযোগকারী সাইফুল ইসলাম আরোও জানান,এলাকার জনগন বিষয়টি নিয়ে খুবই ক্ষিপ্ত। সকলেই এর সুষ্ঠ তদন্ত করে এর বিরুদ্ধে  প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন জরুরী।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মো. বাইরুল ইসলাম বলেন, পুরো ইউনিয়নের তালিকা তৈরিতে সকল ইউপি সদস্যের সহযোগিতা নেয়া হয় এবং সকলেই আনুপাতিক হারে উপকারভোগীদের সংখ্যা ভাগ করে দেয়া হয়। ইউপি সদস্য রুলি নিজেরই নাম দিয়েছে, এটি আমি জানতাম না। তবে চাল বিতরণের পর আমিও তালিকায় রুলি বেগম ও তার স্বামীর নাম দেখে তার কাছে জানতে চেয়েছিলাম। তালিকায় নিজেদের নাম দেয়ার ব্যাখায় তিনি জানান, চৌকিদার ও একজন দুঃস্থ নারীর জন্যই তিনি নিজের ও স্বামীর নাম দিয়েছেন। চাল বিতরনের পূর্বে আমার চোখে এটি পরলে, তা সংশোধন করতাম।
অন্যদিকে রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের ট্যাগ অফিসার ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌসী বেগম বলেন, আমিতো সবাইকে চিনিনা,সে সময় উপস্থিত কেউ আমাকে অবহিত করে নি। তবে বিষয়টি জানার পরেই উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

তালিকায় নিজের ও স্বামীর নাম রয়েছে স্বীকার করে রহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের ১,২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রুলি বেগম বলেন, তালিকা তৈরির পরেও অনেক অসহায় মানুষ সহায়তা থেকে বাদ পড়ে যান। তাই নিজেদের নাম দিয়ে রেখেছিলাম, যাতে পরে কেউ আসলে তাকে চাল দিতে পারি। এমনকি চালগুলো নিজে উত্তোলন করিনি। ইউনিয়ন পরিষদের একজন গ্রামপুলিশ ও এক অসহায় নারীকে চালগুলো দিয়েছি ও তারাই উঠিয়েছে।

এ বিষয়ে ইউপি সচিব সজীব সাহা ও
গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমানের বক্তব্য জানতে তার কার্যালয়ে গিয়ে তাদের পাওয়া যায়নি। পরে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তারা ফোন রিসিভ করেননি।

গোমস্তাপুরে ত্রান বিতরনের অনিয়মনের অভিযোগে এবার ইউপি সদস্যদের জিডি


চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার  রহনপুর ইউনিয়নে ত্রাণ বিতরণকালে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় ইউপি ভবনে ত্রাস সৃষ্টির

অভিযোগে সাধারণ ডায়রী করেছেন ওই ইউনিয়নের ৮ জন ইউপি সদস্য। গত ৫ মে রহনপুর পুলিশ

তদন্ত কেন্দ্রে ইউপি সদস্যদের পক্ষে ৯ নং ইউপি সদস্য ইসমাইল হোসেন এ সাধারণ ডায়রী দায়ের

করেন। জিডি সূত্রে জানা গেছে, গত ৩ মে রহনপুর ইউপির(সাময়িক বরখাস্তকৃত) চেয়ারম্যান

শাহ আল শফি আনসারীর অনুসারীরা ইউপি ভবনে ত্রাস সৃষ্টি করে উপস্থিত অন্যান্য ইউপি

সদস্যদের অকথ্য-অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ ও প্রাণ নাশের হুমকি প্রদান করে। এ ঘটনায় রহনপুর

পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে সাধারণ ডায়রি দায়ের করা হয়। এছাড়া ইউপি সদস্যরা গত ৫ মে উপজেলা

নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপস্তিত হয়ে ইউএনও মিজানুর রহমানকে বিষয়টি অবহিত

করেন এবং এ ঘটনার বিচার চেয়ে একটি লিখিত আবেদন করেছেন বলে জানা গেছে।

চেয়ারম্যানের গোপনে আমেরিকা গমন : সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকদের হুমকি; জিডি দায়ের

গোমস্তাপুর প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তপুরে এক ইউপি চেয়ারম্যান গোপনে আমেরিকা চলে যাবার সংবাদ প্রকাশ করায় ফেসবুকে গোমস্তাপুরের স্থানীয় সাংবাকিদের হুমকি দিয়েছে। এ ঘটনায় অভিযোগ এনে সাধারণ ডায়রি করেছে গোমস্তাপুর উপজেলার  দুটি সাংবাদিকদের সংগঠন। গত ৫ ও ৬ মে গোমস্তাপুর উপজেলা প্রেসক্লাব ও উপজেলা প্রেসক্লাব (রহনপুর প্রেসক্লাব)এর পক্ষ থেকে রহনপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে জিডি ২ টি দায়ের
করা হয়। গত ১৯ ও ২০ এপ্রিল বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে রহনপুর ইউপির (সাময়িক বরখাস্তকৃত)

চেয়ারম্যান শাহ আল শফি আনসারী করোনা দূর্যোগের মধ্যে এলাকা ছেড়ে আমেরিকায় পাড়ি

জমানো সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশ হলে ওই ইউপি চেয়ারম্যানের ভাতিজা ও রহনপুর ইউনিয়ন

ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার জামান আনসারী এবং রহনপুর পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ফজলে

রাব্বী প্লাবনের দেয়া দুটি পোষ্টে তাদের কর্মী সমর্থকরা অশালীন মন্তব্য, অকথ্য ভাষায়

গালিগালাজ সহ পরোক্ষভাবে হুমকি প্রদান করে স্থানীয় সাংবাদিকদের। এর প্রেক্ষিতে দুটি সাংবাদিক সংগঠন যৌথ

ভাবে প্রতিবাদ সভা করে জড়িত সংশ্লিষ্টদের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার জন্য এক সপ্তাহের সময়

দিলেও তারা ক্ষমা প্রার্থনা না করায় সাংবাদিকদের নিরাপত্তার জন্য এ সাধারণ ডায়রী দায়ের করা

হয়।
এ ব্যাপারে গোমস্তাপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আতিকুল ইসলাম আজম জিডি দায়েরের বিষয়টি স্বীকার করে জানান, সাংবাদিকরা সত্য সংবাদ প্রকাশ করতে গিয়ে এভাবে বার বার হুমকির মুখে পড়ছে যা গ্রহনযোগ্য নয়। সাংবাদিকরা নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করলে ভবিষ্যতে নেতাদের সংযত হয়ে সাংবাদিকদের যথাযথ মূল্যায়ন করার আহবান তার।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ত্রাণের নামে প্রতারণার ঘটনায় গ্রেফতারকৃত সেই ‍ভূয়া রেডক্রিসেন্ট কর্মকর্তা কক্সবাজারের

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
চাঁপাইনবাবগঞ্জে করোনা ভাইরাসে কর্মহীন অসহায় মানুষকে ত্রাণ দেওয়ার কথা বলে বিকাশের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়া প্রতারক চক্রের একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সে রেডক্রিসেন্টের নামে ত্রান দেয়ার নাম করে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে বিকাশের মাধ্যমে প্রতারনা করে আসছিল।
গ্রেফতারকৃত ব্যাক্তি কক্সবাজার জেলার চকরিয়া থানার সোসাইটি পাড়ার মোঃ ইখতেখার হোসেন (১৯)।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং এ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুব আলম খাঁন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত ২৭ এপ্রিল এক ব্যাক্তি নিজেকে রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখার ম্যানেজার পরিচয় দিয়ে লকডাউন উপলক্ষে কর্মহীন অসহায় মানুষকে ত্রাণ দেওয়া হবে বলে প্রতারক শিবগঞ্জ উপজেলার স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাকর্মীদেরদেরকে কর্মহীন মানুষের তালিকা করতে বলে এবং জনপ্রতি রেজিস্ট্রেশন বাবদ ৭০০ টাকা করে উত্তোলন করে ফর্ম ফিলাপ করতে বলে।

এবং ৭০টি পরিবারের কাছে তুলা টাকা প্রতারককে পাঠানো হয়। টাকা বিকাশে দেওয়ার পর তালিকা অনুযায়ী ত্রাণ দেওয়া হবে জানান। টাকা পাওয়ার পর থেকে প্রতারকের মোবাইল ফোন বন্ধ ও টাকা ও ত্রান না পেয়ে মাইনুল ইসলাম নামে একজন শিবগঞ্জ থানায় সাধারণ ডাইরি করে। বিষয়টি পুলিশ সুপার এ এইচ এম আব্দুর রকিব এর নজরে আসলে ডিবি পুলিশকে দায়িত্ব দেন। ডিবি পুলিশ কুমিল্লা জেলার ডিবি পুলিশের মাধ্যমে মোঃ ইফতেখারকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত প্রতারক জানান, তাহার খালাতো ভাই মিজানুর রহমান দেশের বিভিন্ন ভাষায় কথা বলতে পারে এ্ং দীর্ঘ ২/৩ বছর থেকে দেশের বিভিন্ন উপজেলার কর্মকর্তা ও নেতাদের সাথে মোবাইল অ্যাপস্ এর মাধ্যমে নাম্বার সংগ্রহ করে প্রতারনা করে আসছে। প্রতারক মিজান ও গ্রেফতারকৃত ইফতেখার হোসেনের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বোরো ধান ও চাউল সংগ্রহের উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বোরো ধান ও চাউল সংগ্রহের উদ্বোধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৭ মে) সকালে ধান-চাল সংগ্রহের শুভ উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক এজেডএম নূরুল হক।

সরকারি নির্দেশনানুযায়ী কৃষক ও মিলারদের নিকট হতে ২৬ টাকা কেজি দরে বোরো ধান ও ৩৬ টাকা কেজি দরে চাউল ক্রয় করা হবে বলে জানা যায়।

এ বছর জেলায় বোরো ধান সংগ্রহের লক্ষ্য মাত্রা ৪ হাজার ২৮৪ মেট্রিকটন এবং চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা ৩১ হাজার ৩৫৭ মেট্রিকটন বলে জানান জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ ওবায়দুল ইসলাম।

সদর উপজেলা খাদ্য গুদামে ধান-চাল সংগ্রহ অনুষ্ঠানের উদ্বোধক জেলা প্রশাসক এজেডএম নুরুল হক বলেন, কৃষক ও মিল মালিকদের মধ্য হতে লটারির মাধ্যমে স্বচ্ছতার সহিত জেলায় এ ধান ও চাল সংগ্রহ করা হচ্ছে। জেলার মানুষের খাদ্য সরবরাহ নিশ্চিতকল্পে ধান-চাল সংগ্রহ করছে সরকার। জেলায় যথেষ্ট খাদ্য মজুদ আছে বলে জানান তিনি।উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আলমগীর হোসেন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ ওবায়দুল ইসলাম, জেলা চেম্বার অব কমার্স এ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি মোঃ এরফান আলী, খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মফিজ উদ্দীন প্রমুখ।

২৪ ঘণ্টায় আরও ৭০৬ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত

ঢাকা: দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭০৬ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া এই সময়ে আক্রান্ত থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৩০ জন। নতুন করে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে পাঁচ হাজার ৮৬৭টি।

বৃহস্পতিবার (০৭ মে) দুপুর আড়াইটার দিকে নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।