সর্বশেষ সংবাদ চাঁপাইনবাবগঞ্জের বীর মুক্তিযোদ্ধা আ. রহমানের খবর নেয় না কেউ ? চাঁপাইনবাবগঞ্জে আরও একজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত || মোট আক্রান্ত ৫১৭ নাচোলে বাড়িতে গাঁজার চাষঃগাঁজা ও গাঁজার গাছসহ গ্রেপ্তার চাষী উপজেলা নির্বাহী অফিসার রওশন ইসলাম চৌধুরীর ও তাঁর পরিবার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত শিবগঞ্জের পর এবার রহনপুর ইসলামী ব্যাংকের শাখা লক ডাউন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সহ চাঁপাইনবাবগঞ্জে আরও ২৬ জন আক্রান্ত শিবগঞ্জে পদ্মায় নৌকা ডুবি: নিখোঁজ ৩ চাঁপাইনবাবগঞ্জের চামড়া ব্যবসায়ীরা পুজিঁ হারিয়ে অন্যের আড়তের লেবার ! করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে নাচোলে মাস্ক বিতরণ বৈরুত বিস্ফোরণ: ২ বাংলাদেশি নিহত ,আহত ৬০: দূতাবাসের হেল্পলাইন চালু
Large Add

শিবগঞ্জের এক আইনজীবিকে ধর্ষণ ও পর্ণোগ্রাফি: রামেক হাসপাতালের চিকিৎসক গ্রেফতার

রাজশাহী ব্যুরো

রাজশাহীতে শিক্ষানবিস নারী আইনজীবীকে ধর্ষণ ও পর্ণোগ্রাফির অভিযোগে এক চিকিৎসককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ওই চিকিৎসকের নাম সাখাওয়াত হোসেন রানা (৪০)। তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের চক্ষু বিশেষজ্ঞ। রাজশাহী মহানগরীরর রাজপাড়া থানার ওসি শাহাদাত হোসেন খান জানান, ডা. রানার স্ত্রী-সন্তান রয়েছে। তবে ওই নারী অবিবাহিত। তার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায়। আর চিকিৎসক রানার গ্রামের বাড়ি নওগাঁর পোরশা উপজেলায়। রাজশাহী নগরীর টিকাপাড়া এলাকায় তিনি ভাড়া থাকেন। ওই নারী বান্ধবীর সঙ্গে ভাড়া থাকেন নগরীর কোর্ট এলাকায়। তিনি রাজশাহী জেলা জজ আদালতে শিক্ষানবীশ আইনজীবী হিসেবে কর্মরত। ওই নারীর দাবি, প্রায় দেড় বছর আগে ডা. রানার সঙ্গে তার পরিচয় হয়। কিছু দিনের মধ্যেই ডা. রানা তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এরপর একদিন কৌশলে তাকে ধর্ষণ করে সেই ভিডিওচিত্র ধারণ করে রাখেন। তারপর সেই ভিডিওচিত্র ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ১৭ মাস ধরে তাকে ধর্ষণ করা হচ্ছিল। ওই নারীর বরাত দিয়ে রাজপাড়া থানার ওসি আরো জানান, শনিবার (২৫ জুলাই) সকালে ডা. রানা ওই নারীর ভাড়া বাসায় গিয়ে তার সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করতে চান। এ সময় ওই নারীর বান্ধবী পুলিশের জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে কল দেন। এছাড়া তিনি আশপাশের লোকজনকে বিষয়টি জানান। তখন এলাকাবাসী ওই চিকিৎসককে আটকে রাখেন। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে রাজপাড়া থানায় নিয়ে আসে। ভুক্তভোগী ওই নারীকেও থানায় আনা হয়। রাজপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান বলেন, কিছু পর্ণো ভিডিওচিত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এঘটনায় নারী আইনজীবি বাদী হয়ে মামলা করেছেন। তবে চিকিৎসক পুলিশের কাছে দাবি করছেন, জোর করে নয়। প্রেমের সম্পর্ক ছিল। তবে এ ঘটনায় থানায় ধর্ষণের মামলা হয়েছে। ওই নারী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত চিকিৎসককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
Add img sm
Add img sm

আরও পড়ুন